কলেজের উচ্চতর গণিত বইয়ে নিউটনের নামে ছাপা হয়েছে আর্কিমিডিসের ছবি

৩৬৫০ পঠিত ... ২২:১৮, এপ্রিল ০৯, ২০১৯

পাঠ্যপুস্তকে এক বিজ্ঞানীর ছবির বদলে অন্য কারো ছবি দেওয়াটা বাংলাদেশে খুব একটা নতুন না। পদার্থবিজ্ঞান বইতে স্টিফেন হকিংয়ের ছবির বদলে তার জীবন নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্রে তারই চরিত্রে অভিনয় করা এডি রেডমেইনের ছবি নিয়ে কম আলোচনা হয়নি। সম্প্রতি পাঠ্যপুস্তকে এমন আরেকটি ভুলের সন্ধান পাওয়া গেছে। এবার ভুলের শিকার সর্বকালের অন্যতম সেরা গণিতবিদ ও পদার্থবিজ্ঞানী স্যার আইজাক নিউটন।

৯ এপ্রিল (মঙ্গলবার) আদ্রতা খান নামের এক কলেজ পড়ুয়া একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণির উচ্চতর গণিত প্রথম পত্র বই থেকে একটি পৃষ্ঠার ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেন। ছবিটিতে ডিফারেন্সিয়েশন অধ্যায়ের শুরুতে ক্যালকুলাসের জনক আইজাক নিউটনের কথা বলে একটি ছবি দেওয়া আছে, যিনি দেখতে একেবারেই নিউটনের মতো না। আইজাক নিউটনের বদলে এটি কার ছবি দেওয়া সে বিষয়ে কৌতুহলী হয়ে পড়ে eআরকি।

এ বিষয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডে যোগাযোগ করে eআরকি। অসীম কুমার সাহা, মোঃ নুরুল হক এবং বি. এম. ইকরামুল হক রচিত বইটির পঞ্চম সংস্করণের (মে, ২০১৮) একটি কপি নিয়ে eআরকি প্রতিনিধি চলে যায় শিক্ষা বোর্ডে। বোর্ডের এক কর্মকর্তাকে বইটি দেখানো মাত্রই তিনি চমকে ওঠেন। উত্তেজিত হয়ে তিনি বলেন, ‘এতো বড় ভুল হয় কী করে? নিউটনের বদলে ছবি দিয়ে রাখছে পিথাগোরাসের! আমরা অবশ্যই এ ব্যাপারে অ্যাকশন নিব।’ সেই মুহূর্তে এই কর্মকর্তার কক্ষে প্রবেশ করা অন্য এক কর্মকর্তা বইটি দেখে ভিন্নমত পোষণ করেন। তিনি বলেন, ‘এটি কখনোই পিথাগোরাসের ছবি হতে পারে না। এটি তো আর্কিমিডিসের ছবি। এমন ভুল কী করে মানুষ করে! খুবই দুঃখজনক ব্যাপার।’ কৌতুহল মেটাতে বইটির প্রকাশক অক্ষর-পত্র প্রকাশনীর সাথেও যোগাযোগের চেষ্টা করেও কোন সুবিধা করতে পারেনি eআরকি প্রতিনিধি। 

সব মিলিয়ে ছবির মানুষটির পরিচয় উদ্ধার করতে গিয়ে আরও দ্বিধায় পড়ে যায় eআরকি প্রতিনিধি। তাই কর্মকর্তাদের উপর ভরসা না করে, এবার যাওয়া হয় শিক্ষার্থীদের কাছে। শহরের বিভিন্ন কলেজ ঘুরে ঘুরে যেন দ্বিধার মেঘ আরও ঘন হয়ে ওঠে। ইউক্লিড থেকে শুরু করে আল খোয়ারিজমি, সকলের নামই শুনে ফেলেন eআরকির অসহায় প্রতিনিধি। বিষণ্ণতার চৌবাচ্চায় ডুবে থাকা এই প্রতিনিধি একলা বসে ফেসবুক স্ক্রল করতে করতে হুট করে একটি ছবিতে আটকে যান। বইতে নিউটনের বদলে যার ছবি, তাকেই দেখা যাচ্ছে ফেসবুকের একটি পোস্টে। ক্যাপশন দেখে যখনই নিশ্চিত হন ছবিটি পদার্থবিদ আলবার্ট আইনস্টাইনের। তখনই তিনি ‘ইউরেকা ইউরেকা’ বলে চিৎকার করতে করতে বিষণ্ণতার চৌবাচ্চা থেকে উঠে রাস্তায় দৌড়ানো শুরু করেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তিনি এখন গুলিস্তানের মোড়ে ট্রাফিক পুলিশের দায়িত্ব পালন করছেন!

৩৬৫০ পঠিত ... ২২:১৮, এপ্রিল ০৯, ২০১৯

Top