বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হতে হলে আপনার যে ১০টি যোগ্যতা থাকা জরুরি

১৯৭৭ পঠিত ... ১৯:৩০, এপ্রিল ০২, ২০১৯

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের শিক্ষক নিয়োগের মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেননি এমদাদুল হক। অনার্স এবং মাস্টার্সে প্রাণিবিদ্যা বিভাগে উচ্চ সিজিপিএ নিয়ে প্রথম হয়ে এবং এই বিভাগের প্রথম শিক্ষার্থী হিসেবে প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক পেয়ে তিনি শিক্ষক হবার আবেদন করেছিলেন। ২৭ মার্চ মৌখিক পরীক্ষার দিন পরীক্ষা দিতে যাওয়ার সময় উপাচার্য কার্যালয়ের সামনে থেকে তাকে ‘অপহরণ’ করে দিনভর আটকে রেখে মারধোর করে ছাত্রলীগের কিছু নেতা-কর্মী। পাশাপাশি ৫০০০ টাকা এবং মোবাইল ছিনিয়ে রেখে দেওয়া হয়। পরে এমদাদকে শিবিরের কর্মী আখ্যা দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। পুলিশ সব যাচাই-বাছাই করে তাকে ছেড়ে দেয়। অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী জানিয়েছেন, পুনরায় মৌখিক পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব না। খবর: প্রথম আলো।

অর্থাৎ দেখা যাচ্ছে যে, ডিপার্টমেন্টে রেকর্ড ফলাফল করলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হতেই পারবেন এমন কোন নিশ্চয়তা নেই। পড়ালেখার পাশাপাশি আরও অনেক দিকেই থাকতে হবে স্কিল। পড়ালেখা জানাটা কেবলই দুই আনা। শিক্ষক হবার জন্য প্রয়োজন বাকি ১৪ আনাও। কোন কোন দক্ষতা আপনাকে নিয়োগ পরীক্ষা সফলভাবে দিতে সাহায্য করতে পারে, সেগুলোই ভেবেছে eআরকি। দেখে নিন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক হতে পারার নিনজা টেকনিক।

১# মোটাতাজাকরণ

কোন বিশেষ মহল যেন চাইলেই অপহরণ করে তুলে নিয়ে যেতে না পারে, সে কারণে তারা নিজেদের স্থুল করে তুলতে পারেন। তাহলে এই মোটাতাজা শিক্ষককে অপহরণ করার দায়িত্বের গুরুভার কেউ নিতে চাইবে না। সহজেই তখন তারা পৌছে যেতে পারবেন পরীক্ষা দিতে।

 

২# সব রাস্তাঘাট চেনা

শুধু নির্ধারিত সময়ে পরীক্ষা দিতে গেলেই চলবে না, জানতে হবে কেন্দ্রে যাওয়ার সকল পথ। যে পথ নিয়মিত ব্যবহৃত হয়, তা ব্যবহার করা চলবে না। তাদের বেছে নিতে হবে আনকমন কোন পথ। এমনকি কেন্দ্রে পৌঁছাতে হেলিকপ্টার-প্যরাসুট ইত্যাদির ব্যবহারও করতে পারেন।

 

৩# স্টান্ট ডাবল

বিভিন্ন সিনেমাতে প্রধান শিল্পীদের যদি কোন শারীরিক কসরতের দৃশ্য চিত্রায়ন করতে হয়, তখন তাদের মতো দেখতে বডি ডাবল ব্যবহার করে থাকেন, যাতে করে তাদের কোন প্রকার ক্ষয়ক্ষতির রিস্কের ধারেকাছে না যেতে হয়। আর শিক্ষকরা দেশের ভবিষ্যত। দেশের জন্য তারাও কম গুরুত্বপূর্ণ নন। তাই ইন্টারভিউয়ে যাওয়ার সময় তারা ব্যবহার করতে পারেন স্টান্ট ডাবল। অপহরণ সংক্রান্ত নানা জটিলতা কাটিয়ে উঠার পর আসল প্রার্থী আরামে পৌঁছে যেতে পারবেন পরীক্ষা দিতে।

 

৪# হয়ে পড়ুন ‘লক স্পেশালিস্ট’

চাবি ছাড়াও সেফটিপিন, স্কেল, কাঁচি, সুঁই ইত্যাদি বস্তু দিয়ে তালা খোলার প্রশিক্ষণ নিয়ে রাখুন। এতে করে আপনাকে অপহরণ করে আটকে রাখলেও তালা খুলে বেরিয়ে আসতে পারবেন এবং নিয়োগ পরীক্ষায় উপস্থিত হয়ে যেতে পারবেন।

 

