কার্টুন পিপলের দেশি ক্যারেক্টার ডিজাইন চ্যালেঞ্জে আঁকিয়েদের কল্পনায় সুন্দরবনের জলদস্যু

৭৫১ পঠিত ... ২১:৫২, সেপ্টেম্বর ০৮, ২০১৮

ডিসি কিংবা মার্ভেলের অসংখ্য সুপারহিরো আর সুপারভিলেনদের তো অনেক দেখলাম আমরা। কিন্তু দেশীয় কার্টুন বা কমিক চরিত্রের কথা মনে করতে গেলেই ঘুরে ফিরে উন্মাদ আর টোকাই নাম দুটো বলে আমরা প্রায় সবাইই হয়ত থমকে যাব তৃতীয় কোন কার্টুন চরিত্রের নাম মনে করতে। দেশী কার্টুন চরিত্রের অভাবটা যাতে আর সামনে না থাকে তার জন্য কার্টুনপিপল নিয়মিত আয়োজন করে ‘দেশি ক্যারেকটার ডিজাইন চ্যালেঞ্জ’ নামক এক মাসিক প্রতিযোগিতা।

সর্বশেষ দেশি ক্যারেকটার ডিজাইন চ্যালেঞ্জে কার্টুনিস্টদের জন্য বিষয় ঠিক করে দেয়া হয়েছিল সুন্দরবনের জলদস্যু। দেশের দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলে বঙ্গোপসাগরের কোল ঘেঁষে রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার, চিত্রা হরিণ, কুমির, বানর ইত্যাদি নানা জাতের প্রাণী, উদ্ভিদ আর জালের মত ছড়িয়ে থাকা খাল আর নদী নিয়ে বিস্তৃত পৃথিবীর সবচেয়ে বড় এই ম্যানগ্রোভ বন। ছবি, ভিডিওতে যেমন শান্ত সুনিবিড় দেখা যায়, ততটা নিরুপদ্রব কিন্তু সুন্দরবনের জীবন না। সুন্দরবনে বাঘ আর কুমিরের সাথে রাজত্ব করে বনের আনাচে কানাচে লুকিয়ে থাকা এক শ্রেণীর মানুষও, তারাই জলদস্যু। লম্বা লম্বা নৌকা নিয়ে তারা বিরাজ করে বঙ্গোপসাগর থেকে সুন্দরবনের সর্বত্র।

এই জলদস্যুদের নিয়ে প্রচলিত আছে নানা কল্পকাহিনী। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে ধরা পড়া গুন্ডা-বদমাশ দস্যুর নির্মমতার গল্প যেমন শোনা যায়, তেমনি শোনা যায় গ্রামবাসী আর গরীবের বন্ধু জলদস্যুদের নানা কাহিনীও। কোন কোন দস্যু তো রীতিমত আঞ্চলিকভাবে বিখ্যাত। মানুষের বেঁচে থাকার পক্ষে প্রচণ্ড শ্বাপদসঙ্কুল এই পরিবেশেও বেঁচে থাকা এই দস্যুরাই ছিল এবারের দেশী ক্যারেকটার ডিজাইন প্রতিযোগিতার বিষয়।

এই ভয়ংকর চরিত্র নিয়েও ১৪০টির বেশি ক্যারেকটার ডিজাইন জমা পড়ে প্রতিযোগিতায়। যা থেকে সেরা ৪টি ক্যারেকটারকে বিজয়ী হিসেবে নির্বাচিত করা হয়। এই কাজটি করতে বেশ বেগ পোহাতে হয়েছে, এমনটাই বলেছেন প্রতিযোগিতার প্রধান বিচারক কিংবদন্তীতুল্য কার্টুনিস্ট আহসান হাবীব।তাঁর দায়িত্বে ছিল প্রথম ও দ্বিতীয় বিজয়ী নির্বাচিত করার। তিনি বলেন, ‘প্রতিযোগিতায় জমা পড়া সবগুলো ডিজাইনই ছিল দুর্দান্ত। তাই বিজয়ী নির্বাচন করা ছিল বেশ কঠিন।যে দু’টি ডিজাইন ১ম ও ২য় হয়েছে, তারা বিজয়ী হওয়ার কারণ হচ্ছে, সেগুলো দেশীয় জলদস্যুদের লুক ও ফিচার পুরোপুরি ধারণ করছিল।’

১ম স্থান পাওয়া অঙ্গনা আহসানা জল রঙে এঁকেছেন ‘দস্যু রাণী ফুলি’র ছবি। ফুলি আর তার অনেক অর্থকড়ি পাহারা দিচ্ছে এক রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার। ২য় স্থান পাওয়া আরহাম হাবিব কালার পেন্সিলে এঁকেছেন জলদস্যু কাকাবু ও তার পোষা কাক ‘কাকলি’কে।

প্রতিযোগিতায় বিজয়ী পরের দুটো স্থান নির্বাচন করেছেন সময়ের জনপ্রিয় কার্টুনিস্ট সৈয়দ রাশাদ ইমাম তন্ময়। ৩য় বিজয়ী রাকিব রাজ্জাক ডিজিটাল মাধ্যমে এঁকেছেন ‘মোস্তফা দ্য পাইরেট’কে যে কিনা বাঘের চামড়া গায়ে জড়িয়ে এক চোখে টেলিস্কোপ নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে, আর ৪র্থ বিজয়ী জুনাইদ ইকবাল ইশমাম ডিজিটাল মাধ্যমে এঁকেছেন ভয়ংকর দস্যু ‘খোঁড়া খোরশেদ’কে।

কার্টুন পিপল জানিয়েছে, বিগত কয়েকটি প্রতিযোগিতায় ডিজিটাল মাধ্যমে আঁকা চরিত্রগুলোই প্রথম সারিতে জায়গা করে নিচ্ছিল, কিন্তু এবার প্রথম দুই স্থান দখল করেছে ট্রেডিশনাল ড্রয়িং মাধ্যমে আঁকা চরিত্র।

প্রতিযোগিতায় জমা পড়া কার্টুনগুলোর মধ্যে বাছাই করা ৯টি কার্টুন দেয়া হলো eআরকির পাঠকদের জন্য!

#১

কার্টুন: অঙ্গনা আহসানা

#২

কার্টূন: আরহাম হাবিব

 

#৩

কার্টুন: রাকিব রাজ্জাক

#৪

কার্টুন: জুনাইদ ইকবাল ইশমাম

 

#৫

কার্টুন: সৈয়দ রাশাদ ইমাম তন্ময়

 

#৬

কার্টুন: মুহাম্মদ আয়ান

#৭

আরিফ ইকবাল

 

#৮

কার্টুন: Possd Saga

 

#৯

কার্টুন: ফাহিম আনজুম রুম্মান

৭৫১ পঠিত ... ২১:৫২, সেপ্টেম্বর ০৮, ২০১৮

আরও eআরকি

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

কৌতুক

গল্প

রম্য

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top