বন্ধ হচ্ছে ম্যাড ম্যাগাজিন : শেষ হতে যাচ্ছে ৬৭ বছরের উন্মাদনা

১৬৯ পঠিত ... ১৭:৩৯, জুলাই ০৭, ২০১৯

আলফ্রেড ই. নিউম্যানের নামটা আপনি যদি নাও শুনে থাকেন, তার চেহারাটা পরিচিত লাগতেই পারে। খাড়া বড় বড় দুটি কান, লাল চুল,  ছোট ছোট চোখ আর ফোকলা দাঁতের প্রশস্ত হাসিওয়ালা চিরকালীন ১৩ বছর বয়সী এক ‘কেয়ারফ্রি ইডিয়ট’। আমেরিকান হিউমার ম্যাগাজিনের কল্পিত চরিত্র এবং কাভার বয় এই নিউম্যান কমিক হিস্ট্রির আইকনিক চরিত্রগুলোর একটি।   

 

আলফ্রেড ই. নিউম্যানের জীবনী যদি কেউ লিখতে চায়, অন্তত ‘ম্যাড’ ম্যাগাজিনে তার জীবতকালের বয়ান কেউ করতে চাইলে, সে লিখতেই পারে- আলফ্রেড ই. নিউম্যান যার কোনো জন্মদিন নাই। নিউম্যান আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। বিদায় কালে তার বয়স হয়েছিলো ৬৭ বছর।       

# ৬৭ বছর! একটি স্যাটায়ার ম্যাগাজিনের বয়স ৬৭ বছর! অভাবনীয় একটা ব্যাপার। সম্প্রতি ম্যাড- ম্যাগাজিনের মালিক ডিসি কমিক জানিয়েছে ম্যাড ম্যাগাজিন আর নতুন কন্টেন্ট প্রকাশ করবে না। আগস্ট ২০১৯ সংখ্যাটাই হবে ‘ম্যাড’-এর সর্বশেষ সংখ্যা। এরপর কেবল পুরনো, সেরা বা গুরুত্বপূর্ণ লেখার সংগ্রহ প্রকাশ করবে ডিসি। 

# ম্যাড অনেকটা এমন ছিলো যে, ‘বয়স্কদের পুরো দুনিয়া তোমার সাথে মিথ্যা বলছে, আমরাও সেই এডাল্ট দুনিয়ারই অংশ। তোমার জন্য গুডলাক।’ ম্যাডের টার্গেট অডিয়েন্স ছিলো মূলত অল্পবয়সীরা, অথচ বয়স্করাও এর আস্বাদ থেকে বঞ্চিত হতেন না।  

১৯৫৭ ডিসেম্বর সংখ্যায় নরম্যান মিংগোর আঁকা কভার

# আমেরিকার কথা তো বলাই বাহুল্য, বিশ্বজুড়ে ম্যাড ম্যাগাজিনের প্রচুর ভক্ত ছিলো এবং আছে। কয়েক যুগ ধরে পপুলার কালচারে ব্যাপক প্রভাব বিস্তারে পপ কালচার, রাজনীতি,অর্থনীতি সবকিছু নিয়ে তুমুল রসিকতা  ও ব্যঙ্গ বিদ্রুপ করতো ম্যাগাজিনটির ‘গ্যাং অফ ইডিয়টস’। ৬৭ বছরের দীর্ঘ সময়ে অনেকবার বিতর্কেরও জন্ম দিয়েছে ম্যাগাজিনটি।   

লেখক, ইলাস্ট্রেটর হার্ভি কার্টজম্যান এবং উইলিয়াম গেইনিস ১৯৫২ সালে প্রতিষ্ঠা করেন ম্যাড-কে। প্রথম দিকে কমিক বুক এবং পরবর্তী সময়ে ১৯৫৫ সালে ম্যাগাজিন ফরম্যাটে প্রকাশিত হতে থাকে ম্যাড।

এপ্রিল ১৯৬৯ সংখ্যায় নরম্যান মিংগোর আঁকা কাভার

 

# স্যাটায়ার ম্যাগাজিনের এক বিশ্বব্যাপী পাইওনিয়ার ছিলো ম্যাগাজিনটি। পরবর্তীকালের স্যাটায়ার প্রকাশনা বা অনুষ্ঠানগুলি যেমন, দ্য অনিয়ন, স্যাটারডে নাইট লাইভ, কোলবার্ট রিপোর্ট, দ্য সিম্পসনস সবগুলিতেই ‘ম্যাড’-এর প্রভাব প্রচুর। সবগুলিই কোনো না কোনো সময় ‘ম্যাড’কে ট্রিবিউটও দিয়েছে।

ভক্ত, লেখক, কার্টুনিস্ট, কমিক আর্টিস্টসহ অজস্র শুভানুধ্যায়ীরা ‘ম্যাড’- অধ্যায়ের সমাপ্তিতে দুঃখ প্রকাশ করছেন, স্মৃতিচারণ করছেন। দীর্ঘ ৬৭ বছর ধরে চলা ম্যাগাজিনটির বন্ধ হয়ে যাওয়ার মধ্য দিয়ে উন্মাদনার এক আড়ম্বনপূর্ণ ঘরানারও সম্পাপ্তি ঘটল। 

১৬৯ পঠিত ... ১৭:৩৯, জুলাই ০৭, ২০১৯

আরও eআরকি

 

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

কৌতুক

রম্য

সঙবাদ

স্যাটায়ার


Top