বুড়িগঙ্গা যে যুগে ছুড়িগঙ্গা ছিল : বুড়িগঙ্গার এমন রূপ আপনি নিশ্চয়ই কখনো দেখেননি

৩৫২২ পঠিত ... ১৪:৫৪, জানুয়ারি ২৮, ২০১৯

ঢাকা শহর যদি সন্তান হয়, তবে নিঃসন্দেহে তার মা হচ্ছে বুড়িগঙ্গা নদী। শহর ঢাকার বয়সই চার শতাব্দী অতিক্রম করেছে, সেই হিসেবে বুড়িগঙ্গা এখন সত্যি সত্যিই ‘বুড়ি’ হয়েছে বলতে হবে। ঢাকার দক্ষিণ ও পশ্চিম পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া এই নদীটি গঙ্গা বা পদ্মার প্রাচীন প্রবাহপথ। সাভারের দক্ষিণে ধলেশ্বরী থেকে উৎপত্তি হয়ে বুড়িগঙ্গার সমাপ্তি হয়েছে ফতুল্লার দক্ষিণে আবারও ধলেশ্বরীর সাথে মিশে। প্যারিসের সেইন কিংবা লন্ডের টেমস নদীর মতো ঢাকার নদীটি হচ্ছে মাত্র ২৭ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের বুড়িগঙ্গা।

সেই ষোল শতকে বুড়িগঙ্গা দেখে এর প্রেমে পড়ে গিয়েছিল মোঘলরা। বুড়িগঙ্গার তীরে গড়ে ওঠা শহর ঢাকাকে তখন থেকেই সন্তানের মতই আগলে রেখেছিল নদীটি সব শত্রুর হাত থেকে। পরে এই অঞ্চলে ইউরোপিয়ানরা আসলে বুড়িগঙ্গার তীরে ঢাকাকে দেখে ভেনিসের কথাই মনে করতেন। শুরু থেকেই নামে ‘বুড়ি’ হলেও, বুড়িগঙ্গা দীর্ঘদিন ছিল পূর্ণযৌবনা। এখন যেমন নদীর দুই তীর ঘেঁষে অসংখ্য স্থাপনা, সেই সময়ে উত্তাল এই নদীর এতো কাছে কোন ঘরবাড়ি করার কথা কল্পনাও করা যেত না।

তবে উনিশ শতকের মাঝামাঝি সময়ে নদীটির মুখে চর পড়তে থাকায় আক্ষরিক অর্থেই বয়সের ছাপ পড়ে বুড়িগঙ্গায়। তবুও বুড়িগঙ্গা বর্ষাকাল বাদে বাকি বছর ছিল স্নিগ্ধ রূপ নিয়ে। ব্রিটিশদের হাত ধরে কিংবা নবাবদের সঙ্গী হয়ে ক্যামেরার চোখে বুড়িগঙ্গার শান্ত-স্নিগ্ধ ছবি ধরা পড়েছে উনিশ শতকেই। পরবর্তী সময়েও পূর্ব বাংলায় এসে বুড়িগঙ্গার রূপ দেখে মুগ্ধ হয়েছেন অনেক চিত্রগ্রাহক। এরপর রঙিন ছবির যুগে এসে স্বাধীন বাংলাদেশেও অনেকদিন বুড়িগঙ্গার রূপ অটুট ছিল। তখনও দেখা যেত রঙিন পালতোলা নৌকা নদীর বুকে ভেসে বেড়াচ্ছে। আহসান মঞ্জিল, নর্থব্রুক হল, রূপলাল হাউজ এসব স্থাপনা থেকে নদীর যে দৃশ্য ধরা পড়ত তা আজকের দিনে দেখলে কেবলই দীর্ঘশ্বাস ছাড়তে হয়।

আজকের দিনে পৃথিবীর সবচেয়ে দূষিত নদীগুলোর তালিকায় একেবারে উপরের দিকে অবস্থান নেওয়া বুড়িগঙ্গা গত দেড়শ বছরে কেমন ছিল? দেখে নিন বুড়িগঙ্গার বদলে যাওয়ার ছবি। ছবিগুলো নেওয়া হয়েছে ফেসবুক গ্রুপ ‘ঢাকা- ফোর হানড্রেড ইয়ারস হিস্ট্রি ইন ফটোগ্রাফস’ থেকে।

 

১# ১৮৬০’র দশকে বুড়িগঙ্গা

 


২# লালবাগ থেকে ১৮৮০’র দশকে বুড়িগঙ্গা, সর্ববামে বিলুপ্ত চাঁদনীঘাটে নাজির নাটো-সিং এর সমাধি

 

 

৩# সদরঘাট, ১৮৮৫

 

 

৪# বুড়িগঙ্গা, ১৯০৬

ছবি: ফ্রান্সিস ব্র্যাডলি

 

 

৫# নর্থ ব্রুক হলের (লালকুঠি) কাছে বুড়িগঙ্গা, ২০’র দশকে

 

 

৬# সদরঘাট, ৫০’র দশকে

 

 

৭# শীতের দিনে বুড়িগঙ্গা, ১৯৫২

ছবি: ক্ল্যারেন্স উড্রো সোরেনসেন

 

 

৮# বুড়িগঙ্গা থেকে দেখা বড় কাটরা, ১৯৫৫

ছবি: ফ্র্যাংক এন্ড জ্যঁ শোর

 

 

৯# বুড়িগঙ্গা ও সদরঘাট, ৬০’র দশকে

 

 

১০# সদরঘাটের কাছে বুড়িগঙ্গা, ৬০’র দশকে

 

 

১১# সূর্যাস্তে বুড়িগঙ্গা, ৬০’র দশক

 

 

১২# বুড়িগঙ্গার বুকে খুলনার পথে প্যাডেল স্টিমার, ৬০’র দশকে

 

 

১৩# ব্যস্ত সদরঘাট, ৬০’র দশকে

 

 

১৪# বুড়িগঙ্গা, ১৯৬৭

 

 

১৫# সদরঘাটের কাছে বুড়িগঙ্গা, ১৯৭০

 

 

১৬# সদরঘাট, ১৯৭১

ছবি: ফার্দিনান্দো সিয়ান্না

 

 

১৭# নদীর বুকে যেন মেলা বসেছে, ৭০’র দশকে

 

 

১৮# সদরঘাট ছেড়ে যাচ্ছে প্যাডেল স্টিমার, ১৯৭২

 

 

১৯# ব্যস্ত সদরঘাট, ১৯৭২

 

 

২০# আহসান মঞ্জিল থেকে বুড়িগঙ্গা, ১৯৭৪

 

 

২১# পোস্তগোলার কাছে বুড়িগঙ্গা, ১৯৭৬

 

 

২২# সদরঘাটে বুড়িগঙ্গা, ৮০’র দশকে

 

 

২৩# বুড়িগঙ্গা এবং সদরঘাট, ৮০’র দশকে

 

 

২৪# সদরঘাটে ভাসমান রেস্টুরেন্ট, ৮০’র দশকে

 

 

২৫# বুড়িগঙ্গা থেকে আহসান মঞ্জিল, ৯০’র দশকে

৩৫২২ পঠিত ... ১৪:৫৪, জানুয়ারি ২৮, ২০১৯

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

রম্য

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top