সারাদেশে গেম অফ থ্রোনসের পাইরেটেড কপিসহ আটক সহস্রাধিক, পেনড্রাইভ নিয়ে চলাচলে নিষেধাজ্ঞা

১০৭৮ পঠিত ... ২১:৪২, এপ্রিল ১৫, ২০১৯

সারাদেশে গেম অফ থ্রোনসের নতুন পর্বের পাইরেটেড কপিসহ প্রায় ৮ হাজার তরুণ-তরুণীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অবিশ্বস্ত সূত্রমতে পুলিশের কাছ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে অভিযান চালিয়ে প্রায় ৫ হাজার পেনড্রাইভসহ, মোবাইল, পোর্টেবল হার্ডডিস্ক, মেমরী কার্ড আটক করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এক চানখারপুল থানাতেই গ্রেফতার হয়েছেন অন্তত ছয়শজন। খবর পেয়ে যোগাযোগ করা হলে থানার ইন্সপেক্টর eআরকিকে বলেন ‘গতকাল রাতে আমরা গোপন সূত্রের ভিত্তিতে জানতে পারি পেনড্রাইভে গেম অফ থ্রোনসের নতুন এপিসোড আদান-প্রদান হবে এমন খবর। এই তথ্যের ভিত্তিতে আজ সকাল থেকেই বুয়েট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং ঢাকা মেডিকেল-সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের হলগুলোয় অভিযান চালায় পুলিশ। সেখান থেকেই তাদের অনেককে গ্রেফতার করা হয়।’ বিভিন্ন ছাত্রাবাস এবং বাসাবাড়িতে অভিযান চালিয়ে বেশ কয়েকশ কম্পিউটার-ল্যাপটপও জব্দ করা হয়েছে বলে তিনি জানান। 

এদিকে ৪টি পেনড্রাইভ, ৩টি মেমোরি কার্ড এবং ২টি পোর্টেবল হার্ডডিস্কসহ আটক নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী eআরকিকে বলেন, ‘আমি একলাই দেখতাম, কিন্তু প্রেজেন্টেশনে কিছু করতে হবে না, এই আশ্বাসে আমি বন্ধুদের জন্য গেম অফ থ্রোনস নিয়ে হল থেকে যাচ্ছিলাম ক্লাসরুমের দিকে। পথে আমাকে পুলিশ গ্রেফতার করে।’ অন্য এক শিক্ষার্থী নিজেকে জন স্নো দাবি করেন জানান যে, ‘আমি কিছু জানি না। আমি কখনো এইসব দেখি নাই। হলের বড় ভাই আমাকে পেনড্রাইভ দিয়ে বলছিল আমাদের ক্লাসের একটা মেয়ের কাছে পৌঁছাইয়া দিতে। হল থেকে বাইর হয়েই দেখি পুলিশ।’

এদিকে এসব থানার সামনে পেনড্রাইভ এবং মেমরো কার্ড ফেরত পেতে অপেক্ষা করে আছেন অগণিত মানুষ। যদিও গ্রেফতারের ভয়ে তারা সবাই নিজেদের পরিচয় দিচ্ছেন আগ্রহী জনতা হিসেবেই। অন্যদিকে গ্রেফতারকৃত এই বিপুল পরিমাণ তরুণ-তরুণীর জন্য থানাগুলোয় স্থান সংকুলান না হওয়ায় অধিকাংশকেই মুচলেকা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

তবে পুলিশ জানিয়েছে, একটি সংঘবদ্ধ চক্রের সাহায্যেই বাংলাদেশে এই পাইরেসির জোয়ার হয়েছে। এই চক্রের মূল হোতা এক বিদেশিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে একটি অনির্ভরযোগ্য সূত্র নিশ্চিত করেছে এই বিদেশির কাছেই প্রায় ১ হাজার পেনড্রাইভ ছিল। এই বিদেশি তরুণকে আটক না করলে ইতিমধ্যেই গেম অফ থ্রোনসের পাইরেটেড কপি ভাইরাসের মত দেশব্যাপী ছড়িয়ে পড়ত বলে অভিমত দিয়েছেন, একাধিক বিশিষ্ট সিরিয়ালখোর। উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে গেম অফ থ্রোনসের সপ্তম সিজনের পর্বগুলোর প্রায় ৯ কোটি পাইরেসি হয়েছিল বলে এইচবিও কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করেছে।

(eআরকি একটি স্যাটায়ার ওয়েবসাইট। এর খবর নিজ দায়িত্বে বিশ্বাস করবেন।)

১০৭৮ পঠিত ... ২১:৪২, এপ্রিল ১৫, ২০১৯

Top