কোচিং বন্ধ হয়ে গেলে শিক্ষার্থীরা স্কুল-কলেজের পড়া না বুঝলে যা কিছু করতে পারে

৩৯১ পঠিত ... ১৫:৩২, জানুয়ারি ২৬, ২০১৯

প্রশ্নপত্র ফাঁস বন্ধে সব ধরনের কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে সরকার। কারণ প্রশ্নপত্র ফাঁসের জন্য বিভিন্ন মহল থেকে কোচিং সেন্টারগুলোকেই ব্যাপকভাবে দায়ী করা হচ্ছে। কোচিং বন্ধ করা হলে প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়া ঠেকানো যাবে কিনা, সেটা খুবই বিতর্কিত বিষয়। কারণ এর আগে প্রশ্নপত্র ফাঁসে বেশিরভাগ অভিযোগই এসেছে প্রেসে কাজ করা কর্মচারী ও এই সিন্ডিকেটের সঙ্গে জড়িত স্বতন্ত্র ব্যক্তিদের উপর। কিন্তু প্রশ্ন হলো, কোচিং বন্ধ হয়ে গেলে শিক্ষার্থীরা তখন কী করবে?

একই ক্লাসরুমের সবাই একই পাঠ অর্থাৎ লেসন একইভাবে বুঝতে পারবে না, সেটাই স্বাভাবিক। আমাদের শিক্ষকদের মানও দিন দিন কমছে। তাই স্কুল কলেজের ক্লাসে কোনো শিক্ষার্থী কোনো বিষয় বুঝতে না পারলে কোচিং কিংবা 'শ্যাডো এডুকেশন'-এর সহায়তা নিতে পারে। কিন্তু সব ধরনের কোচিং বন্ধ হয়ে গেলে, শিক্ষার্থীদের সেই সুযোগ থাকছে না! তাহলে কোনো বিষয় ক্লাসে না বুঝতে পারলে শিক্ষার্থীরা কোথা থেকে সে বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করবে? কোচিং বন্ধ হয়ে গেলে শিক্ষার্থীরা ঠিক কী কী পদ্ধতিতে পাঠ্য বিষয়গুলো বুঝে নিতে পারে, তা ভাবতে বসেছিল eআরকির পার্ট টাইম টিউটর ফুল টাইম আইডিয়াবাজদের দল।

 

 

পদার্থবিজ্ঞান

মহাকর্ষীয় বল সম্পর্কে না বুঝতে পারলে শিক্ষার্থীরা চলে যেতে পারে মাঠে। আপেল গাছ খুঁজে বের করে তার নিচে বসে পড়বে, এরপর আপেল পেকে তার মাথায় পতন হওয়ার আগ পর্যন্ত সে অপেক্ষা করবে। কেননা আপেল পতন থেকেই তো মহাকর্ষের সূত্র আবিষ্কার হয়েছে! মাথায় আপেল পড়ামাত্র শিক্ষার্থী মহাকর্ষ সূত্র বুঝে ফেলবে! বিজ্ঞানী নিউটন পারলে সে পারবে না কেন? অবশ্য আপেল গাছ না পেয়ে নারিকেল গাছের নিচে বসলে হিতে বিপরীত হতে পারে।

 

পরিসংখ্যান

কোনো শিক্ষার্থী পরিসংখ্যানের জটিল সব সমস্যা যদি না বুঝে থাকে, তবে পরিসংখ্যানের বেসিক মজবুত করতে ইন্টারনেটের রেডিও পান্না, ট্রল ৪২০ হাবিজাবি পেজগুলোতে নানা স্ট্যাটিস্টিকস, গবেষণা ইত্যাদি দেখতে পারে। সেখানে বিভিন্ন নামের ছেলেমেয়েরা কেমন হয়, কোন জেলার মানুষ কেমন- এ ধরনের নানা পরিসংখ্যান দেখে যে কেউই হয়ে যেতে পারে স্ট্যাটিস্টিকস গুরু।  

 

ইংরেজি

ইংরেজি ক্লাস ঠিকমতো না বুঝলে কোন টেনশন নেই। এখন প্লে স্টোরেই পাওয়া যায় ১০ মিনিটে ইংরেজি শিখে ফেলার দুর্দান্ত অ্যাপ। এছাড়া বিভিন্ন এফএম রেডিওতে আরজেদের লিংক শুনে দশ মিনিটেই শিক্ষার্থীরা বিপুল ইংরেজি ভোকাবুলারির অধিকারী হয়ে যেতে পারবে।

 

ইতিহাস

ইতিহাসের কাঠখোট্টা তথ্য আর নানা সময়কাল হয়তো মনে রাখতে পারছে না শিক্ষার্থী। এই সমস্যার সমাধানে তারা পাশের বাসার আন্টির কাছে যেতে পারে। তারা বিগত জীবনের সকল কৃতকর্ম, কোন বাসার মেয়ে কোন ছেলের সাথে ঘোরে, কোন বাসার ছেলে কোথায় আড্ডা দেয় ইত্যাদির নাড়িনক্ষত্র জানেন। তাদের কাছে গেলে শিক্ষার্থী ইতিহাস বিনামূল্যে শিখতে পারবে।  

 

