বাবুকে 'খাইছো' জিজ্ঞেস না করে নিজেই রুটি বানিয়ে খাওয়াচ্ছেন জাকারবার্গ

৮৩৬ পঠিত ... ২২:৩৭, এপ্রিল ০৮, ২০১৯

ফেসবুক আবিস্কারের পর থেকে আজ পর্যন্ত প্রেমিক প্রেমিকা, বর বউ, একজন আরেকজনকে ফেসবুকের মাধ্যমে সবচাইতে বেশি যে প্রশ্নটা করেছে সেটা হলো 'বাবু খাইছো?'

বাঙালি ফেবু ইউজারদের কাছে আজ আর 'বাবু খাইছো' কোনো সাধারণ প্রশ্ন নয়, এটা একটা ইমোশন, একটা মহাকাব্য, একটা ইতিহাস। অথচ এবার এই ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গই কিনা তার বাবুকে (স্ত্রী) খাইছো জিজ্ঞেস না করে নিজেই রুটি বানিয়ে খাওয়াচ্ছেন।

সম্প্রতি ভাইরাল হওয়া একটা ছবিতে আমরা এমনটাই দেখতে পাই। এই ফেসবুকেই ছেলেরা যেখানে নিয়মিত বাবু খাইছো জিজ্ঞেস করতে ব্যস্ত, সেখানে ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা নিজেই বাবুকে রুটি বানিয়ে খাওয়াচ্ছেন এই বিষয়টা নিয়ে তোলপাড় শুরু করেছে অনলাইনে। জাতীয় বাবু খাইছো ইউনিয়নের সভাপতি আমাদেরকে বলেন, 'মার্ক জাকারবার্গ ফেসবুকে বাবু খাইছো লিখে পোস্ট না দিয়ে এই ছবিটা পোস্ট দেয়ার মাধ্যমে তাবৎ বাবু প্রেমিদের বাবুভূতিতে আঘাত হেনেছে। সে তার বাবুকে রুটি বানিয়ে খাওয়াক, তাতে আমাদের কিছু যেত আসতো না, কিন্তু তার আগে অন্তত একবার 'বাবু খাইছো?' লিখে পোস্ট তো দিতে পারতো৷ অন্তত একবার তো 'বাবু তুমি না খেলে আমিও খাবো না' বলে মেসেজ দিতে পারতো। কিন্তু সে এটা করেনি। প্রতিবাদস্বরুপ আমরা আগামী পুরো এক সপ্তাহ ফেসবুকে বাবুকে খাইছো জিজ্ঞেস করা থেকে বিরত থাকবো। এই এক সপ্তায় সারা দেশে না খেয়ে যদি একটা বাবুও মারা যায় তাহলে তার দায় নিতে হবে জাকারবার্গের।'

আমরা বিস্তারিত জানার জন্য নিউইয়র্কে/ক্যালিফোর্নিয়ায় গিয়ে দেখা করি মার্ক জাকারবার্গ ও তার স্ত্রীর কাছে। ফেসবুকে তোলপাড় হওয়া ছবি নিয়ে জিজ্ঞেস করা হলে জাকারবার্গ হতাশ গলায় বলেন, 'এই বাঙালি ফেসবুক সবজান্তাদের নিয়ে আর পারি না। কিছু না জেনে উল্টাপাল্টা পোস্ট, মতামত আর কর্মসূচি ঘোষণা করায় এরা ওস্তাদ। এদের জন্য কবে ফেসবুকই বন্ধ করে দেয়া লাগবে।'

তাহলে আসল কাহিনী কি জানতে চাইলে জাকারবার্গ বলেন- প্রথমত আমি যেটা বানাচ্ছি সেটা তো রুটি না। এটারে বলে মোমো। আর দ্বিতীয়ত আমি বাঙালি প্রেমিক বাবুদের প্রতি সম্মান রেখেই আমার স্ত্রীকে জিজ্ঞেস করেছিলাম, 'বাবু খাইছো?' জবাবে সে বলে, 'তুমি বানিয়ে না দিলে আমি খাবো না।' তখন আমি বাবুকে খাওয়ানোর জন্যই তাকে মোমো বানিয়ে দেই। সেও হেল্প করে আমাকে। বাংলাদেশি বাবুপ্রেমিদের এতো উত্তেজিত হওয়ার কিছু নাই।

এই ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জাকারবার্গের স্ত্রী অমুক (নাম ভুলে গেছি) বলেন, 'ঘটনা সত্য। আমার কাছে লিংক আছে। সে আমাকে মোমো বানিয়ে খাইয়েছে। খাওয়ার পর, বাবু খাইছো? জিজ্ঞেসও করেছে। আমি হ্যাঁ বলার পরই সে নিজে খেয়েছে।'

মোমো খাইতে কেমন ছিলো জিজ্ঞেস করা হলে জাকারবার্গ ও তার স্ত্রী একযোগে বলেন, 'খুব ট্যাস।'

সবশেষে যেসব বাবুরা রুটি ঠিকমতো গোল করতে পারে না, তাদের জন্য ফেসবুকে শীঘ্রই রুটি গোল করা ফিচার আসছে বলে জানান মার্ক জাকারবার্গ। এছাড়াও বাংলাদেশি ইউজারদের কথা মাথায় রেখে ফেসবুক মেসেঞ্জারে ডার্ক থিম অপশনের পর বাবু খাইছো অপশনও আসছে বলে তিনি নিশ্চিত করেন।

৮৩৬ পঠিত ... ২২:৩৭, এপ্রিল ০৮, ২০১৯

Top