সে অনেক কাল আগের কথা, বাংলাদেশের মানুষ যখন সেক্স কী জিনিস জানতো না

২৪৯৮১ পঠিত ... ২৩:৪৩, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৯

সে অনেক কাল আগের কথা। বাংলাদেশের মানুষ তখনও সেক্স কী জিনিস জানতো না।

বাংলাদেশের মানুষ তখন মনে করতো, ঐসব দিয়ে জাস্ট বাথরুম করতে হয়। ছেলে আর মেয়ের মধ্যে ভাইবোন ছাড়া কোনো সম্পর্কও থাকতে পারে, তারা তা ভাবতেও পারতো না। ছেলে আর মেয়েরা তো জাস্ট একসাথে কোচিং করে, স্যারের কাছে পড়ে! কক্সবাজার গেলেও একসাথে জাস্ট গোসল করে।

সে সময় বংশবিস্তার হতো বায়ুপরাগায়ন পদ্ধতিতে। কোনো কোনো বাবা-মার কাছে ইয়া বড় এক পাখি মুখে করে বাবু নিয়ে আসতো। কেউ কেউ হাসপাতালে গিয়ে ডাক্তারের কাছ থেকে বাবু নিয়ে আসতো।

এরপর হুট করে একদিন সালমান মুক্তাদির নামে এক ইউটিউবার আসলো। ফেসবুক পেজে সে মেয়েদের সাথে নানান সব 'ইয়ে' ছবি দিতে শুরু করলো। ইউটিউবে তার এক মিউজিক ভিডিওর টিজারে প্রচুর জড়াজড়ি ঘষাঘষি দেখে বাংলাদেশের মানুষ সেই প্রথমবার সেক্স সম্পর্কে জানতে পারলো, সেক্স কী জিনিস দেখলো।

সেই ভিডিও দেখে বাংলাদেশের সব ছেলেমেয়ে সেক্স কী তা শিখে গেলো। নিষ্পাপ ছেলেমেয়েরা প্রেম সেক্স এসব করা শুরু করলো। দেশ-সমাজ সব নষ্ট হয়ে গেলো।

নষ্ট হওয়া সেই সমাজকে উদ্ধার করতে এগিয়ে এলেন এক মসীহা- তাহসিন দুধে ধোয়া তুলসি পাতানেশন। দলে দলে তিনি বাংলার মানুষকে দিয়ে ওই নোংরা চ্যানেল আনসাবস্ক্রাইব করালেন। দেশ-সমাজ, রামায়ণ, মহাভারত সব শুদ্ধ হয়ে গেলো।

সেইদিনের পর আবারও দেশ আগের মতো পুতঃপবিত্র হয়ে গেলো। সেক্স মানে আবারো হয়ে গেলো লাইট অফ আর দুটো ফুলের টোকাটুকি!

২৪৯৮১ পঠিত ... ২৩:৪৩, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৯

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

রম্য

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি


Top