গোথাম শহরের নতুন নাইটগার্ডের চাকরি পেলেন রবার্ট প্যাটিনসন

১৩৩ পঠিত ... ২০:৪৮, মে ১৮, ২০১৯

ডিসি কমিক্সের সবচেয়ে জনপ্রিয় চরিত্রগুলোর একটি হচ্ছে ব্যাটম্যান। ক্রিস্টোফার নোলানের সৌজন্যে যা এখন সবাই ‘দ্য ডার্ক নাইট’ অর্থাৎ আঁধারের বীরযোদ্ধা নামে পরিচিত। কেউ কেউ আবার তাকে গোথামের নাইটগার্ড হিসেবে আড়ালে আবডালে ডেকে থাকেন। কালে কালে বহু রথী মহারথী এই চরিত্রে এই অভিনয় করেছেন। কেউ আগেই বিখ্যাত ছিলেন, কেউবা বিখ্যাত হয়েছেন অভিনয়ের পরে। একজন আবার হাসির পাত্রও হয়েছেন। অতি সম্প্রতি এই চরিত্রে অভিনয় করতে ডাক পেয়েছেন জনসন বেবি পাউডারের জনপ্রিয় মডেল, শত রমণীর ঘুম কেড়ে নেওয়া টোয়াইলাইট খ্যাত তারকা রবার্ট প্যাটিনসন।

 

গোথাম শহরের নাইটগার্ডের চাকরি পেয়ে কেমন লাগছে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি খসখসে গলায় আমাদের জানান, ‘অনেকদিন ধরেই একটা ভাল চাকরি খুঁজছিলাম। সিভি নিয়ে ঘুরতে ঘুরতে আমার জুতোর তলাটাই ক্ষয়ে গেছে। আজ আমি খুব আনন্দিত। অফিস থেকে ওরা জানিয়েছে আমাকে নতুন একজোড়া কালো বুট জুতোও দেয়া হবে। এই সংবাদটা আমার খুশি আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। তাছাড়া বেলার সাথে আমার বিয়েটাও ওর পরিবার মেনে নিচ্ছিলো না। ভ্যাম্পায়ার বলে বারবার তারা আমাকে ফিরিয়ে দিয়েছে। এখন আশা করি তারা আর কোন দ্বিমত করবেন না।’ কিন্তু বেলার পরিবারের সাথে যোগাযোগ করা হলেও তারা কোন মন্তব্য জানাননি।

এ প্রসঙ্গে এককালে ব্যাটম্যানের প্রেমিকা চরিত্রে অভিনয় করা ততকালীন ভুবন ভুলানো সুন্দরী, কথায় কথায় ‘জাস্ট কিডিং ম্যান’ করতে পটু নিকোল কিডম্যান eআরকি ডেস্ককে ফোনে জানান যে তার সময়ে তিনিই ছিলেন ফেয়ার এন্ড লাভলির সেরা মডেল। নিজের উত্তরসূরিকে ব্যাটম্যান চরিত্রে অভিনয় করতে দেখে তিনি আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন। তিনি আরও জানান, ‘বয়সটা আরেকটু কম হলেই আজ আমি রবার্টের সাথে অভিনয় করতে পারতাম। আমাদের সিনেমার পর্দায় দেখে সবার চোখ উজ্জ্বল আলোয় ঝলসে যেত। জাস্ট কিডিং ম্যান!’

গোথাম শহরের এক সময়কার নাইটগার্ড ক্রিস্টিয়ান বেল তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘আমি জানতাম এই ছেলে একদিন অনেক বড় হবে। ঠিক আমারই মতন লম্বা আর ছিপছিপে। আমি নিজে ওকে কোচ করবো যাতে ও প্রতিটা ডায়লগ আমার চেয়েও ভাল আর খসখসে গলায় বলতে পারে।’

তবে গোথাম সিটির কিছু বাসিন্দা এই সংবাদে তাদের হতাশা ঢেকে রাখতে পারেননি। তাদের মতে এই ভ্যাম্পায়ারকে গোথামের নতুন নাইটগার্ড করা বোকামি হয়েছে। রাতের বেলা চোর ধরতে বেরুলে এই ভুতের মতন সাদা ছেলেটিই বরং চোরের কাছে ধরা পড়ে যাবে। তারা অবিলম্বে এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে আরও কম সাদা ব্যক্তিকে নাইটগার্ডে পদে বহাল করার দাবি জানান। অন্যথায় ফেসবুকে ঈদের পরে আন্দোলনের ডাক দিয়েছেন গোথাম সিটির নাগরিকেরা।

তবে অনেকেই শঙ্কিত। তাদের ভয়, রাতের বেলা পাহারা দিতে বের হয়ে যদি তার পুরনো ভ্যাম্পায়ার স্বভাব জেগে উঠে তখন নতুন সংকট সৃষ্টি হবে। তখন যদি তিনি সাধারণ মানুষের রক্ত খাওয়া শুরু করেন, তখন তার দাঁত থেকে গোথামকে বাঁচাতে আরেক ব্যাটম্যান প্রয়োজন হবে।

 

১৩৩ পঠিত ... ২০:৪৮, মে ১৮, ২০১৯

Top