মোরশেদ মিশুর 'গ্লোবাল হ্যাপিনেস সিরিজ' পেলো উন্মাদ কার্টুন পুরস্কার

১৫৪০পঠিত ...১৭:৩৮, জুলাই ১০, ২০১৮

মাসিক কার্টুন পত্রিকা উন্মাদের ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে গত ৫ থেকে ৯ জুলাই ধানমন্ডির দৃক গ্যালারিতে হয়ে গেলো 'উন্মাদ উৎসব'। কার্টুন প্রদর্শনী, কার্টুন প্রতিযোগিতা ছাড়াও উৎসবের পাঁচ দিন জুড়ে ছিল নানান আয়োজন। দেশব্যাপী কার্টুনিস্টদের পাঠানো হাজারো কার্টুনের মধ্যে ৮০ জন কার্টুনিস্টের প্রায় ২০০টি কার্টুন নিয়ে চলে এই প্রদর্শনী। উৎসবের শেষ দিনে ঘোষণা করা হয় প্রদর্শিত কার্টুনগুলোর মধ্য থেকে পুরস্কারজয়ী তিন কার্টুনিস্টের নাম। প্রতিযোগিতায় প্রথম পুরস্কার জিতে নিয়েছেন মোরশেদ মিশু তার 'গ্লোবাল হ্যাপিনেস চ্যালেঞ্জ' সিরিজের জন্য।

উন্মাদের কার্টুন প্রতিযোগিতায় প্রথম পুরস্কারজয়ী মোরশেদ মিশু, তার 'দ্য গ্লোবাল হ্যাপিনেস চ্যালেঞ্জ' কার্টুন সিরিজটি প্রদর্শিত হয় উন্মাদের ৪০ বছর পূর্তি উৎসবে।

মিশু তার 'গ্লোবাল হ্যাপিনেস চ্যালেঞ্জ' সিরিজটি আঁকতে শুরু করেছিলেন মূলত চলমান পৃথিবীর নানান যুদ্ধ-বিগ্রহ, সংঘাতে আহত ও নিহত মানুষদের নির্মমতা দেখার পর কষ্টের অনুভূতি থেকে। যুদ্ধাক্রান্ত নির্দোষ মানুষেরা যদি সংঘাতের মুখোমুখি না হতেন, তাহলে তাদের মুহূর্তগুলো হতো তেমনই আনন্দঘন যেমন জীবন মানুষের প্রাপ্য। কেমন হতে পারতো সেই ছবিগুলো? তাই আঁকতে চেষ্টা করেছেন তিনি।

প্রতিযোগিতায় 'ফার্স্ট' হওয়া প্রসঙ্গে মোরশেদ মিশু একজন খাঁটি উন্মাদের মতোই জানান তার প্রতিক্রিয়া, 'নোবেল কিংবা পুলিৎজার পেলেও এত খুশি লাগতো না, উন্মাদ অ্যাওয়ার্ড পাওয়াতে যে পরিমাণ খুশি লাগছে! জীবনে কখনো কিছুতে ফার্স্ট হইনি... এবারই জীবনে প্রথমবার ফার্স্ট হলাম! জ্বি ধন্যবাদ!'

গ্লোবাল হ্যাপিনেস চ্যালেঞ্জ সিরিজটির ভাবনা এলো কীভাবে? জানালেন মিশু, 'মধ্যপ্রাচ্যের যুদ্ধে আক্রান্ত মানুষের ছবিগুলো মাসখানেক আগে ফেসবুকে হঠাৎ বেশি ছড়িয়ে পড়েছিলো... ছবিগুলো এতটাই মর্মান্তিক যে দেখতে পারতাম না, এড়িয়ে যেতাম। কিন্তু চোখ এড়িয়ে গেলেও, মাথায় থেকে যেতো! এমন ছবি আমি কেন, কেউই দেখতে চায় না! এক রাতে ঘুমাতে পারছিলাম না... মনে হলো কিছু একটা করা দরকার। তখন চিন্তা করলাম, এই ছবি আমি দেখতে চাই না... তাহলে কী দেখতে চাই? দেখতে চাই হাসিমুখ... সেই চিন্তা থেকেই প্রথম ছবিটা আঁকা। আঁকা শেষে অনিক ভাইকে (ছড়াকার অনিক খান) নক করলাম সিরিজটার একটা নাম আর দুই লাইন ছড়ার জন্য। ‘দি গ্লোবাল হ্যাপিনেস চ্যালেন্জ’ নামটা অনিক ভাইয়েরই দেয়া, সেই সাথে 'আমি শুধু আঁকতে জানি, কষ্টগুলো ঢাকতে জানি' ছড়ার এ লাইন দুটোও তিনি দেন। পরবর্তী সময়ে এই পুরো সিরিজটার মেনটর হিসেবে অনিক ভাইকে পাশে পেয়েছি সবসময়!'

পুরস্কার নিশ্চয়ই কম পাননি। কিন্তু 'নিজের পরিবার' (মিশু উন্মাদের সহকারী সম্পাদক) মানে উন্মাদ থেকে পাওয়া স্বীকৃতি নিশ্চয়ই সবকিছুর চেয়ে আলাদা? মিশুও বললেন এমন কিছুই, 'গ্লোবাল হ্যাপিনেস চ্যালেন্জের জন্য অগণিত মানুষের ভালোবাসা পেয়েছি। এবার পেলাম উন্মাদ থেকে ভালোবাসা। এখন শুধু চাই, যুদ্ধ থামুক... আঁকা ছবিগুলোর মত হোক পৃথিবী! জ্বি ধন্যবাদ...'

মোরশেদ মিশুর এই 'দ্য গ্লোবাল হ্যাপিনেস সিরিজ'-এর ছবিগুলো দেয়া হলো eআরকির পাঠকদের জন্য-

 

১#

 

২#

 

৩#

 

৪#

 

৫#

 

৬#

 

৭#

 

৮#

১৫৪০পঠিত ...১৭:৩৮, জুলাই ১০, ২০১৮

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
    আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

    আইডিয়া

    গল্প

    রম্য

    সাক্ষাৎকারকি

    স্যাটায়ার

    
    Top