জি বাংলা ছেড়ে জিটিভি দেখছে পাশের বাসার আন্টি সমিতি

২৩৪৬ পঠিত ... ২০:২১, জানুয়ারি ১০, ২০১৯

eআরকির টেলিভিশন বিশেষজ্ঞদের একটি গবেষণা থেকে জানা গেছে, বিপিএল শুরু হওয়ার পর থেকেই টিআরপি কমে গেছে স্টার জলসা আর জি বাংলার। কী এর পেছনের কারণ? তবে কি ঐ দুই চ্যানেলের সিরিয়ালগুলোর নিয়মিত দর্শকরা এখন বিপিএল দেখছেন?

অনুসন্ধানের জন্য ঝাপিয়ে পড়েছিলো eআরকির বিশেষ টিআরপি গবেষক দল। তাদের অনুসন্ধানে বের হয়ে এসেছে এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। 'পাশের বাসার আন্টি' নামক আমাদের অতি পরিচিত একদল গোয়েন্দা প্রজাতি আছে। যাদের মূল ইনভেস্টিগেশনের বিষয় হলো অমুকের মেয়ে স্কুলে না গিয়ে কই যায়, অমুকের ছেলে কার সাথে প্রেম করে। এই গোয়েন্দা বাহিনীর অনেকেই এতদিন স্টার জলসা আর জি বাংলা দেখে তাদের অবসর কাটাতেন। কিন্তু তারা এখন এসব সিরিয়াল বাদ দিয়ে দেখছেন দেশীয় চ্যানেল জিটিভি। গাজী টিভি অর্থাৎ জিটিভিতে খেলা চলাকালে গ্যালারিতে বসে থাকা কাপলদেরকে আইডেন্টিফাই করতেই তারা এমন পদ্ধতি অবলম্বন করছেন বলে জানা যায়।

এ ব্যাপারে জিটিভি কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়ে এক আন্টি বলেন, 'জিটিভির জন্য আমাদের কাজ অনেক সহজ হয়ে গেছে। আগে আমরা রোদে পুড়ে বৃষ্টিতে ভিজে রাত নেই দিন নেই পাশের বাসার ছেলে মেয়েকে ফলো করে করে বহু কষ্টে জানতে পারতাম তারা কার সাথে প্রেম করে। অথচ জিটিভি আমাদের কষ্ট কমিয়ে দিয়েছে পুরোপুরি। এখন আমি ঘরে বসেই আমার গোয়েন্দাগিরি সম্পন্ন করতে পারি। জিটিভি ইজ লাভ।'

আরেকজন আন্টি বলেন, 'আমি এই কাজে খুব কাঁচা ছিলাম। আমার পাশের বাসার অন্যান্য ভাবীরা যেখানে সপ্তায় অন্তত দুইটা কাপল ধরে তাদের বাসায় নালিশ দিতে পারত, সেখানে আমি মাসেও একটা কাপল ধরতে পারতাম না। ভাবী সমাজে আমার মুখ দেখানোর অবস্থা ছিলো না। গোয়েন্দা হিসাবে রেটিং কমে যাচ্ছিল। আমি যখন লাইফ নিয়ে একেবারে হতাশ, তখনই এক শুভাকাঙ্ক্ষীর মাধ্যমে খবর পাই জিটিভির। তারপর আমি জিটিভির সাহায্য নিয়ে বিশ্বাস করবেন না এক দিনে তিনটা কাপল ধরে তাদের বাসায় নালিশ দিয়ে এসেছি। গোয়েন্দা হিসাবে ভাবীমহলে আজ আমি সফল। আর এর সব
ক্রেডিট জিটিভির। ধন্যবাদ জিটিভি।'

এ বিষয়ে সেই জিটিভির একজন ক্যামেরাম্যান জানালেন তার অনুভূতি, 'বিপিএলের যা অবস্থা, ক্রিকেটপ্রেমীরা এমনিই টিভি দেখে না। তাই আমরা খেলার চেয়ে কাপলদেরকে ক্যামেরায় দেখানোর দিকেই "ফোকাস" বেশি করছি। এতে করে আংকেল-আন্টিরাও যেমন নিজের এবং অন্যের ছেলেমেয়েরা কার সাথে খেলা দেখতে গেছে তা জানতে পারছে, তেমনি যুবপ্রজন্মও নিজের বয়ফ্রেন্ড-গার্লফ্রেন্ডের উপর ঘরে বসেই নজর রাখতে পারছে।'

তবে বিপাকে পড়েছে বিপিএলের ম্যাচগুলোর স্টেডিয়াম কর্তৃপক্ষ। হতাশা প্রকাশ করে মিরপুর স্টেডিয়ামের এক কর্মকর্তা জানান, 'সবাই শুধু টেলিভিশনেই খেলা দেখতে চাচ্ছে, জিটিভির ক্যামেরাম্যানদের ভয়ে কেউই গ্যালারিতে আসতে চাচ্ছে না।' মূলত এ কারণেই প্রতি ম্যাচে দর্শক গ্যালারি ফাঁকা থাকছে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করে তিনি।

২৩৪৬ পঠিত ... ২০:২১, জানুয়ারি ১০, ২০১৯

জনপ্রিয় eআরকি

টাটকা eআরকি

লোডিং...

আইডিয়া

গল্প

রম্য

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top