অল্প শোকে কাতর, অধিক শোকে আর্জেন্টিনা সাপোর্টার

১৬৮ পঠিত ... ১৫:৫৪, জুলাই ০৩, ২০১৯

পৃথিবীর ইতিহাসে বিভিন্ন সময় কোন একটি অঞ্চলের মানুষের উপর নেমে এসেছে অসীম হতাশা। যুদ্ধ-বিগ্রহ, অর্থনৈনিক সংকট, বড় কোন দুর্ঘটনা থেকে শুরু করে নানান সময়ে ঘটে আসা প্রাকৃতিক দুর্যোগের ফলে নির্দিষ্ট অঞ্চলের অনেক মানুষ একসাথে নৈরাশ্যে নিমজ্জিত হয়ে পড়েছেন, এমন উদাহারণ ইতিহাসে অনেক আছে। এর সাম্প্রতিকতম নমুনাটি দেখা গেছে বাংলাদেশ জুড়ে। আজ (৩ জুলাই) ভোরে সুদূর ব্রাজিলে অনুষ্ঠিত কোপা আমেরিকার সেমিফাইনালটি সম্প্রচারের পর পুরো দেশের বিভিন্ন স্থানে আশংকাজনক হারে বেড়ে গেছে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত মানুষের সংখ্যা। 

টুর্নামেন্টের শুরুটা খুব খারাপ হওয়ার পরেও কোয়ার্টার ফাইনালে ভেনিজুয়েলাকে ২-০ গোলে হারিয়ে ঠিকই সেমিতে পৌঁছে যায় আর্জেন্টিনা। বাংলাদেশে আর্জেন্টিনার সমর্থকরা সেমিফাইনালে যাওয়া নিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করার আগেই বুঝতে পারেন, খেলা হবে স্বাগতিক ব্রাজিলের সাথে। তখন থেকেই বাংলার আকাশের পাশাপাশি একটা গুমোট ভাব লক্ষ্য করা যাচ্ছিল আকাশী-সাদা সমর্থকদের মনেও। সেই গুমোট ভাব মানসিক নিম্নচাপে রূপ নেয়, গতকাল (২ জুলাই) রাতে ক্রিকেট বিশ্বকাপের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে বাংলাদেশ প্রবল সম্ভাবনা জাগিয়েও হেরে গেলে। 

মধ্যরাতে পাওয়া এই ভয়ানক মানসিক ধাক্কার রেশ কাটতে না কাটতেই আজ ভোরবেলা ঝড় হয়ে হানা দেয় আর্জেন্টিনার পরাজয়। একরাশ কষ্ট বুকে নিয়েই আজ ভোরবেলা বাংলাদেশ সময় ভোর সাড়ে ছয়টায় টিভির সামনে বসেন আর্জেন্টিনা সমর্থকরা। ব্রাজিলের সেভেনআপখ্যাত ফুটবল স্টেডিয়াম বেলো হরিজন্তে তখন মুখোমুখি দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা। ১৯ মিনিটে গ্যাব্রিয়াল জেসুস এবং ৭১ মিনিটে কৌতিনহো একটি করে গোল করে ব্রাজিলের স্পষ্ট জয় নিশ্চিত করলে শোকের ছায়া নেমে আসে আর্জেন্টিনা সমর্থকদের জীবনে। 

তবে সাধারণত আর্জেন্টিনা সাপোর্টাররা আর্জেন্টিনার পরাজয়ে যে পরিমাণ শোকগ্রস্থ হন, এবার তেমনটা দেখা যায়নি। বরং তাদের মধ্যে লক্ষ্য করা গেছে আশ্চর্য এক নির্লিপ্ততা! কোনো কিছুই যেন তাদের আর স্পর্শ করে না। শোকে যেন পাথরও নয়, তারা হয়ে উঠেছেন ফসিল!

আজ সকাল থেকেই দেখা গেছে, আর্জেন্টিনা সাপোর্টাররা অদ্ভুত আচরণ করছেন। কেউ কেউ ডাকলে শুনছেন না, শুনলেও ফ্যালফ্যাল করে তাকিয়ে থাকছেন। চোখে যেন অপার্থিব এক শূণ্যতা। চোখ দেখেই বোঝা যাচ্ছে আর্জেন্টিনা গত রাতে কয়টা গোল দিয়েছে…

কোনো কোনো আর্জেন্টিনা সাপোর্টার কিছুই খাচ্ছে না, এমনটাও ঘটতে দেখা গেছে। কেউ কেউ চামচে করে সেভেন আপ দিলে একটু একটু খাচ্ছেন। অদ্ভূত এই নির্লিপ্ততার উৎপত্তি কি কোনো ভিনগ্রহে? আমাদের জানা নেই।

তবে অশোক কুমার নাথ নামের এক আর্জেন্টিনা সমর্থক আমাদের জানিয়েছেন, কীভাবে শুরু হয়েছে তার আজকের সকালটি-

‘সকালে ঘুম থেকে উঠে ব্রাশ হাতে নিয়ে দেখি পেস্ট একদম শেষ। পড়ে ব্লেড দিয়ে টিউবটা কেটে কোন রকমে ঘষে ব্রাশের সাথে একটু লাগালাম। পড়ে বেসিনের ট্যাপ ছেড়ে একটু ভিজাতে গিয়ে পানির তোড়ে ঐ সামান্য পেস্টটুকুও পড়ে গেল! তাও একবার না, দু-দুবার। একজন আর্জেন্টাইন সমর্থক হিসেবে জীবনের কাছে থেকে এর থেকে ভালো আর কি-ই বা আশা করা যায়!’

এজন্যই হয়তো সুবীর নন্দী গানে গানে বলেছিলেন, ‘আমি আর্জেন্টিনা সাপোর্টারের কাছ থেকে কাঁদতে শিখেছি, আমায় আর কাদানোর ভয় দেখিয়ে কোনো লাভ নেই!’

১৬৮ পঠিত ... ১৫:৫৪, জুলাই ০৩, ২০১৯

Top