আপনিও কি এই সাধারণ ভুলগুলো করেন?

১০৬০৯ পঠিত ... ০১:৫৭, মে ০১, ২০১৭

লিখতে গিয়ে বা বলতে গিয়ে অনেক ক্ষেত্রেই আমরা বাড়তি কিছু লিখে ফেলি বা বলে ফেলি। আপাতদৃষ্টিতে ভুলগুলোকে নিরীহ মনে হলেও দিনের শেষে ভুল ভুলই। নিরীহ ভুলগুলো বিশ্লেষণ করলে তা যে খুবই হাস্যকর লাগবে এবং অনেকে যে চমকেও উঠবেন, তা বলাই বাহুল্য। লেখা বা বলার ক্ষেত্রে এই ভুলগুলো এড়িয়ে চলতে হবে অবশ্যই।

 

১. বাংলাদেশের শতকরা নব্বই পার্সেন্ট লোক গ্রামে থাকে—এ ধরনের বাক্য অনেকেই ব্যবহার করেন এবং তারা ভুলে যান যে, শতকরা মানেই পার্সেন্ট, পার্সেন্ট মানেই শতকরা। অতএব বলতে হবে 'বাংলাদেশের শতকরা নব্বই ভাগ লোক গ্রামে থাকে' অথবা 'বাংলাদেশের নব্বই পার্সেন্ট লোক গ্রামে থাকে।'

 

২. শব মানে রাত, রাত মানে শব। অতএব 'শবে বরাতের রাতে নামাজ পড়ব' বলা যাবে না। বলতে হবে 'বরাতের রাতে নামাজ পড়ব' অথবা 'শবে বরাতে নামাজ পড়ব।'

 

৩. দিবস মানেই দিন, দিন মানেই দিবস। অতএব 'বিজয়-দিবসের দিন স্মৃতিসৌধে যাব' না বলে বলতে হবে 'বিজয়-দিবসে স্মৃতিসৌধে যাব' অথবা 'বিজয়ের দিন স্মৃতিসৌধে যাব।' একই কারণে 'ভ্যালেন্টাইন ডের দিন সে আমাকে ফুল দিয়েছে' না বলে বলতে হবে 'ভ্যালেন্টাইন ডেতে সে আমাকে ফুল দিয়েছে' অথবা 'ভ্যালেন্টাইন-দিবসে সে আমাকে ফুল দিয়েছে।'

 

৪. ইভেন (even) অর্থ এমনকি। 'সে আমার গায়ে ইভেনকি হাত তুলেছে' বলে মুখ নষ্ট করা ঠিক না। বলতে হবে 'সে আমার গায়ে ইভেন হাত তুলেছে' অথবা 'সে আমার গায়ে এমনকি হাত তুলেছে।'

 

৫. লাশ জীবিত হয় না, মৃতই হয়। অতএব 'তোর মৃত লাশ আমি কুকুর দিয়ে খাওয়াব' বলে হুমকি দিয়ে লাভ নেই। হুমকি দিতে হবে 'তোর লাশ আমি কুকুর দিয়ে খাওয়াব' অথবা 'তোর মৃতদেহ আমি কুকুর দিয়ে খাওয়াব' বলে।

 

৬. জোক মানে কৌতুক, জোকস মানে কৌতুকগুলো। অতএব 'একটা জোকস বলো তো' বলা যাবে না। বলতে হবে 'একটা জোক বলো তো।'

 

৭. ফ্রেন্ডস মানেই বন্ধুরা। অতএব 'ফ্রেন্ডসরা' বলে কিছু নেই। বলতে হবে ফ্রেন্ডরা। একই কারণে সাপোর্টার্সরা, লিসেনার্সরা, ভিউয়ার্সরা, রুমমেটসরা না বলে বলতে হবে যথাক্রমে সাপোর্টাররা, লিসেনাররা, ভিউয়াররা, রুমমেটরা। 'টপিক্সগুলো' না বলে বলতে হবে 'টপিকগুলো'। প্যারেন্টস, চিলড্রেন, পিপল— এরা প্রত্যেকে এমনিতেই বহুবচনা, এর কোনোটির সাথে রা, দের বা গুলো যোগ করা যাবে না।

 

৮. মর্নিং ওয়াক মানেই সকালের হাঁটাহাঁটি। অতএব 'তিনি প্রতিদিন সকালে মর্নিং ওয়াকে যান' না বলে বলতে হবে 'তিনি প্রতিদিন মর্নিং ওয়াকে যান' অথবা 'তিনি প্রতিদিন সকালে হাঁটতে যান।'

 

