শ্রীলংকার বিপক্ষে শুধু ৩ জন খেলোয়াড় নিয়ে মাঠে নামবে বাংলাদেশ

২৮২ পঠিত ... ২২:০০, জুন ১০, ২০১৯

বিশ্বকাপে নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে শ্রীলংকার বিপক্ষে ৩ সদস্যের দল নিয়ে নামছে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপের প্রথম তিন ম্যাচে বাংলাদেশের পারফরম্যান্সের উপর ভিত্তি করে ‘বাংলাদেশি ফেসবুকার্স ক্রিকেট অ্যানালিটিকস’ বা বিএফসিএ-এর দেয়া রিপোর্ট অনুযায়ী শ্রীলংকার বিপক্ষে মাত্র ৩ জন ক্রিকেটার নিয়ে খেলতে নামছে টাইগাররা। আজ এক সঙবাদ সম্মেলনে এই খবর নিশ্চিত করা হয়।

১১ জুন ব্রিস্টলের কান্ট্রি গার্ডেনে চতুর্থ ম্যাচ খেলতে নামছে বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে জিতে গেলেও পরের দুই ম্যাচে দলটি নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ডের সাথে হেরে যায়। আর এই তিন ম্যাচে ক্রিকেটারদের পারফরম্যান্সের উপর ভিত্তি করেই বিএফসিএ নামে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে আসা সংগঠনটি রিপোর্ট প্রকাশ করেছে। এই রিপোর্টে সাকিব, সৌম্য এবং মিরাজ ছাড়া বাকি ৮ ক্রিকেটারই ‘ফেসবুক ইউনিট অফ ক্রিকেটিং কোয়ালিটি’ বা এফইউসিকিউ-তে উন্নীত হতে পারেননি। তাই এই ম্যাচে বাংলাদেশ স্কোয়াডের এই আমূল পরিবর্তন আনা হয়েছে বলে জানা গেছে।

এমন খবরে কৌতূহলী eআরকি যোগাযোগ করেছিল ফেসবুকভিত্তিক সংগঠনটির সাথে। দীর্ঘদিন ধরে ফেসবুকে কার্যক্রম চালিয়ে গেলেও এই প্রথম তাদের চাপের মুখে এতো বড় পরিবর্তন আনতে বাধ্য হয়েছে বাংলাদেশ দল। আটজনকে বাদ দেওয়ার কারণ জানতে চাইলে সংস্থাটির মুখপাত্র বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরেই বাংলাদেশ খেলা নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে ফেসবুক থেকে। আমাদের ব্যানারেই সর্বোচ্চ সংখ্যক ফেসবুকার অনলাইন যুদ্ধ করে যাচ্ছেন। গত তিনটি ম্যাচ নিবিড় পর্যবেক্ষণ করেছি আমরা। আমরা দেখেছি তামিম, মুশফিক, সাইফুদ্দীন, মুস্তাফিজ এমনকি মাশরাফিকেও দলে নেওয়ার কোন সুযোগ নাই।’ এমন মন্তব্যে হতভম্ব হয়ে পড়া eআরকি প্রতিনিধি জানতে চান তামিম, মুশফিক বা মাশরাফিকে দলে না নেওয়ার কারণ।

প্রায় সাড়ে আঠারো লাখ সদস্যের এই সংগঠনের গবেষণায় বেরিয়ে আসা রিপোর্টের সারমর্ম পড়ে শোনান এই মুখপাত্র। তামিমের ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘অনেক আগে আমরা বলেছিলাম, চাচার জোরে তামিম দলে জায়গা পায়! তারপর সে কিছুদিন ভালো খেলেছে বলে আমরা চুপ ছিলাম। কিন্তু তিন ম্যাচেও সে তেমন রান করতে পারেনি। আমরা অনেক বেশি সুযোগ দিয়ে ফেলেছি। আর না! তামিমের দলে থাকার কোন প্রশ্ন নেই।’

অন্যদিকে মুশফিকের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘মুশফিক ব্যাটিংটা ভালোই করে। কিন্তু এইভাবে কিপিং করলে তো হবেও না। আমিও পাড়ার ক্রিকেটে দীর্ঘদিন কিপার ছিলাম। আমি জানি কিপিং কীভাবে করতে হয়! শুধুমাত্র মুশফিকের জন্যই আমরা নিউজিল্যান্ডের সাথে হেরেছি। সুতরাং তাকেও দলে রাখা যাবে না।’

বাংলাদেশের অন্যতম সেরা বোলার মুস্তাফিজকে কেন দলে নেওয়া হবে না, তার উত্তরে সংস্থাটির অন্য এক সদস্য বলেন, ‘দেখেন ভাই, এইভাবে বল হয় না! মুস্তাফিজের কাটারটা আর কাটে না। তার উপর দেখবেন, ওর বাউন্সারও হচ্ছে না। হাফভলি বেশি দিয়ে দেয়! আইপিএলে খেলেই আসলে ওর খেলা নষ্ট হয়ে গেছে। নিশ্চয়ই ইন্ডিয়ানরা হায়দ্রাবাদের কোনো চিপাচুপায় নিয়ে ও যে কাটারটা দিয়ে বল করতো সেটা মেরে দিয়েছে।

কিন্তু ক্যাপ্টেন মাশরাফির ব্যাপারে কেন আপত্তি তুলছেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘ক্যাপ্টেনের বোলিংয়ে এখন লাইন লেনথ ঠিক নেই। আর ক্যাপ্টেন্সিটাও কেমন যেন হয়ে গেছে। আমরা তার কাছে প্রস্তাব করেছিলাম, আমাদের কথামত বোলিং দিতে। অথচ সে পাত্তাই দিল না! এইভাবে চলে না। দুইটা ম্যাচ দেখে ফেলছি। আর পারব না।’

রিয়াদ, সাইফুদ্দিন? তাদেরকেও কেন দলে রাখতে চাচ্ছেন না, তা জানতে চাইলে এক ফেসবুক ক্রিকেটবোদ্ধা জানালেন, ‘রিয়াদের ঠেকায়ে খেলার জন্যই তো আমরা হারলাম। নাইলে চ্যালচ্যালাইয়া আমরা চারশ করতাম। আর সাইফুদ্দিনের চুলের কাটিং আমার পছন্দ না।’

কিন্তু মোসাদ্দেক? এই প্রশ্ন শুনে পাশ থেকে আরেকজন ফেসবুক-এক্সপার্ট বললেন, ‘মোসাদ্দেক ছিল নাকি? খেয়াল করি নাই তো… যাই হোক, এদের কাউকে দলে রাখা যাবে না! দরকার হলে তিনজন নিয়েই মাঠে নামতে হবে।’

সবশেষে মিঠুনকে কেন দলে রাখতে চান না তা জিজ্ঞেস করা হলে একজন বিশেষজ্ঞ আমাদের তেড়ে মারতে আসেন।

২৮২ পঠিত ... ২২:০০, জুন ১০, ২০১৯

Top