রাজনীতিবিদদের দিকে জুতা, ডিম ও অন্যান্য জিনিস ছুঁড়ে মারার ১৩টি ঘটনা

৬৩৬ পঠিত ... ১৮:১৮, মার্চ ১৮, ২০১৯

গত ১৫ মার্চ শুক্রবার দুপুরবেলা নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চ শহরে পরপর দুটি মসজিদে হামলা চালায় এক ব্রেন্টন টারান্ট নামের এক অস্ট্রেলিয়ান বন্দুকধারী। এই সন্ত্রাসী হামলায় মৃত্যুবরণ করেন ৫০ জন। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে অস্ট্রেলিয়ান সিনেটর ফ্র্যাসার অ্যানিং করে বসেন এক বেফাঁস মন্তব্য। তিনি এই হামলার দায় বিশ্বজোড়া মুসলমানদের ঘাড়েই চাপিয়ে দেন। ফ্র্যাসার অ্যানিংয়ের বিরুদ্ধের সরব হয়ে পড়ে প্রায় পুরো বিশ্ব। এই উত্তাল সময়ে আরও কিছুটা ধাক্কার মুখোমুখি হন এই সিনেটর। উইল কনোলি নামের এক অস্ট্রেলিয়ান কিশোর তার মাথায় ডিম ফাটিয়ে দেন

বিতর্কিত রাজনীতিবিদদের এমন পরিস্থিতির সম্মুখীন হওয়াটা একেবারেই নতুন নয়। কারো কপালে জুটেছে সুস্বাদু কেক তো কারোর ভাগ্যে জুটেছে ডিম। আবার বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর রাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতির দিকে ধেয়ে এসেছিল জুতা। বিভিন্ন সময়ে ঘটা এমন কিছু ঘটনার সংকলন থাকছে eআরকির পাঠকদের জন্য।

 

১# ১৯৫৮ সালে পেরুর রাজধানী লিমায় সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিক্সনের গাড়িতে ডিম ছোঁড়া হয়। তিনি এ ব্যাপারে বলেছিলেন, 'আমার দিকে নয়, আমার গাড়িতে ডিম ছুঁড়েছে হামলাকারীরা।'



২# ১৯৯৮ সালে সান ফ্রান্সিসকোর সাবেক মেয়র উইলি ব্রাউনের মুখে মাখিয়ে দেওয়া হয় চেরি, টোফু ও মিষ্টি কুমড়া, এই তিন স্বাদের তিনটি পাই। গৃহহীনদের জন্য মেয়রের নেয়া পলিসির প্রতিবাদে এই কান্ড ঘটান 'বায়োটিক বেকিং ব্রিগেড মুভমেন্ট'-এর আন্দোলনকারীরা।



৩# দশাশই শরীরের অধিকারী আর্নল্ড শোয়ার্জনেগার সফল বডি বিল্ডিং আর হলিউড ক্যারিয়ারের পাশাপাশি রাজনীতিতেও বেশ সফল। ২০০৩ সালে ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর আর্নল্ড শোয়ার্জনেগারের দিকে ডিম নিক্ষেপ করা হয়। গভর্নর ক্যাম্পেইন চলাকালীন সময় ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট ইউনিভার্সিটি অফ লং বিচে তিনি এক তরুণের হামলার শিকার হন।


৪# ২০০৩ সালে গ্রিন পার্টির সাবেক প্রেসিডেন্সিয়াল প্রার্থী র‍্যাল্ফ নাদেরের মুখে মাখিয়ে দেয়া হয়েছিল পাই। সান ফ্রান্সিসকোতে প্রচারণা চালানোর সময় এই ঘটনার মুখোমুখি হন তিনি। অবশ্য সাথে সাথেই সেই পাই তিনি আক্রমণকারীর দিকে ছুঁড়ে মারেন।

 

৫# ছুঁড়ে মারার সবচেয়ে আলোচিত ঘটনাটি ঘটেছিল বহুল আলোচিত-সমালোচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশের সাথে। ২০০৮ সালের ১৪ ডিসেম্বর ইরাকের বাগদাদে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশের সংবাদ সম্মেলনে তার দিকে জুতা ছুড়ে মারেন এক ইরাকি সাংবাদিক। তার নাম মুনতাধার আল-জাইদি। আট বছরে দুই মেয়াদি মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালনের শেষের দিকে বিদায়ী সফর হিসেবে বুশ ইরাক গিয়েছিলেন। সে সময় জুতা মেরে ইরাকি সাংবাদিক বলেছিলেন, 'তোমার বিদায়ী চুমু। ইরাকি বিধবা ও এতিমদের পক্ষ থেকে।’ এই ঘটনার নয় বছর পর ইরাকের সাধারণ নির্বাচনে প্রার্থীও হন তিনি।