৯. 'নেতৃবৃন্দগণ' শব্দটি রাজনৈতিক নেতাদের মুখে শোনা যায়। বৃন্দ নিজেই বহুবচন, এখানে খামোখা গণ যোগ করতে হবে না। 'সকল নেতৃবৃন্দকে শুভেচ্ছা' জানানোর দরকার নেই। 'সকল নেতাকে শুভেচ্ছা' জানালেই চলবে। 'সকল' কথাটি বললে তৎপরবর্তী শব্দটিকে আর বহুবচন বানানো যাবে না। তাই 'সব বাবাদেরকে শ্রদ্ধা জানাই' না বলে বলতে হবে 'সব বাবাকে শ্রদ্ধা জানাই।' একই কারণে 'সব ভাষাশহিদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি' না লিখে লিখতে হবে 'সব ভাষাশহিদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি।'

 

১০. রিপিট করা মানেই আবার ঘটানো। অতএব 'কথাটা আবার রিপিট করো' না বলে বলতে হবে 'কথাটা রিপিট করো।'

 

১১. হারানো-বিজ্ঞপ্তিতে একটি বহুল ব্যবহৃত বাক্য হচ্ছে 'কোনো সহৃদয়বান ব্যক্তি ছেলেটিকে খুঁজে পেলে নিকটস্থ থানায় যোগাযোগ করুন।' আসলে 'সহৃদয়বান' শব্দে 'স' মানে যা, 'বান' মানেও তা। অতএব 'সহৃদয়বান' না লিখে 'হৃদয়বান' বা 'সহৃদয়' লিখতে হবে।

 

১২. 'সাবেক' মানেই 'অতীতে ছিল এমন কিছু'। অতএব 'সে আমার সাবেক প্রেমিকা ছিল' না বলে বলতে হবে 'সে আমার প্রেমিকা ছিল' অথবা 'সে আমার সাবেক প্রেমিকা।' একই কারণে 'তিনি একজন সাবেক সাংসদ ছিলেন' না বলে বলতে হবে 'তিনি একজন সাংসদ ছিলেন' অথবা 'তিনি একজন সাবেক সাংসদ।'

 

১৩. কনিষ্ঠ মানেই সবচেয়ে ছোট, জ্যেষ্ঠ মানেই সবচেয়ে বড়। এদের সাথে 'তম' যোগ করা যাবে না। অতএব 'আমি আমার বাবার কনিষ্ঠতম ছেলে' না বলে বলতে হবে 'আমি আমার বাবার কনিষ্ঠ ছেলে' এবং 'আমার জ্যেষ্ঠতম চাচা মারা গেছেন' না বলে বলতে হবে 'আমার জ্যেষ্ঠ চাচা মারা গেছেন।'

 

১৪. মূল্য মানেই দাম, দাম মানেই মূল্য। অতএব 'দ্রব্যমূল্যের দাম বেড়ে গেছে' বলে কপাল না চাপড়ে 'দ্রব্যের দাম বেড়ে গেছে' অথবা 'দ্রব্যমূল্য বেড়ে গেছে' বলে কপাল চাপড়াতে হবে।

 

১৫. বেস্ট মানেই সবচেয়ে ভালো। তাই 'ও আমার সবচেয়ে বেস্ট ফ্রেন্ড' বলে বুক না ফুলিয়ে বলতে হবে 'ও আমার বেস্ট ফ্রেন্ড' অথবা 'ও আমার সবচেয়ে ভালো ফ্রেন্ড।' আবার লেটেস্ট মানেই সর্বশেষ। অতএব 'ভাইবারের সবচেয়ে লেটেস্ট ভার্সনটা পাঠাও' না বলে বলতে হবে 'ভাইবারের লেটেস্ট ভার্সনটা পাঠাও' অথবা 'ভাইবারের সর্বশেষ ভার্সনটা পাঠাও।'

 

১৬. ভ্যাকেন্সি মানেই 'খালি'। অতএব 'ভ্যাকেন্সি খালি নেই' বলা যাবে না, 'ভ্যাকেন্সি নেই' বলতে হবে।

 

১৭. কাল মানে সময়, সময় মানে কাল। অতএব 'পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে ফোন রাখা যাবে না' বলে ধমক না দিয়ে 'পরীক্ষা চলাকালে ফোন রাখা যাবে না' অথবা 'পরীক্ষা চলার সময়ে ফোন রাখা যাবে না' ধমক দিতে হবে।

 

১৮. যেহেতু ট্রি মানেই গাছ, সেহেতু 'রেইন ট্রি' বললেই চলবে। 'রেইন ট্রি গাছ' বলার দরকার নেই।

 

১৯. 'ঢাকায় বাই রোডে এসেছি' বা 'কোলকাতায় অন এয়ারে যাব' বলার দরকার নেই। বলতে হবে 'ঢাকায় বাই রোড এসেছি' এবং 'কোলকাতায় অন এয়ার যাব'।

১০৬০৯ পঠিত ... ০১:৫৭, মে ০১, ২০১৭

আরও eআরকি

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

কৌতুক

রম্য

সঙবাদ

স্যাটায়ার


Top