অভ্র আনইন্সটল করে বিজয় টাইপ শিখছেন সালমান মুক্তাদির

৫২৮৩ পঠিত ... ২০:২৬, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১৯

(eআরকি একটি স্যাটায়ার ওয়েবসাইট। এখানে প্রকাশিত যে কোনো খবর নিজ দায়িত্বে বিশ্বাস করুন।)

গত ১৯ ফেব্রুয়ারি ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি (আইসিটি) মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে জনপ্রিয় ইউটিউব তারকা সালমান মুক্তাদিরের সেদিনের ‘অবস্থা’ জানতে চেয়ে একটি স্ট্যাটাস দেন। সেই স্ট্যাটাসটিকে অনেকেই অনেক দৃষ্টিকোণ থেকে দেখে সেখানে নানাবিধ মন্তব্য জানিয়েছেন। পরবর্তীতে গণমাধ্যমকে মোস্তফা জব্বার বলেন, ‘আমি সালমানদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করছি, এটা আমি করতেছি’ (সুত্র: যুগান্তর, কালের কণ্ঠ)।

সালমানদের বিরুদ্ধে তিনি কেন যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন? এটা কি খান, শাহ, এফ রহমান সবধরনের সালমানের জন্যই প্রযোজ্য? এসব জানা যায়নি। সম্প্রতি সালমান মুক্তাদির তার ইউটিউব চ্যানেলে ‘অভদ্র প্রেম’ টাইটেলে একটি বিতকির্ত ভিডিও টিজার প্রকাশ করেন। এই কারণে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। সেই সূত্র ধরেই আইসিটি মন্ত্রী এই যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন বলে ধারণা করছেন অনেকেই। হুট করে এমন এক যুদ্ধের দামামা শুনে সালমানের অনুভূতি জানতে তার বাসায় ছুটে যায় eআরকি ইউটিউব বিশেষজ্ঞ দল।

সেখানে পৌছানোর পর আমরা প্রথমে বেল বাজিয়ে, এরপর দরজায় টোকা দিয়ে, এবং এসবে কাজ না হওয়ায় জোরে জোরে দরজা ধাক্কা দিয়ে তার মনোযোগ আকর্ষণের চেষ্টা করি। দশ মিনিট তার সদর দরজার উপর ক্রমাগত করাঘাত বর্ষণের পর গেটের বাইরে পড়ে থাকা একটি ইট হাতে নিলে দরজা খুলে যেতে দেখা যায়। দরজার ওপাশ থেকে ভয়ে ভয়ে উঁকি দেন সালমান মুক্তাদির। বলেন, 'ও, আপনারা, আমি ভাবলাম... সরি সরি, আসুন...'।

ভেতরে ঢুকতেই আমরা দেখতে পাই, পিসিতে একটি ওয়ার্ড ডকুমেন্টে হাতের লেখা প্র্যাকটিসের আদলে ‘আমি আর ও জাস্ট ফ্রেন্ডস’ লাইনটি বারংবার করে লিখছিলেন তিনি। তার সাথে দেখা করার আসল উদ্দেশ্য ভুলে গিয়ে এই কম্পিউটারে হাতের লেখা প্র্যাকটিসের রহস্য জানতে উৎসাহী হয়ে পড়ে eআরকি গবেষকেরা। তিনি একটু মুচকি হেসে বলেন, ‘জব্বার স্যারের স্ট্যাটাস দেখে খানিকটা বিচলিত হয়ে পড়েছিলাম। ঠিক কেন তিনি মাইন্ড করেছেন, বুঝে উঠতে পারিনি! কিন্তু হঠাৎ করেই সব আমার কাছে একদম ক্লিয়ার হয়ে গেল। ভাষার মান্থ ফেব্রুয়ারিতে এসে বাংলায় একটি স্ট্যাটাস দিতে গিয়ে টের পেলাম, আমি তো অভ্র দিয়ে বাংলা লিখি। এতদিন ধরে বাংলায় লেখালেখি করতে তো শুধু অভ্রই ব্যবহার করে এলাম। স্যারের বিজয় সেভাবে শিখে ওঠা হয়নি। তাই অভ্র আনইন্সটাল করে কম্পিউটার ফরম্যাট দিয়ে বিজয় ইন্সটাল করেছি। এখন সারাদিন ধরে এই বিজয় দিয়ে লেখার প্র্যাকটিসই করবো।’

এরই মাঝে তার কিছু জাস্ট ফ্রেন্ডদের কাছ থেকে টেক্সট পেয়ে তিনি বেশ কষ্টেসৃষ্টে বিজয় দিয়ে টাইপ করে তাদের রিপ্লাই দেন। এরপর তিনি আমাদের বলেন, ‘আমার নতুন গানের টিজারটা ইউটিউব থেকে গায়েব হয়ে গেছে। আসলে ঘটনাটা হলো, গানটি লেখা হয়েছিল অভ্র দিয়ে। এ কারণেই সম্ভবত ভিডিওটি আর ইউটিউবে টিকতে পারলো না। বিজয়ে আরেকটু এক্সপার্ট হয়ে নেই, তখন আবার গানটি রিলিজ দিবো।’

আইসিটি মন্ত্রীর যুদ্ধ ঘোষণা নিয়ে তাকে জিজ্ঞেস করার পর তিনি নটি একটি হাসি দিয়ে বললেন, আরে ‘আপনি আসল ব্যাপারটাই ধরতে পারেন নি। এখন কি আর মাঠেঘাটে যুদ্ধের সময় আছে? এখন যুদ্ধ হয় ইন্টারনেটে; পোস্ট, ছবি, ভিডিওর কমেন্ট বক্সে। কিবোর্ডের খটখট দামামা বাজিয়ে টাইপ করে ইন্টারনেট যোদ্ধারা বিশ্ব জয় করে মহাবিশ্ব জয়ের লক্ষ্যে নেমে পড়েন। আর এরকম যুদ্ধে যেমন ঠিকঠাক উত্তর দিতে হয়, তেমনি হতে হয় দ্রুত। এরকম সিচুয়েশনে পড়লে সবাই ঠিকঠাক টাইপ করতে এক্সপার্ট হয়ে যায়। জব্বার স্যার বুঝতে পেরেছেন আমি বিজয়ে দুর্বল। তাই তিনি আমাকে এমন ইন্টারনেটে কমেন্ট টাইপিং যুদ্ধে নামিয়ে দিলে আমিও একসময় বিজয়ে বিজয়ী হয়ে উঠবো। ব্যাপারটা তিনি দেখবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন।’

৫২৮৩ পঠিত ... ২০:২৬, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১৯

Top