বিপিএলের প্রাইজমানি দিয়ে কুমিল্লায় পাবলিক টয়লেট বানাতে চায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস

২০৩৩ পঠিত ... ২০:৪৪, ফেব্রুয়ারি ০৯, ২০১৯

গত ৮ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ফাইনালে ঢাকা ডাইনামাইটসকে হারিয়ে শিরোপা জিতে নেয় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস। ৬১ বলে ১৪১ রান করা তামিমের বিধ্বংসী ইনিংসে ১৯৯ রান করে কুমিল্লা, আর তাড়া করতে নেমে ঢাকা হেরে যায় ১৭ রানে। এরপর থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোয় শুরু হয়ে যায় ঢাকা-চিটাগাং রুটে কুমিল্লায় যাত্রা বিরতিতে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দেয়ার বিষয়টি নিয়ে নানাবিধ আলোচনা। অবিশ্বস্ত সূত্র থেকে জানা গেছে, জনস্বার্থে কুমিল্লায় পর্যাপ্ত পাবলিক টয়লেট বানাতে বিপিএল জয়ের প্রাইজমানি খরচ করবে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস।

ঢাকা-চট্টগ্রাম হাইওয়ে ধরে প্রতি দিন অসংখ্য মানুষ ছুটে চলে। আর যাত্রার মাঝামাঝি গাড়ি থামিয়ে ব্লাডারের উপর থেকে চাপ কমিয়ে নিতে বেছে নিতে হয় কুমিল্লাকেই। দেশের মানুষের কিডনি সমস্যা নিয়ন্ত্রণে রাখার পিছনে কুমিল্লার অবদান অনস্বীকার্য। এ নিয়ে ফেসবুকেও বিভিন্ন সময় প্রশংসায় ভেসেছে কুমিল্লা। নামের বানান পাল্টে গেলেও ইউরিনারি ট্র্যাক্টের ইনফেকশন দূরে কুমিল্লার ভূমিকা রয়ে গেছে একদমই আগের মতো। তাই পুরো দেশবাসীর সুস্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস বিপিএল থেকে পাওয়া প্রাইজমানি ব্যবহার করবে অসংখ্য্য পাবলিক টয়লেট নির্মাণে।

এ বিষয়ে কথা বলতে গেলে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের এক কর্তাব্যক্তি eআরকিকে জানান ‘যাত্রাপথে অনেকেই ঠিকমত পানি খায় না। কখন কোথায় চাপ এসে পড়ে তার কোন ঠিক নাই, সেই ভয়ে। আমরা চাই, সবাই পর্যাপ্ত পানি খাবে। ইয়ে করার জায়গা নিয়ে আর নেই কোন ভয়।’ এই মহান উদ্যোগ নিয়ে খুশি ঢাকা-চট্টগ্রাম হাইওয়ের অনেক নিয়মিত যাত্রী। ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েও অনেকে উল্লাস প্রকাশ করেছেন। একজন জানিয়েছেন ‘আগে কুমিল্লায় নেমে মানুষের ঠ্যালায় লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হতো। কখনো কখনো এদিক সেদিক ঘুরাঘুরি করতে হইত। এখন থেকে আর এইসব চিন্তা নাই।’ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে একজন বলেছেন ‘চাপ সামলানোর জন্য সবসময় কুমিল্লাকে ভালোবেসে এসেছি। এখন থেকে কুমিল্লাকে আরও ভালোবাসব। ভিক্টোরিয়ানসে অনেক ধন্যবাদ।’

ঢাকা ডায়নামাইটস হেরে যাওয়ায় ঢাকার অনেক সমর্থকই কুমিল্লা নিয়ে রসিকতা করছিলেন। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের এই অসামান্য উদ্যোগের খবর প্রকাশিত হলে তাদের অনেককেই ফেসবুক স্ট্যাটাস ডিলিট করতে দেখা যায়। মাসব্যাপী যারা কুমিল্লাকে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করেছেন, তাদের অনেকেই ফেসবুক আইডি ডিএক্টিভ করেন বলেও খবর পাওয়া গিয়েছে। এদের অনেকেরই ভয়, হয়ত এরপর কুমিল্লায় তাদের থামতে দেওয়া হবে না। যা তাদের ব্লাডার তথা কিডনিকে ফেলতে পারে ভয়াবহ ঝুঁকির মুখে।

তবে এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে উত্তরবঙ্গের কুমিল্লাখ্যাত সিরাজগঞ্জবাসী। ভবিষ্যতে বিপিএলে ফ্র্যাঞ্চাইজ পেলে এবং বিপিএল জিতলে সিরাজগঞ্জও এমন উদ্যোগ নেবে, এমন আশাবাদ প্রকাশ করেছে অনেকেই!

[এটি একটি স্যাটায়ার সঙবাদ। এটাকে বিশ্বাস, অবিশ্বাস, কুবিশ্বাস, অর্ধবিশ্বাস, যা করবেন নিজ দায়িত্বে করবেন।]

২০৩৩ পঠিত ... ২০:৪৪, ফেব্রুয়ারি ০৯, ২০১৯

Top