ঢাকা থেকে কুমিল্লা মাত্র দেড় ঘন্টায় পৌঁছে গেলে, কুমিল্লার টয়লেটগুলোর কী হবে?

৪০৮৪ পঠিত ... ২২:২০, মে ২৬, ২০১৯

দ্বিতীয় মেঘনা ও দ্বিতীয় গোমতী সেতুর কাজ শেষ হয়ে যাওয়ায় এখন ঢাকা থেকে কুমিল্লা যাওয়া যাবে দেড় থেকে দুই ঘন্টা সময়েই। খবর: প্রথম আলো। একইসাথে স্বাভাবিকভাবেই কুমিল্লার দক্ষিণের জেলাগুলোতেও যাত্রার সময় কমে আসবে।

বাংলাদেশের ব্যস্ততম মহাসড়কগুলোর একটি হচ্ছে ঢাকা-চট্টগ্রাম হাইওয়ে। ঢাকা থেকে কুমিল্লা, চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, কক্সবাজার, পার্বত্য চট্টগ্রাম ইত্যাদি জেলায় প্রতিদিন হাজার হাজার যানবাহনের যাতায়াত হয় এই মহাসড়ক ধরেই। আর এই মহাসড়কে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে কুমিল্লা। হাইওয়ের মাঝখানের জেলা হওয়ায় সাধারণত এখানেই থেকে যাত্রীরা দীর্ঘক্ষণ অবজ্ঞা করা প্রাকৃতিক ডাকে সাড়া দিয়ে থাকেন। কিন্তু সামনের দিনগুলোয় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যাতায়াত করতে এতো কম সময় লাগলে কুমিল্লার টয়লেটগুলোর কী হবে?

সড়কপথের বেহাল দশার দরুণ ঢাকা-চট্টগ্রাম হাইওয়ে অনেকদিন ধরেই ছিল এক অনন্তকালের যাত্রা। এই অনন্তকালের যাত্রায় কুমিল্লা বরাবরই যাত্রীদের সাহায্য করে ভারমুক্ত হতে। জেলার আনাচে কানাচে ছড়িয়ে থাকা অগণিত আদি ও অকৃত্রিম মাতৃভাণ্ডারের মতোই কুমিল্লা তাই ‘বিখ্যাত’ হয়ে আছে যাত্রাবিরতির জন্যেও। এই নিয়ে অনেক আগে এক মনীষী বলেছিলেন, ‘কুমিল্লা! সে তো এক ভরসার নাম!’ কিন্তু এখন যাত্রাবিরতির ভারমুক্তি কেন্দ্রগুলোর কী হবে, তাই নিয়ে দুর্ভাবনায় পড়েছেন অনেকে। ঢাকা-চট্টগ্রামের এক নিয়মিত যাত্রী বলেন, ‘সেই ছোটবেলা থেকে আমার জীবনের সবচেয়ে স্বস্তিদায়ক সময়ের সাক্ষী ছিল এই কুমিল্লা। এখন তো কিছু বোঝার আগেই কুমিল্লা ছাড়িয়ে চলে যাব… আমি মিস করব বাথরুমগুলারে।’ এ পর্যায়ে তিনি কান্নায় ভেঙে পড়েন।

প্রায়ই কক্সবাজার, বান্দরবানে ঘুরতে যাওয়া এক পর্যটক আমাদের বলেন, ‘সাধারণত কাচপুর ব্রিজ পার হইতে হইতে চাপ অনুভব করি। এরপর মেঘনা আসতে আসতে চাপ অন্য পর্যায়ে চলে যায়। তারপরই আসে কুমিল্লা! ব্যস, নিমিষেই সব চাপ গায়েব। এইটা একটা রুটিন হয়ে গেছিল… এখন আমি এইটা মিস করব খুব।’ এমন করে স্মৃতিকাতর অনেকেই। কেউ কেউ বলছেন এসব স্মৃতিবিজরিত ভারমুক্তি কেন্দ্রগুলোর সম্মানে সব যানবাহন কিছুক্ষণের জন্য হলেও কুমিল্লায় থামানোর। আবার কেউ বলছেন, এগুলোকে ভ্রাম্যমাণ করে পুরো কুমিল্লার উত্তর থেকে দক্ষিণে ছড়িয়ে দেওয়া। আবার কেউ কেউ তো বলছেন কুমিল্লার দক্ষিণের জেলা ফেনীতে এসব টয়লেটকে স্থানান্তর করার।

তবে কুমিল্লাবাসীরা অবশ্য একেবারেই মিস করবেন না ঢাকা-চট্টগ্রাম যাত্রার ফাঁকে একটু হালকা হতে কুমিল্লায় নামা যাত্রীদের। একজন কুমিল্লাবাসী উত্তেজিত হয়ে জানান, 'আইস আবার আমগো এলাকায়...'

৪০৮৪ পঠিত ... ২২:২০, মে ২৬, ২০১৯

Top