স্যাটেলাইট মেজর জিয়ার স্বপ্ন ছিল বলেই সরকার প্রথমবারে সেটা মহাকাশে পাঠায়নি: বিএনপি

১৯৪৪পঠিত ...১৯:০৫, মে ১১, ২০১৮

অনেক প্রতীক্ষার পর দেশের প্রথম স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ যখন কেবল মাত্র সময়ের ব্যাপার, তখনই যান্ত্রিক জটিলতার কারণে স্থগিত হয় স্যাটেলাইটের উৎক্ষেপণ। আবহাওয়া থেকে শুরু করে বিভিন্ন রকম যান্ত্রিক জটিলতায় স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণে বিলম্ব হওয়া যদিও বেশ সাধারণ একটি ঘটনা বলে মত প্রকাশ করেছেন বিশেষজ্ঞরা। তবুও স্যাটেলাইট নিয়ে কি বিশেষজ্ঞের কথা শুনলে চলে! এ ঘটনাকে সরকারের একটি অবিস্মরণীয় ব্যর্থতা বলে আখ্যা দিয়েছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। মেজর জিয়া স্যাটেলাইটের স্বপ্ন দেখেছিলেন বলেই স্যাটেলাইট প্রথমবারে আকাশে উড়তে দেয়া হয়নি, এমন আশঙ্কা রয়েছে বিএনপির অনেকেরই!

এক বিবৃতিতে এ ঘটনার তীব্র সমালোচনা করেন দলটির দীর্ঘদিনের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল। তিনি হুংকার ছেড়ে বলেন ‘নূন্যতম গণতান্ত্রিক মূল্যবোধে বিশ্বাসী হলে যথাসময়ে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণে ব্যর্থতার দায়ভার নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদত্যাগ করতেন!’ অন্য এক বিবৃতিতে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী ‘এ ঘটনাই প্রমাণ করে সরকার দেশ/বিশ্ব পরিচালনায় সম্পূর্ণ ব্যর্থ’!

অন্য দিকে গতকাল থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মেজর জিয়ার জ্যেষ্ঠ পুত্র তারেক রহমানের একটি ভিডিও বার্তা ভাইরাল হয়ে যায়। সেখানে তিনি জাতির উদ্দেশ্যে স্মৃতির পাতা থেকে ছোটবেলার একটি শিক্ষামূলক ঘটনা উল্লেখ করেন। যে ঘটনা থাকে পরবর্তীতে আকাশ মহাকাশ অন্তরীক্ষ নিয়ে জানতে বুঝতে আগ্রহী করে তুলেছিল!

১৯৮০ সালের এক সন্ধ্যায় তৎকালীন রাষ্ট্রপ্রধান জিয়াউর রহমান একটি ফাইল শেলফের উপর ছুড়ে ফেলেন। বাবার অনুপস্থিতিতে যেটি স্কুলপড়ুয়া তারেক কৌতূহলে সেই ফাইল খুলে দেখেন একটি সুদৃশ্য রকেটের ছবি। কৌতূহলী তারেক, পরবর্তীতে যিনি হাওয়া ভবন এবং খাম্বা সংক্রান্ত কারণে জগদ্বিখ্যাত হবেন, ছবি দেখে রকেট নিয়ে স্বপ্নে বিভোর হয়ে যান। স্বপ্নে ব্যাঘাত ঘটান তার পিতা এক সময়ের মেজর জিয়া। এরপর তিনি তার সন্তানকে একজন বিচক্ষণ রকেটবিজ্ঞানীর মত করে বুঝিয়ে দেন কীভাবে এই রকেটে একটি স্যাটেলাইট ‘ফিট’ করা থাকবে।

এই ঘটনাই প্রমাণ করে মেজর জিয়ার স্বপ্ন শুধু খাল সংক্রান্ত ছিল না… তিনি চাইতেন একটি স্যাটেলাইটও! এরপরই ক্ষোভে ফেটে পড়েন নেতাকর্মীরা। একজন অতি উৎসাহী ছাত্রদল নেতা ঘরে বসে লাইভে এসে বলেন, 'আমরা ক্ষমতায় নাই, সংসদে নাই, রাজপথে নাই, নির্বাচনে নাই, তাই বলে মহাকাশেও থাকবো না? হোয়াট দ্য এফ!'

অবশ্য অন্য একটি অংশ ধারণা করছে যে, অভিমানী স্যাটেলাইট নিজ থেকেই পৃথিবী ছেড়ে যেতে চায়নি। বিএনপির এক আমেরিকান প্রতিনিধি সুদূর ফ্লোরিডা থেকে নিশ্চিত করেছেন যে, রাগ করেই স্যাটেলাইট পৃথিবীতে থেকে গেছে। এই স্যাটেলাইট রকেটকে বুঝিয়েছে কী করে মেজর জিয়ার স্বপ্ন চুরি করে আওয়ামীলীগ সরকার জোর করে তাকে মহাকাশে পাঠাতে চাচ্ছে। এমন অন্যায় রকেট কোনভাবেই মেনে নিতে পারেনি দেখে সে রাগে ফুঁসতে ফুঁসতে পৃথিবীতে রয়ে গেছে।

বিএনপির তরফ থেকে সর্বশেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে কয়েক সদস্য বিশিষ্ট কমিটি এখন ফ্লোরিডায় উড়ে গেছেন স্যাটেলাইটের অভিমান ভাঙাতে!

স্যাটেলাইট বিশেষজ্ঞ তারেক রহমানের কাছ থেকে পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত স্যাটেলাইট জ্ঞান গ্রহণ করতে দেখুন ভিডিও--

 

১৯৪৪পঠিত ...১৯:০৫, মে ১১, ২০১৮

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
    আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

    আইডিয়া

    গল্প

    রম্য

    সাক্ষাৎকারকি

    স্যাটায়ার

    
    Top