দৈত্যের কাছে বাড়ি গাড়ি আর নারী চাওয়ার পর যা পাওয়া গেলো (১৯+)

৬০৬৫ পঠিত ... ২০:৩৪, জানুয়ারি ২২, ২০১৯

দুই বন্ধু রনি আর অনি ঘুরতে এসেছে জঙ্গলে। নদীর পাড়ে বসে বসে মাছ ধরছে।
রনি অনির কাছে কোনো ফোন আছে কিনা তা জানতে চাইল। বাসায় একটা জরুরি ফোন করার ছিল তার।
অনি বলল, ‘ঠিক আছে! এই নে ফোন।’

এই বলে সে ১২ ইঞ্চি একটা লম্বা ফোন বের করল।

ফোন দেখে তো রনি ভ্যাবাচেকা খেয়ে গেলো। অনিকে জিজ্ঞেস করল ‘কিরে, এত বড় ফোন পেলি কোথায়?’
অনি বলল, ‘আমার কাছে একটা দৈত্য আছে। ইচ্ছাপূরণকারী দৈত্য। ঐ দৈত্যই এই ফোন দিয়েছে।’
রনি বলল, ‘দেখি তো তোর দৈত্যটা।’

মানিব্যাগ থেকে অনি দৈত্যটা বের করে দেখালো। দৈত্যকে দেখেই রনি বলল, ‘তুমি তো ইচ্ছে পূরণকারী দৈত্য। আমি তোমার মনিবের বন্ধু, আমার একটা ইচ্ছে পূরণ করো।’

দৈত্য বলল, ‘হুকুম করুন জাহাপনা।’
রনি দৈত্যকে গাড়ি, বাড়ি আর নারী দেবার জন্য আদেশ করলো।

'জি হুকুম' বলে দৈত্যটা গায়েব হয়ে গেলো।

রনি অনেকক্ষণ ধরে অপেক্ষা করলো, কখন নারী, গাড়ি আর বাড়ি আসে। অপেক্ষা করতে করতে মেজাজ যখন চূড়ায়, তখন আকাশ থেকে একটা ভারি হাড়ি আর শাড়ি পড়ল। রনির মেজাজ তো খুব খারাপ। বললো, ‘কিরে ব্যাটা, চাইলাম নারী গাড়ি আর বাড়ি... ও কিনা দিলো ভারি হাড়ি আর শাড়ি।’

অনি নির্লিপ্ত কন্ঠে বলল, ‘দোস্ত, বলতে ভুল গেছি, আমার দৈত্যটা কানে কম শুনে। তোর কি মনে হয় আমি ১২ ইঞ্চি লম্বা ফোন চেয়েছিলাম?’

৬০৬৫ পঠিত ... ২০:৩৪, জানুয়ারি ২২, ২০১৯

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

রম্য

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top