বিপিএলের গ্যালারিতে যে ১০ উপায়ে দর্শক আনা যেতে পারে

৬৬৮ পঠিত ... ১৮:৫৮, জানুয়ারি ১১, ২০১৯

বিপিএলের ১০টার মতো ম্যাচ হয়ে গেছে, খেলা জমেও উঠেছে। অথচ মাঠে দর্শক নেই! টুর্নামেন্টে বড় বড় তারকা খেলতে এসেছেন, অথচ দর্শকশূন্য গ্যালারি। কী কারণে মাঠে দর্শক আসছে না, কর্তৃপক্ষের মতো তা আমাদেরও জানা নেই। কিন্তু মাঠে দর্শক আনার উপায় নিয়ে নিশ্চয় আমরা ভাবতেই পারি! eআরকির গ্যালারি গবেষক দল তাই জানাচ্ছে বিপিএলের গ্যালারিতে দর্শক ইয়ে আসার কিছু উপায়।


১# খেলোয়াড়দের সাথে সেলফি তোলার সুযোগ দিলে

সাকিব, তামিম, মাশরাফি কিংবা স্মিথ, ওয়ার্নার, গেইলদের সাথে যদি সেলফি তোলার সুযোগ করে দেওয়া হয়, তাহলে মাঠে দর্শকের অংশগ্রহণ বাড়বেই। দেশি-বিদেশি এই তারকা ক্রিকেটারদের সাথে সেলফি তুলতে পারলে, তা ফেসবুক-ইন্সটাগ্রামে আপলোড করা যাবে। আর এসব ছবি একজনকে এনে দিতে পারে অসংখ্য ফ্যান-ফলোয়ার। তাই খেলোয়াড়দের সাথে সেলফি তোলার সুযোগ দিয়ে দলে দলে তরুণকে মাঠে নিয়ে আসার সুযোগ করে দিয়ে বিপিএল কমিটি বাধিত করবেন। 

 

২# স্টেডিয়ামের ক্যান্টিনে ফ্রি ব্যুফে অফার

কথায় আছে, বাঙালি মাগনা পেলে আলকাতরাও খায়। আর খাবার মাগনা পেলে তো কথাই নেই, খুশিতে খাওয়ার পরে এক গ্লাস আলকাতরাও খেয়ে ফেলার কথা। স্টেডিয়ামের ক্যান্টিনে ফ্রি ব্যুফে অফার দিলেই টের পাওয়া যাবে, কত গ্যালারিতে কত দর্শক! কিন্তু এত দর্শক মাগনা ব্যুফে খেলে টাকা পয়সার লস হবে ভাবছেন? একেবারেই না, টিকিটের দামটা বাড়িয়ে দিলেই চলবে! ফ্রি ব্যুফে খাওয়া যাবে জানতে পারলে মানুষজন যেকোনো দাম দিয়ে টিকিট কিনে হলেও স্টেডিয়ামের ক্যান্টিনে হাজির হবে বলে আমাদের বিশ্বাস!

৩# গ্যালারিতে ফ্রি ওয়াইফাই

আরও একটি কথা প্রচলিত আছে, বাঙালি মাগনা ওয়াইফাই পেলে আলকাতরার ছবিও ডাউনলোড করে। যাদের বাসায় ওয়াইফাই নেই, তাদের অনেকেই তন্নতন্ন করে সারা শহরে ফ্রি ওয়াইফাই খোঁজেন। যেখানেই ওয়াইফাই পান, বসেন বসেন বসে যান। সুতরাং গ্যালারিতে ফ্রি ওয়াইফাইয়ের ব্যবস্থা করলে গ্যালারি ফাঁকা থাকা দূরের কথা, দর্শক আঁটানোই কঠিন হয়ে যাবে! 

 

৪# কাপলদের ক্যামেরায় দেখানো হবে না এমন নিশ্চয়তা দিলে

লুকিয়ে লুকিয়ে খেলা দেখতে আসা কপোত-কপোতীদের জন্য এক বিভীষিকা রূপ নিয়েছেন জিটিভির ক্যামেরাম্যানরা। ক্লাস ফেলে, বাসায় না বলে প্রেমিক/প্রেমিকা নিয়ে খেলা দেখতে এসে অনেকেই ধরা খেয়েছেন এই নব্য পাপারাজ্জিদের কারণে। ফলে কাপলদের কাছে জনপ্রিয়তা হারিয়েই যাচ্ছে বিপিএল। তাই তাদের মাঠমুখী করতে, মাঠে শান্তিমত দু দণ্ড প্রেম করার ফুসরত দিতে যদি কাপলদের ক্যামেরায় না দেখানোর নিশ্চয়তা দেওয়া হয়, তাহলে নিশ্চয়ই তারা আবার ফিরবে মাঠে। ফুটবে প্রেমের কলি।

