এই নির্বাচনের নতুন ভোটারদের জন্য ১০টি eআরকি-পরামর্শ

১০৫৪ পঠিত ... ১৯:১৪, ডিসেম্বর ২৮, ২০১৮

চলে এসেছে নির্বাচন। প্রতি নির্বাচনের মতো এবারেও আছেন প্রচুর সংখ্যক নতুন ভোটার, সংখ্যায় ৪৩ লাখ ২০ হাজারের মতো (যুগান্তর)। অর্থাৎ প্রথমবার ভোট দিতে যাবে প্রচুর সংখ্যক নতুন ভোটার (এবং গতবারের প্রচুর নতুন ভোটাররাও, থাক সেসব আর না বলি!)। ভোট দেয়ার অভিজ্ঞতা যাদের নেই, তাদের কে দেবে ভোট দেয়ার টিপস? চিন্তা নেই, আছে eআরকি! নতুন ভোটারদের জন্য ১০টি eআরকি-পরামর্শ নিয়ে হাজির আমাদের ভোট গবেষক দল! 

১# পরিবারের মুরুব্বিদের আদেশ মেনে চলুন৷ আপনার পরিবার যাকে ভোট দিয়ে এসেছে, মতের বিরুদ্ধে হলেও তাকেই ভোট দিবেন৷ এতে আপনি যাকে ভোট দেবেন সেই দল যদি হেরে যায় তাহলে পরিবারের সদস্যরা হাসাহাসি করতে পারবে না, আবার জিতে গেলেও পরিবারের অন্য সদস্যদের রোষের মুখে পড়তে হবে না। মনে রাখবেন, যেই দলই জিতুক, থাকতে কিন্তু হবে বাসাতেই!

২# ভোটের দিন সকাল সকাল ঘুম থেকে উঠে পরিবারের বড় সদস্যদের সাথে ভোট দিতে যাবেন। একা ভোট দেয়ার ব্যাপারটা মাথা থেকে ঝেঁড়ে ফেলুন৷ আপনি ভোটার হয়েছেন বলেই ভাববেন না যে যথেষ্ট বড় হয়েছেন৷ একা ভোট দিতে গেলে বাসার অন্য সদস্যরা টেনশনে এতবারই আপনাকে ফোন দেবে, বারবার ফোন আসায় কেন্দ্রের নিরাপত্তাকর্মীরা অন্যরকম কিছু সন্দেহ করতে পারে! সেই ফোনের বিপদ এড়াতে বড় কারো সাথে গিয়ে নিরাপদ থাকাই ভালো!

৩# যেই প্রতীক সুন্দর, ঐ প্রতীকে ভোট দেয়ার অভ্যাস থেকে দূরে সরে আসুন। এসব কেবল নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নোত্তরের যুগে বা বিশ্বকাপে (যাদের পতাকা সুন্দর তাদের সাপোর্ট করা) কাজে দিয়েছে। এটা নির্বাচন, এস.এস.সি পরীক্ষা বা বিশ্বকাপ না৷

৪# যেই দলের সমর্থকই আসুক, আপনি চিনেন বা নাই চিনেন দেখা মাত্রই সালাম দিয়ে 'কী অবস্থা ভাই' বলার চর্চা রাখুন৷ প্রাথমিকভাবে হতাহত হওয়ার সম্ভাবনা থেকে রক্ষা পেতে এই উপায়টি মারাত্মক কাজে দেবে। চাইলে আয়নার সামনে কয়েকবার প্র্যাকটিসও করে নিতে পারেন!

৫# মেয়েরা অবিবাহিত হলেও ভোট দিতে পারবেন। বিয়ের পর স্বামীর সাথে ভোট দিতে যেতে হবে, এমন কোনো নিয়ম নেই।

৬# ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোটারদের লাইনের সামনে দাঁড়িয়ে, বুথে ঢুকে এমনকি ব্যালট পেপার হাতে নিয়ে ভিক্টোরি সাইন দিয়ে সেলফি তুলে সেই সেলফি পোস্ট করতে একদমই ভুলবেন না! তবে কোন প্রতীকে ভোট দিয়েছেন এমন কমেন্ট আসলে রিপ্লাই করা থেকে বিরত থাকুন।

৭# ভোটকেন্দ্রে যদি দেখেন যে কোনো অনিয়ম, কেন্দ্র দখল বা যেকোনো ধরনের দুর্নীতি চলছে, তাহলে দয়া করে ফেসবুক লাইভে যাবেন না বা ফেসবুকে তা নিয়ে কোনো পোস্ট দেবেন না। নির্বাচনের পর গুজব রটানোর কেসে একেবারে ফেঁসে যাবেন বলে দিলাম!

৮# ভোট দিয়ে নিরাপদে বাড়ি ফিরে 'লাইফে ফার্স্ট ভোট' ইভেন্ট যোগ করুন। ভোট নিয়ে আপনার অভিজ্ঞতা ফেসবুকে শেয়ার করে বন্ধুদের জানিয়ে দিন৷ হাতে কালো কালির দাগের ছবি তুলেও ফেসবুকে দেয়া জরুরি। আপনি একজন সুনাগরিক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন, এটা অন্যদের জানাতে হবে না?

৯# আপনার ভোটের অভিজ্ঞতা নিয়ে জুনিয়রদের উদ্দেশে বিশালাকার পোস্ট লিখুন৷ যারা ভোট দেয়নি তাদেরকে ধুয়ে দিন। ভোটাধিকার নিয়ে মোটিভেশনাল পোস্ট লিখতে দেশীয় মোটিভেটরদের ফলো করতে পারেন৷

১০# নির্বাচন শেষে আপনার দল জিতুক বা না জিতুক জয়ী প্রার্থীর ছবিসমেত ফেসবুকে শুভেচ্ছা জানাতে একদমই দেরি করবেন না৷ মনে রাখবেন, এই প্রার্থী আগামী এক যুগও থাকতে পারে৷

১০৫৪ পঠিত ... ১৯:১৪, ডিসেম্বর ২৮, ২০১৮

আরও eআরকি

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

কৌতুক

গল্প

সঙবাদ

স্যাটায়ার


Top