গণতন্ত্রের আদি জনক কি তবে স্যামওয়েল টার্লি?

১১৬ পঠিত ... ১৩:১৬, মে ২১, ২০১৯

গণতন্ত্রের জনক কে? এই প্রশ্নের নানান উত্তর পাওয়া যায়। প্রাচীন যুগে সোলেন, ক্লিসথেনিস, সক্রেটিস, প্লেটো, অ্যারিস্টটল থেকে শুরু করে মধ্যযুগের জন লক; গণতন্ত্রের শুরু এবং পথচলায় এই মনিষীদের নামই উঠে আসে গণতন্ত্রের জনক হিসেবে। তবে সম্প্রতি পাওয়া গেছে এক অজানা তাক লাগানো তথ্য। গণতন্ত্রের অবিসংবাদিত জনক হিসেবে জানা গেছে ওয়েস্টেরস নিবাসী স্যামওয়েল টার্লির নাম।

অধিকাংশের মতে প্রায় আড়াই হাজার বছর আগে প্রাচীন গ্রীসের এথেন্সে গণতন্ত্রের ধারণা দেন আইনপ্রণেতা ও কবি সোলন। তারও শতবর্ষ পর ক্লিসথেনিস এবং পেরিকলস গণতন্ত্রের ধারণাকে আরেকটু পূর্ণতা দেন। তারপর সক্রেটিস, প্লেটো আর অ্যারিস্টটলের হাত ধরে গণতন্ত্র আরও পরিণত রূপ পায়। অবশেষে মধ্যযুগে ইংলিশ দার্শনিক জন লকের হাত ধরেই আধুনিক গণতন্ত্রের সূচনা। এমনটাই এতদিন ভেবে আসছিলেন রাষ্ট্রবিজ্ঞানীরা। তবে আজ তাদের সুপ্রাচীন ধারণার মূলে আঘাত হেনেছে এক নতুন মনীষী নাম। তিনি আর কেউ নন, ওয়েস্টেরসের এক মাঝারি শক্তির পরিবার টার্লি হাউজের স্যামওয়েল টার্লি।


হাজার বছরের রাজতন্ত্র ও পরিবার প্রথার অবসান ঘটিয়ে তিনিই ওয়েস্টেরসে নিয়ে আসেন গণতন্ত্র। দীর্ঘ গ্রীষ্মের শেষে যখন সেই ভয়ংকর কালো রাত ও শীতকাল নেমে আসে, সাথে আসে উত্তর থেকে মৃত হাঁটুরের দল, তখন সেভেন কিংডমে চলছে সিংহাসন নিয়ে এক নির্মম খেলা। অনেক চড়াই উৎরাই পেরিয়ে যখন ম্যাড কিংয়ের সুযোগ্য কন্যা ড্যানেরিস টারগারিয়ানের মসনদে বসা প্রায় নিশ্চিত, তখনই তিনি কোন এক অজানা কারণে ঘন্টা শুনে পাগল হয়ে পড়েন। এবং পুড়িয়ে দেন রাজধানী কিংস ল্যান্ডিং। উদ্ভূত পরিস্থিতি সামাল দিতে, তারই প্রেমিক (ভাতিজাও!) জন স্নো নামে বহুল পরিচিত এগন টারগারিয়ানের হাতে খুন হন তিনি।

এরপরই সেভেন কিংডম জুড়ে নেমে আসে এক অসীম শূন্যতা। কে হবেন এর পরবর্তী শাসক? তখন ওয়েস্টেরসের বিভিন্ন হাউজের জীবিত লর্ড এবং লেডিদের উপস্থিতিতে আয়োজিত হয় এক গুরুত্বপূর্ণ মত বিনিময় সভা। সেখানে পরবর্তী শাসক হওয়ার জন্য কেউ কেউ নিজের নাম প্রস্তাব করতে থাকলে এক পর্যায়ে সিটাডেলের কৃতি ছাত্র স্যামওয়েল টার্লি বলেন এক অভূতপূর্ব কথা। তিনি জানান, জনগণের শাসক কে হবে, তা জনগণেরই নির্বাচন করা উচিত। এই কথা বলে তাকে প্রাচীন সব জ্ঞানীর মতোই মৌখিক আক্রমণ ও আক্রমণাত্মক রসিকতার শিকার হতে হয়। তারপর টিরিয়ন ল্যানিস্টারের হস্তক্ষেপে কোন পূর্বসূত্রিতা ছাড়াই উপস্থিত সকলের সম্মতিতে রাজা নির্বাচিত হন আধ্যাত্মিক ক্ষমতাসম্পন্ন ব্র্যান দ্য ব্রোকেন।

তবে এরপর কে হবেন শাসক? এই প্রশ্নের সমাধান হিসেবে স্যামওয়েল টার্লির প্রস্তাবকেই একরকম গ্রহণ করে ভোটাধিকার শুধুমাত্র ওয়েস্টেরসের লর্ড ও লেডিদের হাতে রাখা হয়। যদিও তিনি প্রথমেই পূর্ণ গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে পারেননি, তবুও স্যামওয়েল টার্লির হাত ধরেই সুপ্রাচীন কালে সর্বপ্রথম গণতান্ত্রিক চর্চা হয়েছে বলে একবাক্যে স্বীকার করে নিয়েছেন রাষ্ট্রবিজ্ঞানীরা। পরবর্তীতে সিক্স কিংডমের গ্র্যান্ড ম্যাস্টার হওয়া এই ব্যক্তির কাছে আজকের পৃথিবীর মানুষের কৃতজ্ঞ থাকতেই পারে।

 

১১৬ পঠিত ... ১৩:১৬, মে ২১, ২০১৯

Top