বিশ্বব্যাপী তুমুল চাহিদা ফেরদৌসের, বেকার নায়কদের সামনে নবদিগন্ত উন্মোচন

১৩২৪৮ পঠিত ... ১৪:৪৫, এপ্রিল ১৭, ২০১৯

অল্প কিছুদিন আগে অনুষ্ঠিত হয়ে যাওয়া বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগের পক্ষে প্রচারণায় নেমেছিলেন চিত্রনায়ক ফেরদৌস। তারপর সম্প্রতি বাংলাদেশ থেকে ইন্ডিয়ায় গিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষে প্রচারণা করে সে দেশে নিষিদ্ধ হয়েছেন। এরপর থেকেই সারাবিশ্বে নির্বাচনী প্রচারক হিসাবে ফেরদৌসের তুমুল চাহিদা সৃষ্টি হয়েছে। ডোনাল্ড ট্রাম্পের পর এবার তাকে বাংলাদেশ থেকে আমদানি করতে চান উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উন। উত্তর কোরিয়ার আগামী নির্বাচন উপলক্ষে ফেরদৌসের কাছে এমন প্রস্তাবই দিয়েছেন দেশটির ক্ষমতাসীন দলের একাধিক শীর্ষ নেতা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কিম জং উনের কাছের একজন eআরকিকে জানান, 'আমাদের দেশে বাংলাদেশের মতোই তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচন হয়। সেজন্যই আমরা আশা করছি নায়ক ফেরদৌস আমাদের এখানে প্রচারণা চালাতে আসলে বেশ সফলতা অর্জন করবেন।'

আর শুধু আমেরিকা বা উত্তর কোরিয়া নয়, বিশ্বের বেশ কিছু দেশ থেকেই ফেরদৌসের কাছে আসছে প্রচারণার অফার। তার মধ্যে উগান্ডা, বুরুন্ডি, ইথিওপিয়া, হাঙ্গেরি, মায়ানমার অন্যতম।

এ বিষয়ে ফেরদৌসের কাছে জানতে চাইলে তার একটি ফেক আইডি থেকে খবরের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, 'হ্যাঁ বেশ কিছু অফার পেয়েছি। আপাতত অভিনয়ের চাপ কম বিধায় ভাবছি প্রচারণার কাজ করে বাড়তি কিছু আয় হলে মন্দ হবে না। আমি যতটা না অভিনেতা তার চাইতে বেশি শ্রমিক মানুষ, শ্রম দিয়ে খাই।'

এসময় তিনি কোনো পেশাই ছোট নয় বলে আমাদের প্রতিনিধিকে জানান।

ফেরদৌস ছাড়াও রিয়াজ, জায়েদ খান, মৌসুমি, ওমর সানী, শাহারিয়ার নাজিম জয়সহ বাংলাদেশের একাধিক তারকা এই পেশায় নিজেদের ক্যারিয়ার গড়তে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। চিত্রনায়ক রিয়াজ একটি ফেক আইডি থেকে আমাদেরকে বলেন, 'ফেরদৌস ভাইয়ের সাথে বাংলাদেশের প্রচারণায় আমিও সাথে ছিলাম। ভাই বাংলাদেশের চাহিদা মিটিয়ে ভারতসহ অন্যন্য দেশে রপ্তানি হচ্ছেন এটা আমাদের জন্য অবশ্যই গর্বের। আমারও ইচ্ছা আছে এই কাজটাকে পেশা হিসাবে নেয়ার। বিদেশ থেকে ভালো কোনো অফার আসলে অবশ্যই ভেবে দেখব।'

শাহারিয়ার নাজিম জয় একটি ফেক আইডি থেকে জানান, 'প্রচারণার কাজে পৃথিবীর যেকোনো দেশে যেতে রাজি আছি৷ শুধু পারিশ্রমিক হিসাবে সেই দেশে পাঁচ কাঠা জমি পেলেই আমি খুশি।'

বিভিন্ন দেশে গিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর এই পেশাকে 'ফেরদৌসিং' নামে নামকরণ করেছেন জব এক্সপার্টগন। তাদের দাবী, যিনি এই পেশাটির সূচণা করেছেন তার নামেই এটাকে নামকরণ করা ভালো মানায়। ভবিষ্যতে সারা বিশ্বের বেকার হয়ে যাওয়া নায়ক নায়িকাদের মধ্যে ফেরদৌসিং করা পেশা হিসাবে বেশ প্রসার লাভ করবে বলেও জানান এক্সপার্টগন।

ফেক আইডির ফেরদৌস আমাদের প্রতিনিধিকে আরও জানান, নেক্সট প্ল্যান হলো উত্তর কোরিয়ার নির্বাচন। সেখানে প্রচারণা চালানো যেমন সুবিধা তেমন ঝামেলাও আছে অনেক। কিম জং উন ছাড়া আর কোনো অপজিশন প্রার্থী নির্বাচনে না দাড়ানোর কারনে প্রচারণার সময় কার বিরুদ্ধে ভোট চাওয়া হবে এটা নিয়ে কনফিউশান সৃষ্টি হয়। তাছাড়া দেশের যাবতীয় দূর্নীতি, অপরাধ বা বিভিন্ন দূর্ঘটনায় বাংলাদেশের মত সূত্র মেনে বিরোধী দলের দোষ দেয়ার কোনো সিস্টেমও সেখানে প্রয়োগ করা যায় না কোনো বিরোধী দল না থাকায়। ফেরদৌস বলেন, 'আমি কিম জং উনকে বলব প্রচারণার ঝামেলা কমাতে বাংলাদেশের বিএনপির মত একটা নন্দঘোষ মডেলের বিরোধী দল তৈরি করতে। আশা করি উত্তর কোরিয়ার সরকারকে নির্বাচনের অনেক ধরনের প্রচারণা শিখিয়ে আসতে পারব।'

তবে ফেরদৌস এতো দেশের নির্বাচনে কাজ করার চাপ সামলাতে পারবে কিনা, সেটা তো সময়ই বলে দেবে।

আরও পড়ুন-

১৩২৪৮ পঠিত ... ১৪:৪৫, এপ্রিল ১৭, ২০১৯

Top