যে সব কাজ করলে দেশের সব টার্মিনালে আবারও বাঞ্ছিত হতে পারেন ইলিয়াস কাঞ্চন

৮৪৪ পঠিত ... ২০:৫৪, অক্টোবর ০৮, ২০১৮

'নিরাপদ সড়ক চাই' সংগঠনের প্রধান উদ্যোক্তা ও চেয়ারম্যান চলচ্চিত্র নায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনকে দেশের সকল টার্মিনালে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ।রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী বাস চাপায় নিহতের ঘটনার পর শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভে একাত্মতা ঘোষণা করে রাজপথে তাদের পাশে ছিলেন ইলিয়াস কাঞ্চন। মূলত এরপর থেকেই পরিবহন মালিক-শ্রমিকরা তার প্রতি ক্ষুব্ধ (সূত্র: ঢাকা ট্রিবিউন)।

পরিস্থিতি যখন এমন, তাহলে দেশের টার্মিনালগুলোতে আবারও 'বাঞ্চিত' হওয়ার জন্য ইলিয়াস কাঞ্চন কী করতে পারেন? কী করলে সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের কর্তারা ইলিয়াস কাঞ্চনের উপর খুশি হতে পারেন? ইলিয়াস কাঞ্চনের কাছ থেকে তারা কী চান? ভাবতে চেষ্টা করেছে eআরকি।

১. অনিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনে নামলে
সব চেয়ে ফলপ্রসূ কাজ বোধ হয় এটাই। অনিরাপদ সড়ক আন্দোলনে নামলে ইলিয়াস কাঞ্চন প্রতি টার্মিনালে বিনা পয়সাও পরিবহন সেবাও পেতে পারেন।

২. বেপরোয়া চালকদের বেপরোয়া গাড়ি চালানোর অধিকার নিয়ে কাজ করলে
এই কাজে একাত্বতা প্রকাশ করলে ইলিয়াস কাঞ্চন হয়ে যাবেন তাদের নয়নের মনি। বাঞ্চিত হওয়ার জন্য এটা হবে অব্যর্থ পদক্ষেপ।

৩. অদক্ষ ড্রাইভারদের লাইসেন্স দেয়ার দাবিতে সমাবেশ করলে
ইলিয়াস কাঞ্চন হাতে মাইক নিয়ে যদি চিৎকার করে বলেন, 'গরু, ছাগল, সিগনাল চিনলেই তকে লাইসেন্স দেয়া হোক', তাহলে বোধ হয় তার বাঞ্চিত হতে আর সময় লাগবে না।

৪. ওভারটেকিং এর বৈধতা নিয়ে কাজ করলে
মহাসড়কে ড্রাইভাররা চায় অ্যাডভেঞ্চার। আর এর একমাত্র উপায় ওভারটেকিং। ইলিয়াস কাঞ্চন যদি ওভারটেকিং এর বৈধতা আদায়ে আন্দোলন করেন, তবেই তিনি পরিবহন মালিক-শ্রমিক সমিতির প্রিয় পাত্র হয়ে উঠবেন।

৫. সপ্তাহে দুইদিন হেল্পার দিয়ে গাড়ি চালানোর জন্য ক্যাম্পেইন করলে
হেল্পার কি শুধু দরজায় দাঁড়ায় হেল্প করার জন্য? তারা কি হেল্প করেই যাবে! তাদেরও তো মন আছে, তাদেরও তো ইচ্ছা করে ওস্তাদের সিটে বসে স্টিয়ারিং নিয়ে খেলা করতে। আর তাই 'সপ্তাহে দুইদিন হেল্পার হোক ড্রাইভার'- এমন ক্যাম্পেইন শুরু করলে ইলিয়াস কাঞ্চন কে শুধু বাঞ্চিতই না, তাকে প্রতি টার্মিনালে সংবর্ধনা দেয়া হবে।

৬. শাজাহান খানের প্রশংসা করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিলে
এই জামানায় তেল দেয়া জানতে হয়। তেলের কারনেই কত অবাঞ্চিত মানুষ বাঞ্চিত হয়ে গেলো যুগে যুগে। ইলিয়াস কাঞ্চন যদি ফেসবুকে শাজাহান খানের প্রশংসাসূচক লেখালেখি শুরু করেন, তাহলে ঘটনা উল্টাতে সময় লাগবে না। জলে এবং স্থলে, উভচর মন্ত্রীর কল্যাণে দুই পথেই বাঞ্চিত হয়ে উঠবেন এই তারকা।

৭. আটক সকল ড্রাইভার হেল্পারের মুক্তির দাবিতে রাজপথ আটকে আন্দোলন করলে
এখন পর্যন্ত আটক সকল ড্রাইভারের মুক্তি চেয়ে আন্দোলনে নামলে ইলিয়াস কাঞ্চন এই পরিস্থিতি পাল্টে দিতে পারেন। উনারা বস মানুষ, উনাদের কাছে 'বাঞ্চিত' হতে হলে এটুকু তো করতেই হবে।

৮. সিনেমায় বেপরোয়া ড্রাইভার চরিত্রে অভিনয় করলে
ইলিয়াস কাঞ্চন এক কালের জনপ্রিয় নায়ক। তিনি সিনেমায় বেপরোয়া ড্রাইভার চরিত্রে অভিনয় করলে নিশ্চয়ই বেপরোয়া ড্রাইভারদের গ্রহণযোগ্যতা বাড়বে। তিনিও হয়ে উঠবেন পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের আইকন! সে ক্ষেত্রে কয়েকটি বাস টার্মিনালের নামও বদলে 'ইলিয়াস কাঞ্চন বাস টার্মিনাল' হয়ে যেতে পারে...'

৮৪৪ পঠিত ... ২০:৫৪, অক্টোবর ০৮, ২০১৮

আরও eআরকি

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

কৌতুক

গল্প

রম্য

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top