শেষ হলো বিপিএল ও বাণিজ্য মেলা, মিরপুরের ঘরে ঘরে আনন্দ

৮০১ পঠিত ... ১৬:১৩, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯

ঢাকার মিরপুর যেন এক ‘ল্যান্ড অফ মিথ’। বাস্তবতার সাথে এখানে পরাবাস্তবতার সহাবস্থান। কখনো টলমলে নদী, কখনো ধু ধু মরুর প্রান্তর, কখনো পাহাড়ি ট্রেইল, আবার কখনো এক সাধারণ শহুরে পাড়ার রূপ ধারণ করে এই রহস্যময় মিরপুর। মেট্রোরেলের কষাঘাতে জর্জরিত এই ভুমিটিতে যোগ হয়েছিল বিপিএল আর বাণিজ্য মেলার আসর। কথায় আছে, কারো পৌষমাস, কারো সর্বনাশ! বাণিজ্য মেলার বিশাল পরিসরে টুকটাক কেনাকাটা আর ঘুরাফেরার, কিংবা বিপিএলের চোখ ধাঁধানো আসরে তারকা ক্রিকেটারদের উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচ দেখা অন্য সবার জন্য পরমানন্দের বিষয় হলেও, মিরপুরবাসীদের জন্য তা ছিল এক দীর্ঘ দুঃখগাথার মতো। কিন্তু সেই দিন কি আর আছে, দিন বদলাইছে না? বিপিএল আর বাণিজ্য মেলা দুটোই শেষ হয়ে গেল এক দিনের ব্যবধানে।

 

মিরপুরবাসীর বেদনার ত্রিশুলের দুটি শীর্ষ বিপিএল আর বাণিজ্য মেলা একসাথে সমাপ্ত হবার পর মিরপুরে নেমে এসেছে উচ্ছ্বাসের তীব্র জোয়ার। গত ৮ ফেব্রুয়ারি ছিলো বিপিএলের ফাইনাল, আর ৯ তারিখে বাণিজ্য মেলার শেষ দিন। মূলত গত রাত থেকেই চাঁনরাতের আমেজ দেখা যায় মিরপুরের ঘরে ঘরে। দীর্ঘদিনের ত্যাগ তিতিক্ষার পর বাড়ির অভিমুখী হতে পেরেছেন বহু মিরপুরবাসী। যেন তাদের আনন্দকে বাড়িয়ে দিতেই গতকাল হয়েছিল এক পশলা বৃষ্টি, যেন তাদের এই বিজয়ানন্দ চলাকালে একটু কম ধুলো উড়ে!

 

আজ দিনব্যাপী মিরপুরের মানুষেরা আশেপাশের এলাকায় এই খুশি ভাগাভাগি করে নিতে যাচ্ছেন। মিরপুর ১ থেকে মিরপুর ১০গামী একজনের সাথে দেখা হলে তিনি বলেন, ‘আমরা বড় পরিবার। নানাবিধ কারণে আমরা মিরপুরের চারিদিকে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়েছি। এতদিন ধরে বাণিজ্য মেলা আর বিপিএলের ভয়ে কোথাও তো বেরও হতে পারি না। আজ অনেকদিন পর একটু রাস্তায় বের হওয়ার সাহস হলো। এই সুযোগে যাই একটু আত্মীয়দের বাসা থেকে বেড়িয়ে আসি, সেমাই পায়েস খেয়ে আসি।’

বিপিএলের ফাইনালে হেরে যাওয়ার পরও এক মিরপুরবাসী ঢাকা ডাইনামাইটস সমর্থক উল্লসিত হয়ে বলেন, 'ঢাকা হোক, কুমিল্লা হোক, বিপিএল শেষ হওয়াই যথেষ্ট! কুমিল্লা জিতে যাওয়ার পরে ফাইনালি অন্তত বিপিএল শেষ হচ্ছে, এই আনন্দে ঢাকার জার্সি পরা অবস্থাতেই উল্লাস প্রকাশ করে ফেলেছিলাম। আশেপাশের ঢাকা সাপোর্টাররা হালকা মেরেছে, তবে ডাজেন্ট ম্যাটার। প্রতিদিন তো রাস্তায় বাসে বসে জ্যামের মাইর খাচ্ছিই, এ আর এমন কি!'

সদ্য ব্রেকাপ হওয়া একজন তরুণ বলেন, 'গত ডিসেম্বরেই আমার ব্রেকাপ হয়েছে। কিন্তু কোনোভাবেই মুভ অন করতে পারছিলাম না। ফাইনালি গত এক মাস মিরপুরের জ্যাম থেক মুভ অন করতে করতে আমি শিখেছি, কীভাবে মুভ অন করতে হয়। আমার এক্স যেমন এখন অতীত, বাণিজ্য মেলা এবং বিপিএলও এখন মিরপুরের অতীত। সো মুভ অন গাইজ!'  

এদিকে এই বিপিএল/বাণিজ্য মেলা সমাপ্তি উপলক্ষ্যে রাস্তায় আনন্দ মিছিল বের করার কথা থাকলেও পরবর্তীতে রাস্তায় স্বাভাবিক যানচলাচলকেই আনন্দ মিছিলের তুল্য হিসাবে বিবেচনা করা হবে বলে নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে নিখিল মিরপুরবাসী সংঘ।

 

মিরপুর নিয়ে আর পড়ুন-

৮০১ পঠিত ... ১৬:১৩, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯

Top