যে ১০টি পদ্ধতিতে অস্বচ্ছ ব্যালট বাক্সেও স্বচ্ছ ডাকসু নির্বাচন নিশ্চিত করবেন

৫১০ পঠিত ... ১৮:২৫, মার্চ ১০, ২০১৯

দেশের সকল নির্বাচনে স্বচ্ছ প্লাস্টিকের ব্যালট বাক্স ব্যবহার করা হলেও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচনে তার ব্যতিক্রম হতে চলেছে। স্বচ্ছ নির্বাচন নিয়ে যখন ঢাবির বেশিরভাগ ক্রিয়াশীল ছাত্র সংগঠন আশঙ্কা প্রকাশ করছে তখন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন অস্বচ্ছ ব্যালট বাক্সে নির্বাচন করার প্রায় সব আয়োজন চূড়ান্ত করে ফেলেছে (ডেইলি স্টার)।

তবে ঢাবি শিক্ষার্থীদের নির্বাচনের স্বচ্ছতা বিষয়ে ভয়ের কিছু নেই। কয়েকটি পদ্ধতি প্রয়োগ করলে এই অস্বচ্ছ বাক্সেই স্বচ্ছ নির্বাচন সম্ভব। চলুন জেনে নিই, এই অস্বচ্ছ বাক্স নির্বাচনের আগের রাতেই ব্যালট পেপারে ভরিয়ে ফেলা হয়েছে কিনা তা যাচাইয়ের ১০টি এক্সক্লুসিভ সিস্টেম।

১# সবার আগে ব্যালট বক্সের ওজন মেপে রাখবেন। পরবর্তীতে ভোটগ্রহণের পূর্বমুহূর্তে ব্যালট বাক্সের ওজন মেপে নিলে টের পাওয়া যাবে, নির্বাচন শুরুর আগেই ভেতরে ব্যালট পড়েছে নাকি পড়েনি।

২# কোলনস্কপি পদ্ধতিতে ব্যালট বাক্সের ভেতরে স্কোপ ভরে চেক করুন। ক্যান্সার বা পলিপের মতো আগে ফেলা ব্যালটও চলে আসবে মনিটরের পর্দায়।

৩# অনলাইনে যেসব বুদ্ধিজীবীরা একটা নিউজ বা ছবি দেখেই পুরো ঘটনা বুঝে ফেলতে পারেন, তাদের সাহায্য নেয়া যেতে পারে। এই অস্বচ্ছ বাক্স দেখেই তারা এর ভেতরে ব্যালট পেপার আছে কিনা, থাকলে কয়টা এবং কোন প্রার্থীর সিল মারা এসব কিছু বুঝে ফেলতে পারবেন।

৪# ভোটগ্রহণের আগেই বাক্সে ব্যালট আসা প্রতিরোধ করতে সাহায্য নিতে পারেন গুজবের। যেহেতু বাইরে থেকে এই অস্বচ্ছ বাক্স দেখে বোঝার উপায় নেই এখানে আগে ব্যালট ভরা হয়েছে কিনা, সেহেতু আগের দিন সন্ধ্যাবেলাই গুজব রটানো শুরু করুন, বাক্সে ব্যালটপেপার ভর্তি হয়ে গেছে। এতে করে দুষ্কৃতিকারীরা কষ্ট করে আর আগের রাতে ব্যালটপূরণ মিশনে নামবেন না। এতে করে শূন্য বাক্স দিয়েই শুরু হবে ভোটগ্রহণ।

৫# ছোট আলমারির মতো দেখতে এই অস্বচ্ছ ব্যালট বাক্সে রয়েছে একটি ব্যালট পেপার ঢুকানোর চিকন ফাঁক। এই ফাঁক দিয়ে একটি অত্যন্ত স্লিম স্মার্টফোন ঢুকিয়ে টাইমার অন করে বাক্সের ভেতরের ছবি তুলে ফেলা সম্ভব। সুতরাং ব্যালট বাক্স আগেই ভর্তি কিনা তা যাচাই করার সুযোগ তো থাকছেই...

৬# যেহেতু আগেই ব্যালট ভর্তি হওয়ার বেশিরভাগ ঘটনা নির্বাচনের আগের রাতে হয়, সেহেতু ভোটগ্রহণের কাজটা আগের রাতেই সেরে ফেলা যেতে পারে। একটি নির্দিষ্ট অসাধুচক্র এসে যখন আগে ব্যালট ফেলতে আসবে, তখন তারা আবিষ্কার করবে ভোটগ্রহণের কাজ শেষ হয়ে গেছে।

৭# স্টিলের পাত দিয়ে নির্মিত ব্যালট বাক্সটি বাজিয়ে দেখতে পারেন। যেহেতু কথায় আছে, ‘খালি কলসি বাজে বেশি’ সেহেতু বাক্সে ব্যালট না থাকলে সেটি থেকে বেশি শব্দ উৎপন্ন হবে। আর ভরা থাকলে মৃদু চাপা ধরনের শব্দ বের হবে।

৮# যেসব ‘নাইন্টিজ কিডস’ শৈশবে মাটির ব্যাংক ঝাঁকিয়েই ভেতরে কত টাকা কত পয়সা আছে এসব বুঝে ফেলতে এক্সপার্ট ছিলেন, তাদেরকে দিয়ে ব্যালট বাক্স পরীক্ষা করিয়ে নেয়া যেতে পারে। ব্যালট বাক্সে কান রেখে একটু ঝাঁকিয়েই তারা বলে দিতে পারবেন, ভেতরে আগে থেকেই ব্যালট পেপার ভরা আছে কিনা।

৯# সুপারহিরো জগতের সবচেয়ে জনপ্রিয় চরিত্র সুপারম্যানের বহুবিধ ক্ষমতার মধ্যে একটি হলো ‘এক্স রে ভিশন’। এই ব্যালট বাক্সে খালি চোখে ভেতরের খবর টের পাওয়া যায় না বলে এই নির্বাচনের গেস্ট পরিদর্শক হিসেবে সুপারম্যানকে আমন্ত্রণ করা যেতে পারে। তিনি ভোটগ্রহণ শুরুর আগে কেন্দ্রে কেন্দ্রে উড়ে ঘুড়ে টহল দিয়ে দেখবেন কোন বাক্সে আগেই ব্যালট পড়েছে কিনা।

১০# বাক্সের মধ্যে ইঁদুর ঢুকিয়ে দেয়া যেতে পারে। ভোটের আগের রাতে যেসব ব্যালট পেপার বাক্সে ঢুকানো হবে, ইঁদুর সেসব কুচি কুচি করে ফেলবে। সকালবেলা ইঁদুর আর ইঁদুর কর্তৃক কুচি কুচি করা ব্যালট পেপারসমূহ বের করে নিয়ে ভোটগ্রহণ শুরু করলেই হলো...

৫১০ পঠিত ... ১৮:২৫, মার্চ ১০, ২০১৯

Top