ভারতীয় নির্বাচন কমিশনারকে 'লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড' শিখতে উগান্ডায় আমন্ত্রণ

৯৬৬ পঠিত ... ২২:৩৯, এপ্রিল ১১, ২০১৯

ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির জীবনী নিয়ে নির্মিত বায়োপিক 'মোদি' এর রিলিজ নির্ধারিত তারিখের মাত্র একদিন আগে আটকে দিয়েছে ভারতীয় নির্বাচন কমিশন। 'লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড' বজায় রাখার জন্য ভারতে অনুষ্ঠিতব্য জাতীয় নির্বাচনের আগ পর্যন্ত মুক্তি পাবে না মোদীর জীবন নিয়ে নির্মিত এই ছবি। উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টে ছবি মুক্তি রদের আবেদন খারিজ হয়েছিল। অতঃপর বুধবার ১০ এপ্রিল ভারতীয় সংবিধানের ৩২৪ নং ধারা অনুযায়ী অতিরিক্ত ক্ষমতা প্রয়োগে মোদীর বায়োপিকের মুক্তি বন্ধ করেছে নির্বাচন কমিশন।

এই ঘটনায় ভারতসহ সারা বিশ্বেই তোলপাড় শুরু হয়েছে। তবে আফ্রিকার ছোট্ট দেশ উগান্ডায় যেন সংবাদটা অন্যরকম এক আলোচনার বিষয়বস্তু হয়ে দাড়িয়েছে। ভারতীয় নির্বাচন কমিশনের বোকামি দেখে হাসাহাসি করছে গোটা উগান্ডার জনগণ। এমনকি দেশটির নির্বাচন কমিশন ভারতীয় প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে উগান্ডায় আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। আমন্ত্রণের চিঠিতে লেখা আছে, 'লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরির জন্য কোনো দেশের প্রধানমন্ত্রীর বায়োপিক সিনেমা বন্ধ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত আমাদের সকল নির্বাচন কমিশন কর্মকর্তা ও কর্মচারীর জন্য লজ্জাজনক। লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরির বহু উগান্ডা সার্টিফাইড পদ্ধতি আছে। আপনারা আমাদের দেশে আসুন ও পদ্ধতিগুলো শিখে যান।'

তিনি আরও লেখেন, 'ভারতীয় নির্বাচন কমিশনারকে বলছি, উগান্ডা এসে দেখুন। এখানে এইসব কোনো ঝামেলা নাই। কোন মুভি রিলিজ হলো, কে জেলে, কার কী মামলা এসব নিয়ে এখানে কোনো প্যারা নাই। নির্বাচন কমিশনের আরো অনেক দায়িত্ব আছে। সেগুলো ঠিকভাবে করলেই নির্বাচন অটোমেটিক সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হয়ে যাবে। আপনারা দয়া করে এসে নিয়মগুলো দেখুন ও শিখুন।'

মুক্তির অপেক্ষায় থাকা নরেন্দ্র মোদীর বায়োপিকের পোস্টার

কী সেই উগান্ডা সার্টিফাইড পদ্ধতি? এ বিষয়ে উগান্ডার প্রধান নির্বাচন কমিশনার আমাদেরকে জানান, 'প্রথমত লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরির অনেকগুলো সিস্টেম আছে। তার মধ্যে পড়ে, বিরোধী দলের প্রার্থীদের ওপর হামলা ও মামলা, ভোটের আগের রাতে ব্যালটবাক্স ভরে রাখার সিস্টেম, মৃত মানুষের ভোটের অধিকার নিশ্চিত করা, ইত্যাদি। আর নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়ার একটাই পদ্ধতি। সেটা হলো নির্বাচনের সারাদিন বাসায় শুয়ে শুয়ে আলু (উগান্ডার জাতীয় খাবার) খেতে খেতে টিভিতে ইউটিভি (উগান্ডা টেলিভিশন) চ্যানেল দেখা আর সন্ধ্যায় ফলাফল ঘোষণার পর বাসা থেকে বের হয়ে শুধু বলা, 'স্মরণকালের সবচাইতে সুষ্ঠু নির্বাচন হয়েছে এবার। এতো সুষ্ঠু নির্বাচন গত এক হাজার বছরেও দেখিনি।'

এই ধরনের পদ্ধতি কতটা কার্যকর এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, 'আস্তে আস্তে সারা বিশ্বেই এটা জনপ্রিয় হচ্ছে। কার্যকর না হলে তো আর হতো না। উত্তর কোরিয়া এই সিস্টেম ফলো করছে। অল্প কিছুদিন আগেও আমাদের দেশের উকসু নির্বাচনে এই পদ্ধতি ফলো করা হয়েছে। ফলাফলও আশাব্যঞ্জক। আশা করা যায় ইন্ডিয়ান নির্বাচন কমিশন আমাদের থেকে শিখে গেলে লাভ ছাড়া লস করবে না।'

এ বিষয়ে ইন্ডিয়ার প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, 'আমরা উগান্ডা গিয়ে ফিরে এসেছি এয়ারপোর্ট থেকেই। কারণ হিসেবে তিনি জানান, 'এয়ারপোর্টে আমাদের রিসিভ করার জন্য স্ট্রেচারের ব্যবস্থা ছিলো। কিন্তু আমরা হাটতে পারি দেখে তারা রেগে যায়। তারা বলে, আমরা জানি নির্বাচন কমিশনারদের মেরুদণ্ড থাকে না। আপনাদের আছে মানে আপনারা নকল নির্বাচন কমিশনার। এই বলে তারা চলে যায়। আমরা শেষমেষ আর পথ না পেয়ে দেশেই ফিরে এসেছি।'

৯৬৬ পঠিত ... ২২:৩৯, এপ্রিল ১১, ২০১৯

Top