ডায়াবেটিস প্রতিরোধে এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো বাংলাদেশ

১১৫ পঠিত ... ২০:১৮, মে ১৬, ২০১৯

অগ্রণী ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ৫০০ কোটি টাকার চিনি আমদানি করেছিল চিনি ও খাদ্য শিল্প করপোরেশন (বিএসএফআইসি)। প্রায় দুই বছর ধরে সে চিনি গুদামে পড়ে আছে। এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে সরকারি প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি। কার স্বার্থে, কেন এই চিনি কেনা হয়েছে, সে প্রশ্ন তুলেছে সংসদীয় কমিটি। খবর: প্রথম আলো

আমাদেরও ছিল এই একই প্রশ্ন, ঠিক কেন গুদামজাত করা হয়েছে ৫০০ কোটি টাকার চিনি? পিঁপড়াদের যেন শীতের খাদ্য সঞ্চয় করতে কষ্ট না হয়, সেজন্যই কি কোনো এনজিওর সহযোগিতায় এই চিনি গুদামজাতকরণ? নাকি এই বিপুল পরিমাণ চিনি দিয়ে তৈরি করা হবে কোনো দানবীয় সাইজের মিষ্টি? প্রশ্নের উত্তর অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে চাঞ্চল্যকর এক তথ্য। মূলত ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করার জন্যই নাকি পৃথিবীর সব চিনি গুদামে বন্দি করা হচ্ছে!

ঐ চিনির গুদামের নিরাপত্তাকর্মী আমাদের জানান, 'ভাই চিনি, চিনি যে কী জিনিস আমি হাড়ে হাড়ে চিনি। এই চিনির জন্যই ডায়াবেটিসে সারাটা জীবন কষ্ট করছে আমার বাবা, তার বাবা, তার বাবা। চিনিগুলারে এমনে যাবজ্জীবন গুদামে বন্দি কইরাই শাস্তি দেয়া উচিত।'

তাহলে ডায়াবেটিস প্রতিরোধেই কি তাহলে গুদামে চিনি আটকে রাখা হয়েছে, এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি টু দ্য পয়েন্ট কিছু না জানিয়ে বিট এবাউট দ্য বুশ করে বলেন, 'চিনি খাওয়া খুব খারাপ রে ভাই খুব খারাপ। চিনি মার্কেটে থাকলে মানুষ চিনি খাইবই। চিনি খায়া ব্লাড সুগার বাড়াইব, অসুস্থ হইব। এইজন্যই আমরা কাউরে চিনি খাইতে না দেয়ার সিদ্ধান্ত নিছি।'

এ পর্যায়ে আমাদের প্রতিবেদক তাদের সৎ উদ্দেশ্যের ব্যাপারে ইমপ্রেসড হয়ে প্রশংসা করে 'ভেরি সুইট' বললে ভদ্রলোক উত্তেজিত হয়ে যান। 

কিন্তু এভাবে গুদামজাত করে কি পৃথিবীর সব চিনি আটকে রাখা সম্ভব? যে চিনি খাবে সে তো যেকোনোভাবে খাবেই, এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি আরও উত্তেজিত হয়ে যান। বলেন, 'আরে মিয়া গুটি-গাঞ্জা এইগুলাও তো যতই নষ্ট করেন, আটকায়া রাখেন, ক্রসফায়ার করেন, মানুষ খাইবই। তাই বইলা কি সেইগুলা আপনেরা মার্কেটে ছাইড়া দিবেন? আমরাও চিনি ছাড়মু না। তামাম দুনিয়ার সব চিনি এইখানে স্টক করমু।'

এ পর্যায়ে তিনি মেজাজ ঠান্ডা করতে এক কাপ গরম চায়ের অর্ডার দিয়ে বলেন, 'ওই মমিন কড়াপাত্তি দিয়া এক কাপ চা দিস, দুধ-চিনি বাড়ায়া...'!

১১৫ পঠিত ... ২০:১৮, মে ১৬, ২০১৯

Top