১৪ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশের সবকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হতে যাচ্ছে রেকর্ডসংখ্যক এক্সট্রা ক্লাস

২১৮৯ পঠিত ... ২১:২৩, ফেব্রুয়ারি ০৬, ২০১৯

১৪ ফেব্রুয়ারি আসন্ন ভালোবাসা দিবসে প্রায় প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই এক্সট্রা ক্লাস, মেকআপ ক্লাস এবং বিভিন্ন রকমের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে বলে খোঁজ পাওয়া গিয়েছে। এ নিয়ে শিক্ষার্থী মহলে ব্যাপক আগ্রহ, উদ্দীপনা লক্ষ্য করা গেছে৷ সাধারণত ছাত্র-ছাত্রীরা এসব এক্সট্রা ক্লাসের ঘোর বিরোধী হলেও ভালোবাসা দিবসের মত বিশেষ দিনে এক্সট্রা ক্লাসকে কেন এত উৎসাহের সাথে গ্রহণ করছে, সেটি নিয়েও বিভিন্ন মহলে সৃষ্টি হয়েছে চাঞ্চল্যের।

দেশের শীর্ষ সারির একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে গেলে সেখানকার শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে মিশ্র প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়৷ তবে একাধিক প্রেমিক যুগলের সাথে কথা বলে ঘটনার সত্যতা সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া গেছে। বাসায় প্রেমের কথা জানে না এমন এক তরুণী নাম এবং বক্তব্য প্রকাশের অনিচ্ছা প্রকাশ করে জানান, ‘সাধারণত এক্সট্রা ক্লাস এক-দেড় ঘন্টার বেশি লম্বা হয় না, তবে ১৪ তারিখ ছয়-সাত ঘন্টা ধরেও এক্সট্রা ক্লাস চলার সম্ভাবনা দেখছি। আশা করছি রাত ৯টার মধ্যে এক্সট্রা ক্লাস শেষ করে বাসায় ফিরতে পারবো।’

মেয়েদের একটি হলের সামনে অপেক্ষমান আরেক তরুণ eআরকি প্রতিনিধিকে বলেন ‘ভালোবাসা দিবসের এক্সট্রা ক্লাসে আমরা পড়ালেখার সাথে আমাদের হারিয়ে যাওয়া ভালোবাসা পুনরুদ্ধার করে নিব বলেই আমি আশাবাদী।’

এক্সট্রা ক্লাসকে সামনে রেখে শিক্ষার্থীদের মাঝে ব্যাপক প্রস্তুতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সরেজমিনে শাহবাগের ফুলের দোকানগুলোতে গিয়ে এখনই উল্লেখযোগ্য ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। ফুলের বিক্রি বেড়ে যাওয়ায় হাসি ফুটেছে বিক্রেতাদের মুখেও। এছাড়াও গিফট শপ এবং কার্ডের দোকানগুলোতেও শিক্ষার্থীদের ভিড় বেড়েছে বলে বিক্রেতারা জানিয়েছে।

‘নিখিল বঙ্গ সিঙ্গেল শিক্ষার্থী কল্যাণ পরিষদ’এর পক্ষ থেকে অবশ্য এই দাবিকে কল্পনাপ্রসূত বলে উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। এই সংগঠনের অন্যতম মুখোপাত্র eআরকিকে বলেন ‘আপনারা বুঝতে পারছেন না যে এটি ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। মা-বাবার চোখে ধুলো দিয়ে প্রেম করার জন্যই ছেলেমেয়েরা এই অপপ্রচার চালাচ্ছে। অথচ আমাদের সত্যিকারের এক্সট্রা ক্লাস হলেও সবাই আমাদের সন্দেহ করে। মিডিয়ার মাধ্যমে আপনারা এসব সবাইকে জানিয়ে দিন।’ তবে সিঙ্গেল কল্যাণ পরিষদের বিবৃতির বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন যুগলরা। উল্টো তাদের বিবৃতিকে অপপ্রচার আখ্যা দিয়ে প্রেস রিলিজ প্রকাশ করেছে যুগলদের একটি নবগঠিত সংগঠন। বাবা-মায়েদের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানিয়ে তারা বলেছে ‘আপনার সন্তানদের এক্সট্রা ক্লাসে পাঠান।’

শুধু বিশ্ববিদ্যালয়েই নয়, বিভিন্ন স্কুল কলেজের ছাত্রছাত্রীদের কাছ থেকেও এমন তথ্য পাওয়া গেছে। প্রায় প্রতিটি কলেজেই এদিন সন্ধ্যা পর্যন্ত ল্যাব থাকবে বলে বিভিন্ন সূত্র নিশ্চিত করেছে।

২১৮৯ পঠিত ... ২১:২৩, ফেব্রুয়ারি ০৬, ২০১৯

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

রম্য

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top