গেম অফ থ্রোনস এভাবে শেষ না হয়ে আরও যে ৫টি উপায়ে শেষ হতে পারতো

২১২ পঠিত ... ১৫:৫৭, মে ২১, ২০১৯

শেষ হয়ে গেছে বিশ্বজুড়ে ভক্তদের কাছে 'বেস্ট শো অন আর্থ' গেম অফ থ্রোনস। গত ১৯ মে রবিবার (আমেরিকার সময়ে) রাতে টেলিকাস্ট করা হয় জনপ্রিয় এই সিরিজের শেষ পর্ব, যা টরেন্ট জগতের সৌজন্যে এতক্ষণে দেখে ফেলেছে বিশ্বের আনাচে কানাচে ছড়িয়ে থাকা ভক্তরা। যারা এখনো দেখেননি, তাদের অনেকেই স্পয়লারের ভয়ে নরেন্দ্র মোদীজির মতো ঢুকে বসে আছেন গুহায়। 'গট'-এর শেষ সিজনের গল্প নিয়ে হতাশ সারা বিশ্বের অধিকাংশ গটভক্ত, অধিকাংশই জনপ্রিয়তার শীর্ষে থাকা এই সিরিজটির শেষ পরিণতি মেনে নিতে পারছেন না। সিজন এইট পুনঃনির্মাণের দাবিতে অনলাইনে চলছে হইচই।

সে যাই হোক, প্রতি এপিসোডের পরেই সামনের গল্প নিয়ে নানান থিওরি ও গবেষণার জন্ম দেয়া এই সিরিজটিকে শেষ তো হতেই হতো। কিন্তু আরও কীভাবে শেষ হতে পারতো গেম অফ থ্রোনস? শেষ সিজন পর্যন্ত কাহিনীর যা অবস্থা, সেই আলোকে গেম অফ থ্রোনসের আরও পাঁচ রকমের শেষ ভেবেছে eআরকির 'শেষ খেলা' গবেষক দল!

 

১#

জন স্নো দেখবে, ড্যানেরিসকে বিয়ে করলেই তার তার লাভ। রাজ্য, রাণী, ড্রাগন সবই তো তারই। এরপর স্নো একেবারে দুই হাটু একসাথে বেন্ড দ্য নি করে ফেলবে। দুজনের বিয়ে হবে, তারা সুখে সংসার করবে। স্টার্কদেরকে তারা বলবে, 'এই তোমরা বাদ, তোমরা খেলায় নাই, ব্যাট বল ড্রাগন সব আমার।' কেয়ারটেকার হিসেবে মানে চা-টা বানায় দেয়ার কাজে টিরিয়নকে রাখবে। এরপর তারা দুই টারগারিয়েনদের শাসন পুনঃপ্রতিষ্ঠা করবে। মাঝেমধ্যে ড্রাগনের পিঠে চইড়া তারা দেশ ঘুরতে বের হবে, হাওয়ায় হাওয়ায় উড়তে উড়তে খুনসুটি করবে। মাঝেমধ্যে বোরিং লাগলে নিচে তাকিয়ে দেশের মানুষ কেমন আছে দেখবে। কেউ খারাপ থাকলে তাকে আগুনে পুড়িয়ে ছাই বানিয়ে তার দুঃখ-দুর্দশা দূর করবে!

 

২#

টিরিয়নের ভেতরের ল্যানিস্টার লায়ন জেগে উঠবে। সে ড্যানেরিসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করবে। আনসালিড আর্মিকে সে গোজামিল দিয়ে বুঝিয়ে নিজের পক্ষে নিয়ে আসবে। বলবে, 'এই যে দেখো, তোমাদের বি* নাই, আর আমার থাইকাও নাই। আমার বন্ধুরও ছিল না। তাই তোমরা আমারই লোক।' গ্রে ওয়ার্মকে ক্যাস্টারলি রকের লর্ড বানানোর লোভ দেখিয়ে একেবারে সাইজ করে ফেলবে। এরই মধ্যে জানা যাবে, টিরিয়ন আসলে ল্যানিস্টার না। টিরিয়ন হলো জন স্নোর বড় ভাই টেগন টারগারিয়েন। ক্যাস্টারলি রক সেন্ট্রাল হাসপাতালে বাচ্চা এক্সচেঞ্জ হয়ে এই গ্যাঞ্জাম লাগছে! এরপর জন স্নোর সাহায্যে ড্যানেরিসকে যুদ্ধে হারিয়ে টিরিয়ন ওরফে টেগন রাইটফুল কিং হিসেবে সেভেন কিংডম শাসন করবে। জন স্নো হবে হ্যান্ড অফ দ্য কিং। এদিকে সানসার সাথে তো এক দফা বিয়ে হয়েই ছিল, সেই বিয়ে টিরিয়ন পজ থেকে রিজিউম করে ফেলবে। ব্যস, নর্থ-সাউথ সব সেট।

