'চট্টগ্রাম টেস্টে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড ঠিক নেই' অভিযোগে নির্বাচন কমিশনে চিঠি পাঠালো ওয়েস্ট ইন্ডিজ

৫০২ পঠিত ... ১৬:১৫, নভেম্বর ২৪, ২০১৮

শীত এবং নির্বাচন দুটোই আসন্ন। এই উৎসবমুখর সময়ে চট্টগ্রামে টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৬৪ রানে হারিয়েছে বাংলাদেশ। তৃতীয় দিনের দ্বিতীয় সেশনেই টেস্ট ম্যাচ শেষ করে দিয়েছে স্বাগতিকরা। ম্যাচ শেষ হবার সাথে সাথেই খবর পাওয়া গেছে, নির্বাচনে হেরে যাওয়া দলগুলোর মতো ‘চট্টগ্রামে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড ছিল না’ মর্মে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ করেছে সফরকারী ক্যারিবিয়ান দল।

আমাদের দেশের নির্বাচনী অতীত ঘেটে দেখা গেছে, যেকোনো রকমের নির্বাচনের পরপরই হেরে যাওয়া দল (অর্থাৎ, যে দলটি বিরোধী হয়ে গেল) কখনোই নির্বাচনকে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হিসেবে মেনে নিতে পারেনি। বিরোধী দলদের সেই ঐতিহ্য বজায় রেখে সদ্য বিরোধী দল হয়ে যাওয়া ওয়েস্ট ইন্ডিজও তুলেছে এমনই অভিযোগ।

এদিকে হঠাৎ এমন অভিযোগে বিস্মিত ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। ক্রিকেট বোর্ড রেখে এ বিষয়ে কেন নির্বাচন কমিশনকে টেনে আনা, এমন প্রশ্নের উত্তরে ক্যারিবীয় অধিনায়ক ক্রেগ ব্র্যাথওয়েট বলেছেন ‘খেলার মাঠ লেভেলে ছিল না। ব্যাট করার সময় আমার কাছে মাঠটা যথেষ্ট উচু মনে হয়েছে, অথচ বল করার সময় মনে হলো ঢালু। পাহাড়ি অঞ্চলে ভেন্যু দেয়ার সময়ই আমাদের সন্দেহ হয়েছিল, এমন উঁচুনিচু এলাকায় কিছুই লেভেলে হবে না। তবুও আমরা খেলতে এসেছিলাম। কিন্তু তাই বলে দিনেদুপুরে এমন কারচুপি?’

হোটেলে ফিরে লিফটের গ্রাউন্ড ফ্লোর থেকে লেভেল টুতে ওঠার সময় তিনি আরো বলেন, ‘ওদের দলে স্পিনার বেশি বলে স্পিন সহায়ক পিচ বানিয়েছে। লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তো পরের কথা, লেভেল প্লেয়িং পিচও হয়নি। পরের টেস্টেই আমরা এই ফলাফলের বিরুদ্ধে আন্দোলনে যাওয়ার কথা ভাবছি।’

তিন দিনেই টেস্ট হেরে যাওয়া প্রতিক্রিয়ায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের কোচও অত্যন্ত বেসুরো গলায় অধিনায়কের সঙ্গে সুর মিলিয়ে বলেন ‘সূক্ষ্ম কারচুপি হয়েছে। জনগণ এই ফলাফল মেনে নেবে না।’ যেকোনো ফলাফলই ওয়েস্ট ইন্ডিজ মেনে নেবে, ম্যাচের আগে যদিও এমন কথা বলেছিলেন তিনি। এই প্রসঙ্গ মনে করিয়ে দিলে তিনি বলেন ‘আমরা বলেছিলাম, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ খেলা হলে ফল অবশ্যই আমাদের পক্ষে আসবে। যেহেতু রেজাল্ট আমাদের পক্ষে আসেনি, তাই ধরে নেয়াই যায় নির্বাচন, থুক্কু টেস্ট ম্যাচ লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডে খেলা হয় নি। জনগণ এই রেজাল্ট মেনে নিবে না!’

 

তবে জনগণ বলতে তিনি বাংলাদেশি নাকি ক্যারিবিয়ান, কোন জনগণের কথা বলেছেন তা তিনি পরিষ্কার করে বলেননি।

অন্যদিকে ড্রেসিং রুমে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের অন্য এক হতাশ সদস্য বলেন, ‘মাঠ শুধু অসমান ছিল, তাই না… মাঠটা কেমন যেন বাঁকাও ছিল! আমরা চার মারলে বল আগায় না, অথচ মমিনুল মারলেই ধুমধাম চার হয়। নিশ্চয়ই মাঠ লেভেলে ছিল না।’

অবশ্য সরকারি দলগুলোর মতোই এই অভিযোগ একেবারেই উড়িয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশি ক্রিকেটভক্তরা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সাকিবভক্ত জানান, ‘খেলতে না জানলে মাঠ বাঁকাই মনে হয়। অন্য একজন আগ্রাসী ভক্ত হুমকির সুরে বলেন, ‘লেভেলে আয়, এরপর কথা ক।’

মূল আইডিয়া: মিকসেতু মিঠু

৫০২ পঠিত ... ১৬:১৫, নভেম্বর ২৪, ২০১৮

Top