 

৬# ২০০৯ সালে ইতালির প্রধানমন্ত্রী সিলভিও বার্লুসকোনির দিকে মিলানের ক্যাথেড্রাল চার্চ ডুওমোর খেলনা স্ট্যাচু নিক্ষেপ করা হয়। এটি অবশ্য একেবারে সাদাসিধে আক্রমণ ছিল না। খেলনা স্ট্যাচুর আঘাতেই মন্ত্রীমশাইয়ের নাকের হাড়ে ফ্র‍্যাকচার হয় এবং দুটি দাঁত ভেঙ্গে যায়।


৭# ২০১০ সালে আমেরিকার ফিলাডেলফিয়ায় র‍্যালির সময় এক ব্যক্তি তৎকালীন মার্কিন রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামার দিকে একটি বই ছুঁড়ে মারেন। আটকের পর অবশ্য সেই নিক্ষেপকারী বলেন তার কোন ক্ষতি করার ইচ্ছা ছিল না। বইটি তিনি ছুঁড়েছিলেন যেন ওবামা সেটা পড়েন। কেননা বইয়ের লেখক ছিলেন স্বয়ং সেই নিক্ষেপকারীই।


৮# ২০১২ সালের ২৩ জানুয়ারি ভারতের উত্তরখণ্ড রাজ্যের বিকাশনগরে এক জনসভায় ভাষণ দেওয়ার সময় রাহুল গান্ধীর দিকে জুতা ছুড়ে মারেন এক ব্যক্তি। তবে সেই জুতা মঞ্চ পর্যন্ত পৌঁছাতে পারেনি। প্রচেষ্টা সফল না হলেও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের হাতে গ্রেপ্তার হতে হয় তাকে। এ সময় পুলিশের উদ্দেশে রাহুল বলেন, ‘ওই ব্যক্তিকে ছেড়ে দিন। আমার প্রতি তাকে আরও জুতা নিক্ষেপ করতে দিন।’ জুতা নিক্ষেপকারীর উদ্দেশে ঠান্ডা গলায় রাহুল বলেন, ‘মারো মারো, আরও জুতা মারো।’


৯# ২০১২ সালে ম্যাসাচুসেটসের সাবেক গভর্নর ও রিপাবলিকান দল থেকে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী মিট রমনির উপর গ্লিটারের বোমা মারেন ইউনিভার্সিটি অফ কলোরাডোর এক ছাত্র। কলোরাডোর ডেনভারে একটি বক্তৃতা দেয়ার পর জড়ির হামলায় পড়েন তিনি। এই গ্লিটার বোম সেসব বাজনীতিদদের জন্য ব্যবহার করা হয় যারা এলজিবিটি অধিকারের বিপক্ষে।


১০# ২০১৪ সালের ১০ এপ্রিল লাস ভেগাসের মান্ডালে বে ক্যাসিনোতে বক্তৃতার সময় সাবেক মার্কিন ফাস্ট লেডি ও তৎকালীন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটনের দিকে জুতা ছুড়েছিলেন এক আমেরিকান নারী। উড়ন্ত জুতাটি অবশ্য হিলারির গায়ে লাগেনি। বরং এটাকে কৌতুক হিসেবে গ্রহণ করে পরিস্থিতি সামাল দিয়েছিলেন তিনি।


 

১১# জুতা, কেক, রঙ এসব ছুঁড়ে মারা খুব ‘ক্লিশে’ বলেই কি না গুয়াতেমালায় প্রতিবাদকারীরা বেছে নিয়েছিলেন অন্য এক পন্থা। ২০১৪ সালে গুয়াতেমালার ভাইস প্রেসিডেন্ট রোকসানা বালডেতির উপর ময়দা ফেলা হয়। গুয়াতেমালা সিটিতে বক্তব্য দেয়ার পর এই হামলা হয় তার ওপর।


১২# ২০১৫ সালে ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর মাথায় আম ছুঁড়ে মারা হয়। তিনি যখন আনজুয়াতেগুই শহরে যান তখন এই আম ছুঁড়ে মারা হয় যাতে আবার প্রেসিডেন্টের উদ্দেশে বলা কিছু লেখাও ছিল।


 

১৩# ২০১৬ সালের ২৬ জানুয়ারি ডোনাল্ড ট্রাম্পের দিকে টমেটো ছুঁড়ে মারা হয় লোয়ার একটি র‍্যালিতে।

৬৩৬ পঠিত ... ১৮:১৮, মার্চ ১৮, ২০১৯

আরও eআরকি

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

কৌতুক

রম্য

সঙবাদ

স্যাটায়ার


Top