 

৩#

সার্সেই-জেইমি বাইচা আছে, তারা আসলে মরে নাই! তারা দূরে এক ফ্রি সিটিতে গিয়ে নতুন সংসার শুরু করবে। তাদের বাচ্চা হবে, এবং বিশ বছর পর সকলে একত্রে ফিরে এসে ড্যানেরিসের উপ্রে প্রতিশোধ নেবে। এরই মধ্যে ঘটবে নানান তেলেসমাতি। দেখা যাবে, রেড কিপের ম্যাজিক পাথর জেইমির হাতের উপর পড়ে তার কাটা হাত আবার গজায় গেছে। সেই গজায় যাওয়া হাত দিয়েই সে ড্যানেরিসকে খুন করে এবার'কুইনস্লেয়ার' হয়ে যাবে। কিন্তু সমস্যা হবে অন্য জায়গায়, তাদের আসলে একটা বাচ্চা হয় নাই, টুইন হয়েছে, এক ছেলে এক মেয়ে। এবং তাদের স্বভাব চরিত্রও বাপ-মার মতো...

 

৪#

আরিয়া স্টার্ক উরাধুরা যারে পাবে মাইরা ফেলবে। সবাইরে মাইরা একা একা আয়রন থ্রোনে বইসা থাকবে। মাঝে মাঝে চোখ বাইন্ধা একা একা ছুরি-তরবারির কসরত করবে। এরপর চিন্তা করবে, ধুর কি ** করতেছি! এই ভাইবা সে আয়রন থ্রোনে ব্রিয়ান অফ টার্থকে বসিয়ে সব ছেড়েছুড়ে ব্যারাথিওনদের স্টর্মস এন্ডে চলে যাবে। গিয়ে গ্রেন্ড্রিরে বলবে, 'উইল ইউ ম্যারি মি?' গেন্ড্রি বলবে, 'সরি, নট টুডে। তুমি আমার চেয়ে বেটার কাউকে ডিজার্ভ করো।' এরপর আরিয়া রাগ করে গেন্ড্রিকেও মেরে ফেলবে। এরপর ব্রাভোসে ফেরত গিয়ে আবারও 'Valar Morghulis' বলে নিজের বাকি জীবন ফেসলেস গডের প্রতি উৎসর্গ করবে।

 

৫#

ইউরন গ্রেজয়ও আসলে মরে নাই, রাজপথও ছাড়ে নাই। সে ড্যানেরিসকে গিয়ে বলবে, 'ইউ আর মাই কুইন। আগের কুইনকে ব্যাং করেছি, আপনেরেও ব্যাং দিবো।' ড্যানেরিস যেহেতু অনেক ফ্রাস্টেটেড, সে বলবে, ওকে। এই খবর শুনে চেতে যাবে ড্যানেরিসের পুরান প্রেমিক দারিও নাহারিস। সঙ্গে সঙ্গে সে মিরিন থেকে সৈন্য নিয়ে এসে অ্যাটাক দিবে। যুদ্ধ হবে, এরপর আবারও যুদ্ধ। তারপর আবারও কয়েক দফা যুদ্ধ হবে। মারামারি করে ইস্ট-ওয়েস্ট-নর্থ-সাউথ সবাই মইরা যাবে। সিংহাসনে বসবে ড্যানেরিসের ড্রাগন অথবা জন স্নোর উল্ফ ঘোস্ট...

২১২ পঠিত ... ১৫:৫৭, মে ২১, ২০১৯

Top