পোশাক পরারও সময় পাননি এই দায়িত্ববান পুলিশ?

৫৩৩৯ পঠিত ... ২২:৩৪, আগস্ট ০৬, ২০১৮

৬ আগস্ট রাজধানীর রামপুরা এলাকায় ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির সামনে দাঙ্গা পুলিশের সাথে দায়িত্ব পালন করতে দেখা যায় সাদা পোশাকের এক ব্যক্তিকে। তার পরনে ছিল সাদা রঙের একটি টি শার্ট এবং কাছা মারা লুঙ্গি। তার আশেপাশে সাদা-কালো পোশাকে আরও দুজন ব্যক্তিকে পুলিশের দায়িত্ব পালন করতে দেখা গেলেও, সাদা গেঞ্জির এই ব্যক্তিটির ছবি ভাইরাল হয় ফেসবুকে।

ছবি: ফেসবুক

দাঙ্গা পুলিশের মাঝে সাদা পোশাকে এই ব্যক্তি কে? যেহেতু পুলিশ সরকারি প্রতিষ্ঠান, তাই তিনি বিএনপি কিংবা জামাত শিবিরের কেউ হতে পারেন না। জামাত শিবিরের কেউ হয়ে তো আর সরকারি কর্মীদের সাথে মাঠে নামা যায় না। আবার ছাত্রলীগ যেহেতু কাউকে নখের আঁচড়টিও দেয়নি, সেহেতু ব্যক্তিটি ছাত্রলীগেরও কেউ নন। eআরকি অপরাধ গবেষক দল তাই নিশ্চিত হয়েছে, উনি পুলিশের একজন দায়িত্ববান নির্ভীক সদস্য। নিশ্চয়ই জরুরি ফোন পেয়ে পুলিশের পোষাক এবং শারীরিক নিরাপত্তার তোয়াক্কা না করে তিনি নেমে যান কর্তব্যের ডাকে।

আজ সকালে আফতাব নগরের মূল ফটকের সামনে নিরাপত্তা বাহিনীর এই নির্ভীক সদস্যকে তার সহকর্মীদের সাথে অদৃশ্য এক দুষ্ট শক্তির মোকাবিলা করতে দেখা যায়। তার প্রকৃত খোঁজ বের করতে মাঠে নেমে পড়ে eআরকি প্রতিবেদক।

নেহাতই দায়িত্ববোধের বালাই থেকে নিজের আধোঘুম নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছান আমাদের eআরকি প্রতিবেদক। ঘটনাস্থলে খুব সহজেই গেঞ্জি-লুঙ্গি জড়ানো সেই পুলিশ কর্মকর্তাকে সনাক্ত করা সম্ভব হয়। সে সময় তিনি লুঙ্গি দিয়ে নিজের ঘাম মুছতে ব্যস্ত ছিলেন।

নিজের গুরুত্বপূর্ণ সময় থেকে কিছু মূহুর্ত ব্যয় করে এক্সক্লুসিভ এক সাক্ষাৎকারে তিনি eআরকি প্রতিবেদককে বলেন, ‘এখন খালি চারদিকে বোমা আর টিয়ারশেলের শব্দ শুনি। ঘুমের মধ্যে মনে হলো দুষ্কৃতকারীরা বোমা মারছে। কিন্তু উঠে দেখি, এতো বোমা নয়- এতো বাজছে আমার ফোন।’

'ফোনে শুনি, চারদিকে প্রচুর শব্দ। আমার সহকর্মী ভয় মিশ্রিত কণ্ঠে বলেন, ‘দুষ্ট শক্তি আমাদের ঘিরে ফেলেছে। উই নিড ইউ, কাম কুইক।’ শুনেই আমি ঘুমের সময় পরে থাকা গেঞ্জি লুঙ্গি পরে আমার সহযোদ্ধাদের সাথে যোগ দেই।'- এই বলে থেমে কিছুটা শ্বাস নেন এই কর্মকর্তা।

পুলিশের পোশাক না পরায় কোন সমস্যা পোহাতে হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি প্রতিবেদকের কানে ফিসফিস করে বলেন, ‘ইদানিং এত্ত ফোন আসে! কোনটা হেডকোয়ার্টার, আর কোনটা উর্ধ্বতন আদেশ- ঠাওর করতে পারি না।’

গেঞ্জি-লুঙ্গি পরে ডিউটি করে নিজের অভিজ্ঞতা জানিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘লুঙ্গি পরে ডিউটি করা আরামদায়ক। ভেতরে প্রচুর বাতাস ঢুকে। এছাড়া লাফঝাঁপ করার সময় কাছা করার সুযোগ আছে। পুলিশের ইউনিফর্ম লুঙ্গিই হওয়া উচিত!’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পুলিশের আরও কয়েকজন সদস্য জানান যে, তারাও সত্যিকারের সাদামাটা পোশাকে মাঠে নামতে চান। এ ব্যাপারে হাই কমান্ডের কাছে আবেদন করবেন বলেও জানান গুটিকতক পুলিশ কর্মকর্তা।

[eআরকি একটি স্যাটায়ার ওয়েবসাইট। নিছকই বিনোদনের জন্য এর সংবাদ প্রচারিত হয়। কাজেই একে সিরিয়াসলি নিবেন না, বিশ্বাসও করবেন না। পড়ুন, এরপর ভুলে যান।]

৫৩৩৯ পঠিত ... ২২:৩৪, আগস্ট ০৬, ২০১৮

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

রম্য

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top