সকাল সকাল পড়ে ফেলুন ১০টি ফাটাফাটি কৌতুক

৪৮৯ পঠিত ... ১৮:১৩, মে ১৮, ২০১৯

 

১#
দুই ড্রাইভার গল্প করছে।

: কী রে, মাঝখানে শুনলাম তোর নাকি চাকরি যায় যায় অবস্থা হয়েছিল। তা কী করে সামলে নিলি?
: এ আর কঠিন কী? এ্যাকসিডেন্ট করে গাড়ির দামি উইন্ডশিল্ড ভেঙে ফেললাম।
কী?
: হ্যা! তারপর বস বললো আগামী তিন বছরে ঐ টাকা আমার বেতন থেকে কেটে রাখবে! তিন বছরের জন্য চাকরি পাক্কা!

২#
বিচারক: আপনি কি দোষী না নির্দোষ?
আসামি: রায় দেবার জন্য বেতন কি আপনি পান না আমি?

৩#
: আপনি বলেছিলেন না যে আপনার বই হুহু করে চলে।
: হ্যা।
: আজ আপনার প্রকাশককে সে কথা বললাম।
: তা তিনি কী বললেন?
: তিনি হি হি করে হাসলেন।

৪#
: দেশটা উচ্ছনে গেলো। চারদিকে ‘গাছ লাগাও’  ‘গাছ লাগাও’ এত হৈ হুল্লোড় অথচ আবার বাবা যেই  লাগানো শুরু করলো... তাকে পুলিশ ধরে নিয়ে গেল...
: কেন কী গাছ লাগিয়েছিল তোর বাবা?
: পপি গাছ।

৫#
ভোরবেলায় রাস্তায় গাড়ি থামিয়ে এক পুলিশ অফিয়ার সে গাড়ির চালককে জানাল যে, সে দিনের প্রথম সিটবেল্ট পরিধানরত গাড়ি চালক হিসেবে ‘নিরাপত্তা দিবস’ উপলক্ষে দশ হাজার টাকা পুরস্কার পেতে যাচ্ছে।

পুলিশ অফিসার সাধারণ কৌতুহলে জানতে চাইল-
: তুমি এই টাকা দিয়ে কী করবে?
চালক চোখ বুঝে বললো-
: এই টাকা দিয়ে ড্রাইভিং টেস্ট দিয়ে আমি সত্যিকারের একটা লাইসেন্স নেব।

৬#
: কাল বাসায় পিসি এসেছে।
: কনফিগারেশন কী?

৭#
১ম প্রতিবেশী : আমার স্বামীকে নিয়ে পড়েছি এক বিপদে। রোজ সকালে টিভিতে ব্যায়ামের অনুষ্ঠান শুরু হলেই লাফ দিয়ে সে বিছানা থেকে উঠে পড়ে।

২য় প্রতিবেশী:  বিপদ বলছ কেন, এই বয়সে ব্যায়াম করাটা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ভালো।

১ম প্রতিবেশী:  আরে নিজে ব্যায়াম করলে  ভাল হতো। ও তো ওঠে জানালা দিয়ে পাশের বাড়ির মেয়েটির ব্যায়াম দেখতে।

৮#  
এক বৃদ্ধ ভদ্রলোক ফল কিনতে গিয়ে ঠোঙা দেখে বললেন, এ কী ব্যাপার, মাধ্যমিকের ফল বেরোবার আগেই উত্তরপত্র ঠোঙা  হয়ে গেছে।
ফলওয়ালা বললো, তাঁতে কী হয়েছে  স্যার, ফল তো আপনাকে ঠোঙাতেই দিচ্ছি।

৯#
: উপহার দেওয়ার মতো বই দেখান তো।
: কেমন বই? হালকা টাইপের?
: ওজন নিয়ে ভাববেন না। সঙ্গে গাড়ি নিয়ে এসেছি।

১০#
এক ডাক্তারের গাড়ি সারানোর পর মেকানিক বিল  ভাউচার দিলো। বিলের অঙ্ক দেখে ডাক্তারের চক্ষু চড়কগাছ। বললেন, আমরাও তো মানুষের দেহের কলকব্জা মেরামত করি, কিন্তু তোমাদের মতো গলাকাটা চার্জ করি না।

মেকানিক সবিনয়ে বললেন, আপনি ঠিকই বলেছেন স্যার। কিন্তু ভেবে দেখুন সেই এ্যাডাম-ইভের সময় থেকে আপনারা ঐ একই মডেলের যন্ত্র সারাচ্ছেন। আর আমাদের ক্ষেত্রে সকাল-বিকাল মডেল পাল্টাচ্ছে, রেট তো একটু বেশি হবেই।   

৪৮৯ পঠিত ... ১৮:১৩, মে ১৮, ২০১৯

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

রম্য

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top