যে ১১টি উপায়ে র‍্যাব নিজেদের ভাবমূর্তি ফিরিয়ে আনতে পারে

১৫০৪ পঠিত ... ১৮:৪০, জুন ০৫, ২০১৮

দেশজুড়ে চলছে বন্দুকযুদ্ধ (পড়ুন ক্রসফায়ার!)। র‍্যাব এবং আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর বিরুদ্ধে বিচার বহির্ভূত হত্যার অভিযোগ উঠেছে জোরেসোরেই। কথিত 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত টেকনাফের টেকনাফের পৌর কাউন্সিলর একরামুল হকের স্ত্রীর রেকর্ড করা অডিও ক্লিপ ফাঁসের পর র‍্যাবের ভাবমূর্তি যে খুব ইতিবাচক নয়, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। ভাবমূর্তি ফিরিয়ে আনতে (যদিও ভাবমূর্তি আগেও বিশেষ সুবিধার ছিল কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতেই পারে!) কী করতে পারে র‍্যাব? র‍্যাবের সুবিধার্থে তা ভেবেছেন eআরকির ভাবমূর্তি গবেষক দলের সদস্য সুচয়ন চাকমা কিংশুক, পীয়্যান মুগ্ধ নবী এবং তৌকির আহমেদ

১# র‍্যাব সদস্যরা ক্রসফায়ার শেষে ফেরার পথে ‘অপরাধী’ গানটি গেয়ে ভিডিও আপলোড করে ফেসবুকে ভাইরাল করতে পারেন।

২#  বিশ্ব একাদশের সাথে ক্রিকেট বা ফুটবল ম্যাচের আয়োজন করতে পারে। অবশ্য ম্যাচে হেরে গেলে পরে তারা জয়ী দলকে নিয়ে ব্যাট-বল উদ্ধারে যাবে কি না সে ব্যাপারে নিশ্চিত করে কিছু বলা যাচ্ছে না।

৩# স্কুল কলেজে ছাত্রছাত্রীদের মাঝে ৫০০ শব্দের রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করতে পারে। টপিক থাকতে পারে, ‘র‍্যাবের জন্য ভালোবাসা’!

৪# বিভিন্ন কুইজের আয়োজন করতে পারে। বিজয়ী প্রতিযোগীদের বন্দুকযুদ্ধে নিয়ে যাওয়ার সুযোগ থাকতে পারে।

৫# ক্রসফায়ারের চিরায়ত প্লট নিয়ে ‘ক্রসফায়ার অ্যাটাক’ নামে একটি সিনেমা তৈরি করা যেতে পারে। যাতে দেখানো হবে কতটা নিরুপায় হয়ে ক্রসফায়ারে গোলাগুলি করতে হয় র‍্যাবের সদস্যদের।

৬# বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের নিয়ে আয়োজন করতে পারে ‘ক্লেমন আউটডোর শ্যুটিং ইভেন্ট’। এই শ্যুটিং ইভেন্টে কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ফেনসিডিলের বোতল, ইয়াবা এ সবে নিশানা করবে। এটি ছাত্রজীবন থেকেই মাদকের বিরুদ্ধে শক্ত মনোভাব গড়ে তুলতে সাহায্য করবে।

৭# সবচেয়ে সফল ক্রসফায়ারকারী র‍্যাব সদস্যকে মোটিভেশনাল স্পিকার হিসেবে সোশ্যাল মিডিয়ার সামনে আনা যেতে পারে। তার সাফল্যের গল্প এবং ‘তুমিও পারবে’ জাতীয় কথাবার্তায় জনমনে র‍্যাবের প্রতি সম্মান ও শ্রদ্ধা বাড়বে।

৮# উদ্ধার করা মাদকদ্রব্য পুড়িয়ে দিয়ে সেই আগুনে বার-বি-কিউ পার্টির আয়োজন করতে পারেন।

৯# র‍্যাবের পক্ষ থেকে মাদক বিরোধী কনসার্টের আয়োজন করা যেতে পারে। সেখানে প্রধান আকর্ষণ হবে অ্যাশেজ, জুলিয়ান মার্লে ও স্নুপ ডগ।

১০# সকল মাদক ব্যবসায়ীদের নিয়ে র‍্যাব আয়োজন করতে পারে ‘হাঙ্গার গেমস’ এর মতো লটারিভিত্তিক প্রতিযোগিতা। সকল বিভাগ থেকে লটারির মাধ্যমে নির্বাচিত করা হবে ২ জন মাদকব্যবসায়ীকে। পরে তাদের নিজেদের মধ্যে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে শেষ পর্যন্ত যে টিকে থাকবে তাকে বিজয়ী ঘোষণা করা হবে। পুরো প্রতিযোগিতা লাইভ ব্রডকাস্ট করা হবে। পরবর্তী এক বছরের জন্য সেই ব্যবসায়ী ক্রসফায়ারের ভয় ছাড়াই নিজ এলাকায় মাদক ব্যবসা চালিয়ে যেতে পারবে। 

#১১ ভ্যানগাড়িতে করে শহরের রাস্তায় ঘুরাঘুরি করলে ভাবমূর্তি ফিরে আসতে পারে। এতে জনসাধারণের যেমন কাছাকাছি যাওয়ার সুযোগ থাকবে, তেমনি পরে ভ্যানগাড়িওয়ালাকে র‍্যাবে চাকরি দেয়ার আশ্বাস দেয়ার মাধ্যমে উদার বাহিনী হিসেবে র‍্যাবের ভাবমূর্তির উন্নয়ন হতে পারে!

১৫০৪ পঠিত ... ১৮:৪০, জুন ০৫, ২০১৮

আরও eআরকি

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

কৌতুক

গল্প

রম্য

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top