৫# কুংফু-কারাতে এক্সপার্ট

বাংলা সিনেমায় নিশ্চয়ই দেখেছেন চাকরির ইন্টারভিউ দিতে যেতে নায়ককে বাঁধা দিচ্ছে গুণ্ডারা। নায়ক তখন সবাইকে মেরে কেটে বীরের বেশে ইন্টারভিউ দিয়ে চাকরিও বাগিয়ে নিচ্ছেন। তাই আপনিও শিখে নিতে পারেন ‘ফাইটিং’। সেক্ষেত্রে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা দিতে যাবার সময় কেউ আপনাকে অপহরণ করতে চাইলেও, আপনি তাদের পিটিয়ে পাঠিয়ে দিতে পারেন হাসপাতালে।

 

৬# রাজনৈতিক বিচক্ষণতা

সময়ের সাথে সাথে আমরা জানতে পেরেছি, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হতে শুধুমাত্র শিক্ষার যোগ্যতাই একমাত্র বিষয় না। রাজনৈতিক যোগসাযোশও খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এক্ষেত্রে। তাই শিক্ষক হবার স্বপ্ন দেখার আগে সকল ধরনের ক্যালকুলেশন করে নিশ্চিত হয়ে নিন আপনি মাস্টার্স পাশ করতে করতে কোন দলের ছাত্রসংগঠনের হাতে ক্ষমতা থাকবে। একেবারে প্রথম বর্ষ থেকেই তাদের সাথে ‘সহমত’ পোষণ করে যান। রেজাল্ট কিছুটা খারাপ হলেও শিক্ষক হয়ে যেতে পারবেন বলেই আশা করি।

 

৭# ছদ্মবেশ

সিনেমায় আমরা প্রায়ই দেখি পঁচিশ বছরের কেউ অভিনয় করছেন পঁচাত্তর বছর বয়সী চরিত্রে। আবার পঞ্চাশ বছর বয়সী কেউ অভিনয় করছেন আঠারো বছর বয়সের চরিত্রে (জয়া আহসানের কথা বলা হয়নি এখানে)। এর পুরো কৃতিত্বই মেকাআপের। এই মেকআপ কিংবা ছদ্মবেশই আপনাকে বদলে দিতে পারে একেবারেই অন্য এক চরিত্রে। তখন আপনি হয়ত একজন ক্ষমতাসীন ছাত্রনেতার বেশ ধরেই চলে যেতে পারবেন নিয়োগ পরীক্ষা দিতে।  

 

৮# তৈলাক্ত পদ্ধতি

শুনেই ভাবছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বড় কর্তাব্যক্তিসহ ডিপার্টমেন্টের সিনিয়র শিক্ষকদের তেল মারার কথা বলছি! সন্দেহ নেই, শিক্ষক হতে গেলে বায়বীয় তেলের এই ব্যবহার তো আপনার জানতে হবেই। তবে আমরা বলছি জলীয় তেল ব্যবহারের কথা। প্রাচীনকালে সিঁধেল চোরেরা যেভাবে সারা গায়ে তেল মেখে চুরি করতে যেতেন, তেমনি নিয়োগ পরীক্ষা দেওয়ার সময় আপনিও যদি সারা শরীরের তেল মেখে রওনা দেন, তাহলে অপহরণকারীরা আপনাকে ধরতে পারবে না। ছাই হাতে ধরতে আসলেও আপনি মাগুর মাছের চাইতেও দক্ষতার সাথে নিজেকে মুক্ত করে চলে যাবেন।

 

৯# কাবাডি

আমাদের জাতীয় খেলা হলেও ক্রিকেট-ফুটবলের জোয়ারে কাবাডি যেন বিস্মৃতপ্রায় হতে বসেছে। কিন্তু এই খেলার মাঝেই লুকিয়ে আছে শিক্ষক হতে পারার এক গোপন অস্ত্র। শিক্ষক হতে চাওয়ার আগে কাবাডি খেলা শিখে ফেলুন। এতে করে পরীক্ষা দিতে যাওয়ার সময় কেউ আপনাকে অপহরণ করতে আসলে ‘কাবাডি কাবাডি কাবাডি’ বলে আপনি সকল বাঁধা অতিক্রম করে চলে যেতে পারবেন ইন্টারভিউ দিতে।

 

১০# এই সব কিছু যদি আপনার আয়ত্ত্ব থাকে, তবে বিষয়ভিত্তিক লেখাপড়া এবং রেজাল্টের দিকে মন দিতে পারেন। বাকিটা ‘উপরওয়ালা’র ইচ্ছা!

১৯৭৭ পঠিত ... ১৯:৩০, এপ্রিল ০২, ২০১৯

Top