বাংলাদেশকে সেমিফাইনালে তুলতে বিশ্বকাপের বাকি ম্যাচগুলোতে যাকে সাপোর্ট করবেন

৯৪৭ পঠিত ... ০৩:৩৪, জুন ২৬, ২০১৯

বিশ্বকাপের এখনো বেশ কিছু ম্যাচ বাকি। বাংলাদেশের সামনে মাত্র দুটি ম্যাচ, প্রতিপক্ষ ভারত এবং পাকিস্তান। বাংলাদেশের ইতিহাসের সর্বকালের সেরা দল নিয়ে বিশ্বকাপ খেলতে যাওয়া মাশরাফিবাহিনী খেলছেও দারুণ। কিন্তু বৃষ্টিভাগ্য আর দুয়েকটা ক্লোজ ম্যাচ হেরে যাওয়ার কারণে দু ম্যাচ বাদেই থেমে যেতে পারে টাইগারদের বিশ্বকাপযাত্রা। প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ ক্রিকেটের সেমিফাইনালে যেতে হলে বাংলাদেশকে তাই জয়ের পাশাপাশি অন্যান্য ম্যাচের ফলাফলের দিকেও তাকিয়ে থাকতে হবে। 

বিশ্বকাপের মাঝামাঝি এক পর্যায়ে যদিও মনে হচ্ছিল, পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ চারই সেমিফাইনালে যাচ্ছে, তবে মাঝে কিছু ম্যাচের ফলাফলে ঘুরে যেতে থাকে টেবিলের সমীকরণ। টেবিলে রীতিমত ঝড়ো প্রতিযোগিতা। আর সমীকরণ মেলাতে হিমশিম খেয়ে যাচ্ছেন দর্শকেরা। প্রতি ম্যাচেই তাই অনেকেই বিভ্রান্তিতে পড়ে যান কোন দলের জয়ে বাংলাদেশের সেমির পথ সুবিধা হয়। এই বিভ্রান্তি থেকে দর্শকদের মুক্ত করতে eআরকি নিয়ে এসেছে বিশ্বকাপের লীগ পর্বের বাকি ম্যাচগুলোর গাইডলাইন।

*২৫ জুন, ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচ পর্যন্ত।

পয়েন্ট টেবিলটা দেখলেন নিশ্চয়ই? যে দুটি দলের সম্ভাব্য পতন আশা করা যায়, সেই দুটি দল হচ্ছে নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ড। তবে হারতে হারতে জিতে গিয়ে এবং ভারতের বিপক্ষে ম্যাচটিতে বৃষ্টির সুবিধা পেয়ে ৬ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে নিউজিল্যান্ড বেশ সুবিধাজনক অবস্থানে আছে। তার উপর নেট রান রেটে খুব সুবিধাজনক অবস্থানে থাকায়, সেমিফাইনালের আগে তাদের বাদ পড়াটা কষ্টকর বৈকি। তাই সামনে সব কঠিন ম্যাচ থাকা ইংল্যান্ডের বাদ পড়ার ব্যাপারেই আশা করা নিরাপদ।

পাশাপাশি বাংলাদেশের সাথে উপমহাদেশের দুই দল শ্রীলংকা এবং পাকিস্তানও বেশ সম্ভাবনা জাগিয়ে রেখেছে সেমিফাইনালের। তাই এই দুই দলের ব্যাপারেও থাকতে হবে সতর্ক। সে যাই হোক, বাংলাদেশের এমন জটিল পরিস্থিতিতে নিশ্চয়ই দেখেশুনে সাপোর্ট করতে হবে। আসুন, আমরা ব্যাপারটা একটু বুঝে নিই, সেমিফাইনালের আগ পর্যন্ত ম্যাচগুলোতে কাকে সাপোর্ট করতে হবে! 

 

 

২৬ জুন : নিউজিল্যান্ড-পাকিস্তান

 সাপোর্ট করবেন: নিউজিল্যান্ড

নিউজিল্যান্ডকে সেমিতে ধরে এই ম্যাচটিতে আপনি মনেপ্রাণে তাদেরই সমর্থন করুন। এতে করে পাকিস্তান পৌঁছাতে পারবে না ৭ পয়েন্টে, আর বাংলাদেশের পথ থেকে পাকিস্তান নামক কাঁটাটি সরে যাবে এবারের মতন। তাছাড়া ম্যাককালাম ওরফে কালাম ভাই আমাদের আপনজন। তার দলকে আমরা সাপোর্ট করবো না তো কে করবে?

