সভ্যতার অগ্রযাত্রায় ব্লাউজ-পূর্ব এবং ব্লাউজ-পরবর্তী যুগের উপাখ্যান

১৪৩৬০ পঠিত ... ১৮:৪৫, ডিসেম্বর ২৪, ২০১৮

পৃথিবী সৃষ্টির শুরুতে মানুষ ছিলো অসভ্য। তারা গুহায় বাস করত। শিকার করে জীবিকা নির্বাহ করত। গায়ে দিত লতাপাতা, ছাল বাকলের তৈরি পোষাক। পুরুষের মত উপরিভাগ উলঙ্গ রাখতো নারীরাও। তারপর পৃথিবীর ইতিহাস আস্তে আস্তে সামনে বাড়লো। প্রস্তর যুগ হয়ে মানুষ পা দিলো তাম্র যুগে। তাম্র থেকে লৌহ। হলো আগুন ও চাকার আবিস্কার। কিন্তু তখনো মানুষ পুরোপুরি সভ্য হয়নি। নারীরা তখনো জানে না, কিভাবে পরিপূর্ণভাবে শরীর ঢেকে লজ্জা নিবারণ করতে হয়। তারা জানতো না, কাপড়ের তৈরি পোশাক কী জিনিস!

তারপর কালের পরিক্রমায় পৃথিবীর ইতিহাসে ক্ষমতায় আসলো আওয়ামীলীগ নামের একটি রাজনৈতিক দল। তারা নারীদেরকে ব্লাউজ দিলো। মানুষ সভ্য হলো পুরোপুরি। খালি গায়ে থাকা লাগলো না আর কোনো নারীর। তারা কাপড়ের তৈরি ব্লাউজ নামক একটি বিখ্যাত পোষাক দিয়ে তাদের উলঙ্গ দেহ ঢাকলো। যে পোশাকটি, 'নৌকায় ভোট দিন, ঘরে ঘরে ব্লাউজ নিন' পোশাক নামেও পরিচিত।

পোশাকের উপর ভিত্তি করে ঐতিহাসিকগণ পৃথিবীর সভ্যতাকে চারটি যুগে ভাগ করেছেন, যথা- প্রস্তর যুগ, তাম্র যুগ, লৌহ যুগ এবং আওয়ামী যুগ। প্রথম তিনটি যুগকে ব্লাউজপূর্ব এবং আওয়ামী যুগকে ব্লাউজ পরবর্তী যুগ নামেও বিভিন্ন গ্রন্থে উল্লেখ করা হয়।

ব্লাউজ পরবর্তী যুগকেই মূলত নৃবিজ্ঞানীরা আধুনিক যুগ হিসেবে চিহ্নিত করেছেন। তবে মূলত রবীন্দ্রনাথের বড় বৌদি সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুরের স্ত্রী, জোড়াসাঁকোর যুবলীগ নেত্রী জ্ঞানদানন্দিনী দেবীর হাত ধরেই প্রাত্যহিক বাঙ্গালিয়ানায় ব্লাউজের অনুপ্রবেশ!

জ্ঞানদানন্দিনী দেবীর ফেসবুক টাইমলাইনে পুরোনো স্ট্যাটাস ঘেটেও এ সংক্রান্ত কিছু তথ্য উদ্ধার করা যায়। মিছিল এবং নির্বাচনী প্রচারণায় যাওয়ার আগে তিনি লীগের জুনিয়র নেতা-নেত্রীদের ব্লাউজ পরতে উদ্বুদ্ধ করেন। এভাবেই সভ্যতার অগ্রযাত্রায় রচিত হয় নতুন এক মাইলফলক- ব্লাউজ!

১৪৩৬০ পঠিত ... ১৮:৪৫, ডিসেম্বর ২৪, ২০১৮

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

রম্য

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি


Top