সারা বিশ্ব শুনল পাকিস্তানের গর্জন

২৭৩ পঠিত ... ১৬:৫০, জুন ১৭, ২০১৯

ইংল্যান্ড-ওয়েলসে চলছে বিশ্বকাপ ক্রিকেট, ১০টি ক্রিকেট খেলুড়ে দেশ লড়াই করছে নিজ শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণের জন্য। আর সব দলের মতো পাকিস্তানও লড়ছে ক্রিকেটের ময়দানে নিজেদের বিশ্বসেরা প্রমাণের জন্য। সেই মহাযুদ্ধেই আরেকবার পুরো বিশ্ব শুনল পাকিস্তানের গর্জন। ক্রিকেটে সুদীর্ঘকাল ধরে চলে আসা ঐতিহাসিক ভারত-পাকিস্তান ডুয়েলের সর্বশেষ মঞ্চায়ন হয়ে গেল ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ড ক্রিকেট স্টেডিয়ামে, আর সেই ম্যাচেই গর্জে ওঠা পাকিস্তানের দেখা পাওয়া গেল টিভি পর্দায়।

১৬ জুন বিশ্বকাপে নিজেদের পঞ্চম ম্যাচে ভারতের মুখোমুখি হয় পাকিস্তান। প্রথম ইনিংসে ভারত যখন প্রায় ৪৫ ওভার ব্যাট করে ফেলেছে তখন খেলাটি উপভোগ করতে আসে ব্রিটিশ বৃষ্টি। কিন্তু বৃষ্টিতে এর আগে দুই দলেরই ম্যাচ ভেসে যাওয়ায় ভারত-পাকিস্তানের ক্রিকেটাররা বৃষ্টিকে খেলা না দেখতে দিয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান। বেশ কিছুক্ষণের বৃষ্টি শেষে যখন তারা আবার মাঠে ফিরে আসেন, তখন পাকিস্তানি অধিনায়কও চলে যান নিজ পজিশনে। উইকেটের পিছনে দাঁড়িয়ে কিছুটা ঝিমিয়ে পড়া দলকে উজ্জীবিত করতে তিনি গর্জে ওঠেন। শব্দ শোনা না গেলেও বোঝা যাচ্ছিল গর্জনের তীব্রতা।

 

তবে শব্দ না শুনেও এই গর্জন যে বিশ্ববাসীও শুনেছে তার প্রমাণ ম্যাচ চলাকালেই পাওয়া গেছে। দুনিয়ার নানান প্রান্ত থেকে প্রশংসার বন্যা ধেয়ে যায় সরফরাজের দিকে। এমন অবস্থায় eআরকি কথা বলে সরফরাজের সাথে। আচমকা গর্জে ওঠা নিয়ে জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, ‘উইকেটকিপিংয়ের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্র ক্যাচ ধরা কিংবা স্টাম্পিং করা না। সবচেয়ে ইম্পরট্যান্ট হচ্ছে, চিৎকার করে ব্যাটসম্যানদের কান ঝালাপালা করে দেওয়া। কিন্তু আধুনিক স্টাম্প মাইকের এই যুগে অত চিৎকার করলে টিভি দর্শকরা অনেক আপত্তি করে। তাই আমি সাইলেন্টলি গর্জন করেছি, বা গর্জন করার মুখভঙ্গী করেছি বলতে পারেন। এটা একটা হাই লেভেলের গর্জন। তবে হেটার্সরা বলবে আমি হাই তুলেছি...’

বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে ডাকওয়ার্থ এন্ড লুইস পদ্ধতিতে ৮৯ রানে হেরে গিয়ে ওয়ানডে বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে সপ্তম পরাজয় তুলে নেয় পাকিস্তান। ম্যাচশেষে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পাকিস্তানি খেলোয়াড় সরফরাজের গর্জনকে হাই তোলা বলে চিহ্নিত করে বলেন, ‘কোন গর্জন হয় নাই। আমরা টাইগার না। বৃষ্টিতে ম্যাচ থেমে গেলে ড্রেসিং রুমে ফিরে আমরা বিরিয়ানি খেয়েছিলাম। ক্যাপ্টেন বলে সরফরাজ প্রথমে দুই প্লেট বিরিয়ানি খেয়ে ফেলছিল। এরপর নিজেকে উইকেটকিপার দাবি করে সে আরও এক প্লেট বিরিয়ানি খাইছে। এইজন্য মাঠে গিয়ে হাই তুলছে সে!’ অন্য এক ক্রিকেটার শোয়েব মালিকের দিকে আঙুল তুলে বলেন, ‘শোয়েব নিশ্চয়ই ঘর বাঁচানোর জন্য গোল্ডেন ডাক মারছে।’  

তবে ইংল্যান্ডের সাথে দুর্ঘটনাক্রমে ম্যাচ জিতে গেলেও অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের সাথে হেরে আবারও ফর্মে ফিরে আসায় নিজ দলের খেলোয়াড়দের অভিনন্দন জানিয়েছেন সরফরাজ। তিনি বলেন, ‘পুরো পৃথিবী আবারও দেখছে আমরা কী পারি। ইংল্যান্ডের ম্যাচটা ছিল একটা এক্সিডেন্ট। কিন্তু একটা ভালো দল কখনোই দুর্ঘটনার কাছে মাথা নোয়ায় না। বিশ্ব দেখেছে, আমরাও পারি গর্জে উঠতে।’

২৭৩ পঠিত ... ১৬:৫০, জুন ১৭, ২০১৯

Top