ফুটবল ছেড়ে এখন ফ্ল্যাটে বালিশ তোলার কাজ করছেন ওয়েইন রুনি

৫৯৩ পঠিত ... ২২:১৮, মে ১৭, ২০১৯

রূপপুর পারমাণবিক কেন্দ্রের কর্মকরতা-কর্মচারীদের জন্য নির্মিত আবাসিক ভবনের আসবাবপত্র কেনা এবং ফ্ল্যাটে তোলার রেট ইন্টারনেটে ছড়িয়ে যাওয়ার পর বিসিএস ছেড়ে বাংলার তরুণরা ইতোমধ্যেই ঝুঁকেছেন আসবাবপত্র ফ্ল্যাটে তোলার পেশার দিকে। অন্যান্য বিসিএসের প্রস্তুতি ছেড়ে অনেকেই এখন খুঁজছেন ফ্ল্যাটে বালিশ তোলার কাজ। এরই মধ্যে ইন্টারনেটে খুঁজে পাওয়া এক ছবি থেকে জানা গেলো দুর্দান্ত এক তথ্য। ফুটবল ছেড়ে এবার বালিশ তোলার কাজ শুরু করেছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাবেক ফরোয়ার্ড ওয়েইন রুনি।

ছবিতে পরিষ্কার দেখতে পাওয়া যাচ্ছে, একটা বালিশ বগলদাবা করে কোথায় যেন চলেছেন তিনি। ফুটবলেও অনেকদিন ধরেই নেই আগের মতো নামযশ। তবে কি পেশা হিসেবে সত্যিই বেছেন নিয়েছেন বালিশ তোলার কাজ? জানতে আমাদের প্রতিবেদক দ্রুত যোগাযোগ করেন রুনির সঙ্গে।

প্রথম তিনবার ফোন না ধরলেও চতুর্থবার ফোন ধরেই তিনি বলেন, 'ওহ, সরি। দুই হাতে দুইটা করে চারটা বালিশ নিয়ে উঠছিলাম তো, ফোন ধরতে পারিনি।'

তাহলে কি যা রটেছে তাই ঘটেছে? জানতে চাওয়া মাত্র রুনির উত্তর, 'দেখুন, ফুটবলে আমার ক্যারিয়ারের কী অবস্থা তা তো আপনারা জানেন। অভাবে পড়ে আমেরিকায় আসলাম, তাও তো কিছু হলো না। ব্রিটিশ মিডিয়াও এখন আর আমাকে নিয়ে বাড়িয়ে-চড়িয়ে লেখে না। ধারাভাষ্যকার কিংবা টিভিতে ফিটবল বিশ্লেষকের চাকরি করবো কিছু বছর ধরে এমনটাই ভাবছিলাম। ঠিক তখনই ওই ফার্নিচার কেনা-তোলার খরচের চার্টটা চোখে পড়লো।'

বাংলাদেশে আসবাবপত্র ফ্ল্যাটে তোলার এত রেট তা আগে জানলে কখনোই ফুটবলার হতাম না, এমনটা জানিয়ে তিনি বলেন, 'আপনাদের দেশে ফার্নিচার তুলে যত টাকা আয় করা যায়, সারাজীবন মাঠের এদিক থেকে ওদিকে দৌড়েও এত টাকা পাইনি। গোলও পাই না, টাকাও পাই না, হুদাই কেন মাঠে দৌড়াবো বলেন? যদি দৌড়াতেই হয়, দুই হাতে দুইটা করে বালিশ নিয়েই দৌড়াবো!'

এই পর্যায়ে তিনি 'কী ভাই, ঠিক না বেঠিক' স্টাইলে 'ইজন্ট ইট?' প্রশ্ন করলে আমাদের প্রতিবেদক তার যে অন্তত ফুটবল খেলা উচিত না সে ব্যাপারে সহমত প্রকাশ করেন।

আরও কিছু প্রশ্ন করার আগেই রুনি জানালেন, 'ভাই এখন রাখি, এইবার চারটা বালিশের সাথে পাঁচটা ইস্ত্রি নিয়ে উঠবো। ইস্ত্রিতে তার আছে তো, চার পাঁচটা একবারে গলায় ঝুলিয়ে ফেলা যায়।'

৫৯৩ পঠিত ... ২২:১৮, মে ১৭, ২০১৯

Top