নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের সপ্তাহ না গড়াতেই ফুটপাথে উঠছে মোটর সাইকেল

৭২৬ পঠিত ... ২২:০৪, আগস্ট ০৯, ২০১৮

নিরাপদ সড়কের দাবিতে স্কুল-কলেজের বই খাতা ফেলে শিক্ষার্থীরা তীব্র আন্দোলনে রাস্তায় নেমেছিল গত এক সপ্তাহ। ঢাকার রাস্তায় এক লেনে চলছে রিকশা এবং গাড়ি, আর পথচারী হাঁটছে ফুটপাথে এবং ওভারব্রিজ ধরে- এমন দৃশ্য রূপকথার গল্প মনে হলেও সেটি সম্ভব করে দেখায় এই শিক্ষার্থীরা। আন্দোলন শেষে শিক্ষার্থীরা পড়ার টেবিলে ফিরে গেলেও আমরা ভেবেছিলাম রাস্তায় নিয়ম মেনে চলছে গাড়ি, আর ফুটপাথ ব্যবহার করে হাঁটছে মানুষ।

কিন্তু ৬ই আগস্ট রাকিব কিশোরের এক ছবি পালটে দিল সব সমীকরণ। ফেসবুকে প্রকাশিত ছবিটিতে দেখা গেল, ঝিগাতলায় সকাল দশটায় ফুটপাথে নেই কোন পথচারী, তার জায়গায় সারিবদ্ধ ভাবে সামনের দিকে এগোচ্ছে এক গাদা মোটরসাইকেল। এমন ছবি দেখে আমাদের eআরকি ফটোসাংবাদিক নিছকই গুজব বলে উড়িয়ে দেওয়ার জন্য সিদ্ধান্ত নেন রাস্তায় নেমে পড়ার। ছবি তুলে প্রমাণ করবেন- সড়কে নিয়ম মেনেই সব হচ্ছে।

ধানমন্ডি ১ এবং ২ সংলগ্ন রাস্তা ধরে এগিয়ে এবং ফুটওভার ব্রিজে উঠে eআরকি ফটোসাংবাদিক তার ছবিগুলো তোলেন। যে রাস্তা দিয়ে কিছুদিন আগেও এক সারি নিয়ন্ত্রণ করে রিকশা-গাড়ি চলেছে, সেখানে ব্রাউনিয় গতিতে রাস্তার মাঝখানে ইউটার্ন নিচ্ছে গাড়ি এবং রিকশাগুলো।

একটু সামনে এগিয়ে তিনি দেখলেন, এক ভদ্রলোক তার সামনে এগিয়ে এসে গাড়ি মন্ত্রবলে থামিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন। কিছুক্ষণ পরেই তাকে আবিষ্কার করা গেল, একটি বাস এবং গাড়ির মাঝে তিনি নিজেকে আঁটানোর মাধ্যমে পরীক্ষা করছেন তার শরীরে মেদ কতটা কমেছে।

কিছুক্ষণ পর পর কয়েকজন পথচারী রূপী ‘দৌড়বিদ’ রাস্তার মাঝে মিনি ম্যারাথন দৌড় শুরু করে ফিনিশিং লাইনের দিকে এগোতে থাকেন। কেউ কেউ আবার ৪০০ মিটার হার্ডলস দৌড়েছেন এক রিকশা থেকে অন্য রিকশায় লাফ দিয়ে দিয়ে।

রাস্তার এ রকম দশার ছবি তুলে বিধ্বস্ত অবস্থায় eআরকি হেডকোয়ার্টারে ফেরেন সাংবাদিক। এবং ঢুকেই ‘এই সব গুজব’ বলে সশব্দে দরজা বন্ধ করে বের হয়ে যান। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত, নিজের ক্যামেরার মাদারবোর্ড নষ্ট দাবি করে তিনি নিউ মার্কেটে তার ক্যামেরা ঠিক করাতে দিয়েছেন।

৭২৬ পঠিত ... ২২:০৪, আগস্ট ০৯, ২০১৮

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

রম্য

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top