 

৫# দর্শকদের প্রোমো কোড দিয়ে

বিপিএলের খেলা দেখতে যাওয়ার সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ, এজন্য আপনাকে যেতে হবে মিরপুর! যদি কোনো ভাবে পৌঁছেও যান, এরপর আবার ঘরে ফিরতে পারবেন কিনা সেই দুশ্চিন্তা তো আছেই। সুতরাং বিপিএল কর্তৃপক্ষ দর্শকদের পাঠাতে পারেন বিশেষ প্রোমো কোড। তবে শুধু খেলা দেখতে আসলেই রাইড শেয়ারিং অ্যাপে এই প্রোমো কোড প্রয়োগ করা যাবে- এমন নিয়ম থাকতে পারে।

 

৬# বিদেশ থেকে চিয়ারলিডার আনলে

এগিয়ে যাচ্ছে পৃথিবী। এখন পৃথিবীর যেকোনো টিটুয়েন্টি লিগেই চোখ ধাঁধানো, মন মাতানো চিয়ারলিডারদের দেখা যায়। প্রতি চার ছক্কা আর উইকেটের পতনে তারা নেচে গেয়ে মাতিয়ে দেয় পুরো স্টেডিয়ামকে। আমাদের দেশে এ নিয়ে আয়োজকদের খুব একটা আগ্রহ দেখা যায় না। তাই বিপিএল কমিটির উচিত বিদেশ থেকে আকর্ষণীয় চিয়ারলিডার এনে সবাইকে চাঙ্গা করে তোলা।

 

৭# দর্শকদেরও দুয়েক ওভার খেলতে দেয়া হবে

বাঙালি ক্রিকেটপাগল জাতি। রাস্তা দিয়ে হাঁটতে হাঁটতে যদি কোথাও বাচ্চাদের খেলতে দেখে থেমে গিয়ে এক ওভার ব্যাটিং বা বোলিং করতে চাওয়া একটা সাধারণ ঘটনা। তো বিপিএল মাঠেও যদি এভাবে এক দুই ওভার ব্যাট-বল করার সুযোগ দেওয়া হয়, তাহলে অনেকেই মাঠে যাবেন। ব্যাট-বল না দিলেও অন্তত একটা ওভার ফিল্ডিং করতে দিলেও চলবে।

 

৮# দর্শকদের জানানো হবে যে সাকিবের বউ কেন পর্দা করে না

‘বার্নিং কোশ্চেন’ বলতে যেটা বোঝায়, বাংলার অনলাইনে সেটি হচ্ছে ‘সাকিবের বউ কেন পর্দা করে না’। কোটি মানুষ অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে আছে এই প্রশ্নের উত্তর জানতে। যদি বিপিএল আয়োজকরা ঘোষণা দেন, শুধুমাত্র মাঠে খেলা দেখতে আসলেই এই প্রশ্নের উত্তর জানানো হবে। তবে বাংলার আপামর ফেসবুক সমাজ ভেঙে পড়বে স্টেডিয়ামে।  

 

৯# দর্শকরা চাইলে আম্পায়ারিংও করতে পারবেন

জাজমেন্টাল জাতি হিসেবে আমাদের খ্যাতি বিশ্বব্যাপী। সব কিছুতেই আমাদের একটা সিদ্ধান্ত এবং মন্তব্য থাকে। খেলার মাঠও তার ব্যতিক্রম নয়। এমনিতেই বিপিএলের আম্পায়ারিং নিয়ে সমালোচনায় মুখর সবাই। তাই দর্শকদের আম্পায়ারিং করার সুযোগ করে দেওয়া উচিত। পোল সিস্টেমের প্রতিটি সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা দর্শকদের দিলে তারাও নিজেদের খেলার একটি অংশ মনে করবে। খেলায় ইন্টারঅ্যাকশন বেশি থাকবে। সুতরাং আম্পায়ার হওয়ার লোভেই হয়তো দর্শকরা দলে দলে খেলা দেখতে চলে আসবেন!

 

 

১০# দর্শকরা সরাসরি খেলা নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন

খেলা দেখতে আসার আগ্রহ বৃদ্ধি করতে দর্শকদের কিছু বিশেষ ক্ষমতা দেয়া যেতে পারে। মাঠে খেলা দেখতে আসা দর্শকরা কোনো ব্যাটসম্যান কোনো সিচুয়েশনে কী ধরণের শট খেলবেন বা অধিনায়ক ম্যাচের কোন মুহুর্তে কোন বোলারকে বোলিং দিবে, দর্শকরা সেসব সিদ্ধান্ত দিতে পারবেন। 

৬৬৮ পঠিত ... ১৮:৫৮, জানুয়ারি ১১, ২০১৯

আরও eআরকি

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

কৌতুক

গল্প

রম্য

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top