রসায়ন

রসায়ন না বুঝলে শিক্ষার্থীরা রিলেশনশিপের কেমিস্ট্রি বা রসায়ন থেকে সেটা বুঝতে চেষ্টা করতে পারে। আর সেজন্য তারা শিক্ষা অর্জনের উদ্দেশ্যে ফ্লার্ট করতে পারে, ফেসবুকে অচেনা প্রোফাইল অ্যাড করার চেষ্টাও করতে পারে। এক্ষেত্রে টিন্ডার হতে পারে আরও কার্যকর এক উপায়। টিন্ডারে প্রচুর রাইট সোয়াপ কেমিস্ট্রিতে দুর্বল শিক্ষার্থীদের জন্য হতে পারে মোক্ষম এক অস্ত্র।

 

হিসাববিজ্ঞান

কমার্স নিয়ে যারা পড়ছে, তাদের জীবনের সবচেয়ে বড় সংকট সম্ভবত হিসাববিজ্ঞান বা একাউন্টিং। বিশাল বিশাল সব হিসাব করেও শেষে গিয়ে উত্তর না মেলার ব্যাপারটা যে কতো কষ্টের তা কমার্সের যেকোনো শিক্ষার্থীমাত্রই জানে। তাই হিসাববিজ্ঞানের সমস্যায় জর্জরিত না থেকে তারা যোগাযোগ করতে পারে স্থানীয় কোন মেস, হল বা হোস্টেলের ডাইনিং ম্যানেজারের সাথে। যেভাবে অনেকগুলো মানুষের মাসকাবারি খাবারের হিসাব তারা মিলিয়ে ফেলতে পারেন, তাতে একাউন্টিংয়ের ডেবিট ক্রেডিট তাদের কাছে একেবারে বাঁ হাতের খেল। তাই ডাইনিংয়ের দায়িত্বে যারা থাকেন, তাদের কাছে ইন্টার্ন করে স্বল্প সময়েই কেউ হয়ে যেতে পারে একাউন্টিংয়ের আইনস্টাইন।  

 

গণিত

জনপ্রিয় শিক্ষামূলক কার্টুন মীনা থেকে আমরা দেখতে পাই, মিনা তার মুরগি গুনার মাধ্যমে ২-এর নামতা প্র্যাকটিস করছিল। তাই গণিত বা অংক (যেটাই বলুন না কেন) ভালোমতো না বুঝলে শিক্ষার্থীরা হাঁস-মুরগি বা অন্যান্য গবাদি পশু চাষ করতে পারে। নিয়মিত এগুলো গণনার মাধ্যমে ম্যাথ প্র্যাকটিসের সাথে সাথে তারা আর্থিক স্বচ্ছলতাও অর্জন করতে পারবে বলে আমরা আশাবাদী।

 

উচ্চতর গণিত

জেনারেল ম্যাথে কোন সমস্যা নেই, কিন্তু হায়ার ম্যাথে অনেক সমস্যা--এমন শিক্ষার্থীর অভাব নেই কোনো। উচ্চতর গণিত নিয়ে ভুগছে এমন কেউ সমস্যা সমাধানে ছুটে যেতে পারে বাংলাদেশ ব্যাংকের ছাদে। বাংলাদেশের দীর্ঘদিনের উচ্চতম ভবনের ছাদে গেলে সাধারণ গণিত হয়ে যাবে উচ্চতর গণিত। সেখানে অনায়াসেই সমাধান করে ফেলতে পারবে তার উচ্চতর গাণিতিক সমস্যা।

 

কৃষি শিক্ষা

হয়তো কৃষি শিক্ষাকে সহজ ভেবে ক্লাসে মনোযোগ দিতে পারেনি একজন শিক্ষার্থী। কিন্তু এখন গরু মোটাতাজাকরণ ও রানীক্ষেত রোগের চিকিৎসা নিয়ে তার জ্ঞান শূন্য! সে এখন কোথায় যাবে? তার এই কৃষি জ্ঞানের অভাব মেটাতে পারে জনপ্রিয় কৃষিবিষয়ক অনুষ্ঠান ‘হৃদয়ে মাটি ও মানুষ’। কৃষি উৎপাদন থেকে শুরু করে মৎস্য, গবাদি পশুপাখি ইত্যাদি সবকিছু নিয়ে এ অনুষ্ঠান দেখেই সে পেয়ে যাবে সম্যক জ্ঞান!

 

বাংলা

বাংলাকে সহজ ভেবে ভেবেই কতশত ছাত্র-ছাত্রী যে বাংলায় এ+ মিস করে ফেলে তার কোন ইয়ত্তা নেই। তাই বাংলার সমস্যা দূর করতে বাজারে প্রচলিত একটি জনপ্রিয় কোমল পানীয়ের শরণাপন্ন হতে পারে। ঐ কোমল পানীয়ের সব বোতলেই একটি করে বাংলা শব্দ থাকে, যা বাংলার ভোকাবুলারি বাড়াতে অনেক সাহায্য করতে পারে। এছাড়াও বাংলা সাহিত্য নিয়ে জানতে নিয়মিত ফেসবুক সাহিত্যিকদের ফলো করা যেতে পারে।

৩৯১ পঠিত ... ১৫:৩২, জানুয়ারি ২৬, ২০১৯

Top