 

 

২৭ জুন : ওয়েস্ট ইন্ডিজ- ভারত

সাপোর্ট করবেন: একজন জিতলেই হইছে। ইন্ডিয়া জিতলে সেফ।

এই ম্যাচে সমর্থন নিয়ে তেমন মাথা না ঘামিয়ে সুন্দর ক্রিকেট উপভোগ করুন। প্রত্যাশা করুন, ক্যারিবিয়ান ক্যালিপসোর ছন্দে যেন ব্যাট হাতে মেতে উঠতে পারে উইন্ডিজরা। আর ভারতের চমৎকার ব্যাটিং লাইনআপের কাছ থেকে দেখার প্রত্যাশা রাখতে পারেন ধ্রুপদী ব্যাটিংয়ের।

 

 

২৮ জুন : শ্রীলংকা- দক্ষিণ আফ্রিকা

সাপোর্ট করবেন: দক্ষিণ আফ্রিকা

এবারে বিশ্বকাপে চোকিংয়ের দায়িত্ব সফলভাবে পালন করার পাশাপাশি ‘লুজার’ হিসেবেও নিজেদের প্রতিষ্ঠা করা দক্ষিণ আফ্রিকার প্রতি রাখুন পূর্ণ সমর্থন। যে শ্রীলংকার বিপক্ষের ম্যাচটি বৃষ্টিতে ভেসে যাওয়ায় বাংলাদেশকে করতে হচ্ছে এতো হিসাব নিকাশ, সেই শ্রীলংকার হারই আমরা কেবল কামনা করতে পারি। 

 

 

২৯ জুন : পাকিস্তান-আফগানিস্তান, নিউজিল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া

সাপোর্ট করবেন: কাউকেই না, ইগ্নোর করেন নাইলে উপভোগ করেন।

এই দিনটিতে দুটো ম্যাচ থাকলেও বাংলাদেশের ভাগ্য নির্ধারণ করার মতো ম্যাচ এখানে নেই। প্রথম ম্যাচটিতে আফগানিস্তানের সমর্থন করাটা স্বাভাবিক হলেও, একটি ম্যাচও জিততে না পারা আফগানরা পাকিস্তানকে হারিয়ে দেবে এমনটা ভাবা একটু বেশিই। আবার আগের ম্যাচে যদি পাকিস্তান হেরেই যায়, সেক্ষেত্রে এই ম্যাচটি পাকিস্তানের জন্য একটি সান্ত্বনার ম্যাচ ছাড়া কিছুই নয়। 

আর দক্ষিণের প্রতিবেশী দুল দল সেমিফাইনালে প্রায় চলেই যাওয়ায়, এই ম্যাচের ফলাফলেও যাবে আসবে না তেমন কিছু! মন দিয়ে দুই পেস অ্যাটাক সমৃদ্ধ দলের সুন্দর ক্রিকেট উপভোগ করুন।

 

 

৩০ জুন: ইংল্যান্ড-ভারত

সাপোর্ট করবেন: ভারত

এবার একটি গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ। সকল কারিশমা দিয়ে বাজি ধরতে হবে ভারতের পক্ষে। কোনভাবেই জিততে দেওয়া যাবে না ইংলিশদের। যে ইংলিশরা বাংলাসহ পুরো ভারতবর্ষে শত শত বছর ধরে চালিয়েছে শোষণ আর নিপীড়ন চালিয়েছে, সেই ইংলিশদের রুখে দিতে হবে। দূর করতে হবে ইংলিশের কাঁটা...

 

 

১ জুলাই : শ্রীলংকা-ওয়েস্ট ইন্ডিজ

সাপোর্ট করবেন: ওয়েস্ট ইন্ডিজ

আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ। আপনাকে সমর্থন করতে হবে উইন্ডিজদের। আগের ম্যাচে যদি শ্রীলংকা আমাদের বিরোধীতা সত্ত্বেও জিতে যায়, সেক্ষেত্রে এই ম্যাচে তাদের হারতেই হবে। ক্যারিবিয়ানরা যাতে এই ম্যাচে ৫০০ রান করে লংকান মনোবল একেবারে ভেঙেচুরে দেয়, সেই উদ্দেশ্যেই সমর্থন করুন তাদের।  

 

 

২ জুলাই : বাংলাদেশ-ভারত

সাপোর্ট করবেন: এইটাও কি বলে দিতে হবে?

