গেম অফ থ্রোনসে আপনি যে ১০টি মজার ভুল খেয়াল করেননি

১৮৯ পঠিত ... ২০:০৬, মে ১৮, ২০১৯

এই মুহূর্তে চলমান, আলোচিত বা সমালোচিত টিভি সিরিজের ব্যাপারে কথা বলতে নিলে সবার প্রথমে ঠোঁটের আগায় যে নামটি আসে সেটা হলো ‘গেম অফ থ্রোনস’। একটি সিংহাসন নিয়ে বিবাদমান ক্ষমতাবান কতগুলো পরিবার এবং পারিপার্শ্বিক আরও নানাবিধ জাদু ও বাস্তবতা মিলে এগিয়ে গিয়েছে সিরিজটির গল্প। সিরিজটি তৈরি করতে অসংখ্য মানুষের দিন-রাতের পরিশ্রম আর মেধার সমন্বয় করতে হয়েছে। যেমন, শুধুমাত্র ‘ব্যাটল অফ উইন্টারফেল’ এপিসোডটি ধারণ করতেই ৭৫০ জন কলাকুশলীর সময় লেগেছে ৫৫ রাত। এরকম বিশাল মাপের কোন প্রজেক্ট যেখানে লাখ লাখ ডলার বিনিয়োগ করা হয়েছে সেখানে ভুল করার সুযোগ নেই বললেই চলে। তবুও ছোটখাটো কিছু ভুল তাদের চোখকে ফাঁকি দিয়ে বেরিয়ে এসেছে লর্ড ভ্যারিসের কোন এক লিটল বার্ডের মতই।

গত প্রায় এক দশকে তেমনই বেশ কিছু ভুল ধরা পড়েছে গেম অফ থ্রোনস ভক্তদের চোখে। সেই ছোটখাটো কিন্তু মজার ভুলগুলো আজ থাকছে eআরকির পাঠকদের জন্য। দেখুন তো, আপনার চোখেও পড়েছিল কিনা এসব ভুল।  

১#

সেভেন কিংডমের সবচেয়ে শক্তিশালী ধাতু ভ্যালেরিয়ান স্টিল দিয়ে তৈরি তলোয়ার না ভাঙলেও রাবারের মতন বেঁকে যেতে পারে।

২#

ওয়েস্টেরসের চাইতেও এসোসের মানুষ অনেক আধুনিক। সুপেয় পানির সরবরাহ নিয়ে তাদের ভাবতে হয় না, কারণ সেখানে পানির সাপ্লাইয়ের জন্য রয়েছে আধুনিক লোহার পাইপ।

৩#

আনসালিডরা যদিও বাচ্চাকাল থেকেই খোজা হিসেবে বেড়ে ওঠে, কিন্তু এই ছবিতে একজনকে দেখা যাচ্ছে বিয়ের আংটি পরে থাকতে। নিশ্চয়ই এই সৈন্য বিসিএস পরীক্ষায় ফরেন ক্যাডার পেয়েছিল।

৪#

থিওন গ্রেজয়ের হাতের কনিষ্ঠা রামসে বোল্টন যদিও কেটে নিয়েছিল কিন্তু সম্ভবত শেভ করতে সুবিধা হবে বলে এই দৃশ্যে সেই আঙুলটি ফিরে পেয়েছিল থিওন।

৫#

বুড়ো বয়সে অনেকেরই নকল দাঁতের প্রয়োজন হয়। রেড ওম্যান লেডি মেলিসান্দ্রেও এর ব্যাতিক্রম নন। বয়স কমাতে তাকেও পরতে হয় একটু সুদৃশ্য নেকলেস। তবে ওই বুড়োদের মতনই মাঝে নিজের গলার নেকলেসটা পরতে তিনি ভুলে যান।

৬#

ব্যাটলগ্রাউন্ডে স্ট্যানিস ব্যারাথিয়ন একই ভুল বারবার করেন না। কারণ তার আছে চার্জারসহ ল্যাপটপ। যা তাকে ব্যাটল ট্যাকটিক্স বিশ্লেষণে সাহায্য করে। তবে ল্যাপটপ দিয়ে স্ট্র্যাটেজি করেও বারবার কেন হেরে যেতে হয়েছিল তার এটিই বিস্ময়।

৭#

শীতের তীব্রতা থেকে বাঁচার জন্য আমদের আছে মেরিল পেট্রোলিয়াম জেলি। আর স্যামওয়েল টার্লির আছে চামড়ার জ্যাকেট।

৮#

একদম ডান কোণের কিংসগার্ড ভাইটি তার তলোয়ার খাপের মধ্যে না পারছে ঢুকাতে না পারছে বের করতে। নিশ্চয়ই ঘুষ দিয়ে চাকরিতে নিয়োগ পেয়েছে ব্যাটা। সার্সেইয়ের আমলে ওয়েস্টেরসের নিয়োগে দুর্নীতি অনেক বেড়ে গিয়েছিল, বোঝাই যাচ্ছে।

৯#

বিয়ের সময় হাই সেপ্টন নিশ্চয় অনেক লম্বা এবং একঘেয়ে ভাষণ দিচ্ছিলেন। তাই বোধহয় ঘুম তাড়াতে জেইমি কফি কাপ হাতে নিয়ে দাঁড়িয়েছিল। হাজার হোক কিং জোফ্রির বিয়ের অনুষ্ঠানে! সেখানে হাই তুলবে এমন সাহস কার?

১০#

আচ্ছা এই যে ডেনেরিসের কফি কাপটা স্টারবাকস থেকে পাঠালো। ডেনেরিসের সম্পূর্ণ উপাধি লিখতে পেরেছে একটা কফি কাপের গায়ে এজন্য ওই কর্মচারীকে নিশ্চয়ই মাসের সেরা কর্মচারীর খেতাব দেয়া হয়েছে। অন্তত ডেনেরিসের তাকে একটা ধন্যবাদ দেওয়া উচিত।

১৮৯ পঠিত ... ২০:০৬, মে ১৮, ২০১৯

আরও eআরকি

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

কৌতুক

রম্য

সঙবাদ

স্যাটায়ার


Top