কাউকেই বলে দিতে হবে না, কাদের সমর্থন করতে হবে। এই ম্যাচে আকুণ্ঠ সমর্থন ছিনিয়ে আনতে পারে বিজয়। আর সেই বিজয়ই আমাদের নিয়ে যাবে পরবর্তী ম্যাচগুলোর দিকে। 

 

 

৩ জুলাই : ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ড

সাপোর্ট করবেন: আবারো নিউজিল্যান্ড। গুড লাক কালাম ভাই!

ধরে নিন ভারতের বিপক্ষে জিতে বাংলাদেশ তখনো সেমির লড়াইতে টিকে আছে, তাহলে এই ম্যাচে অবশ্যই, অবশ্যই এবং অবশ্যই সমর্থন করতে হবে নিউজিল্যান্ডকে। ইংল্যান্ডকে উঠে দাঁড়ানোর কোন সুযোগ দেওয়া যাবে না। তাদের কোমর ভেঙে দিতে হবে এই ম্যাচের মাধ্যমে। এই ম্যাচটিই বিশ্বকাপে ব্রেক্সিটের দরজা খুলে দিতে পারে...

 

 

৪ জুলাই : আফগানিস্তান-ওয়েস্ট ইন্ডিজ

সাপোর্ট করবেন: সাপোর্টের দরকার নাই, জাস্ট ওয়েস্ট ইন্ডিজের খেলা দেখেন।

এই ম্যাচটি নিয়ে একদমই চিন্তা করবেন না। আশা করবেন উইন্ডিজরা যাতে শুরুতে ব্যাটিং করে সবাইকে এক অসাধারণ খেলা এবং আফগানদের রানের পাহাড় উপহার দেয়। বিশ্বকাপে এখনো হয়নি কোন চারশ। এই ম্যাচটিই হতে পারে সেই দিন।

 

 

৫ জুলাই : পাকিস্তান-বাংলাদেশ

সাপোর্ট করবেন: আবার জিগায়!

ভারতের বিপক্ষে জিতে গেলে বাংলাদেশের জন্য এই ম্যাচটি সেমিফাইনালে যাওয়ার আগের একটি ‘সেমিফাইনাল’। আগের দুটি ম্যাচে যদি পাকিস্তান জিতেও যায়, তাতেও কিছু যায় আসে না। এই ম্যাচটি আমাদের জিততেই হবে। মানে বুঝেনই তো, জিততেই হবে! 

 

 

৬ জুলাই : শ্রীলংকা-ইন্ডিয়া, অস্ট্রেলিয়া-সাউথ আফ্রিকা

সাপোর্ট করবেন: ভারত, অন্য ম্যাচ দুধভাত।

সেমিফাইনালের আগে শেষ দিনের খেলা। দিনের প্রথম ম্যাচে খেয়াল রাখতে হবে শ্রীলংকার প্রতি। আগের ম্যাচ দুটিতে যদি তারা কোন কারণে জয় পেয়েও যায়, সেদিক দিয়েও এই ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে তাদের হার তাদেরকে চিরতরে এই বিশ্বকাপ থেকে বিদায় করে দিবে। সুতরাং, ভারতরে সমর্থন দিতেই হবে, উপায় নাই। 

আর ইয়ে, অস্ট্রেলিয়া-দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচটি শুধুই উপভোগ করুন!  তবে ওয়ার্নার আর ফিঞ্চ বেশি রান না করতে পারলেই ভালো। 

 

চলুন তবে বাংলাদেশকে সেমিফাইনালে নিয়ে যেতে যাকে যে ম্যাচে জেতানো দরকার, তাকে সাপোর্ট করে জিতিয়ে দিয়ে দেশ জাতির জন্য অবদান রাখি! যারা কুফা, এসব ম্যাচে এই দলগুলোকে সাপোর্ট করবেন না যেন...

৯৪৭ পঠিত ... ০৩:৩৪, জুন ২৬, ২০১৯

Top