বিরোধীদলের নেতা হিসেবে শপথ নেয়ার আগের রাতে এরশাদ ডায়েরিতে যা যা লিখলেন

৫৪৪ পঠিত ... ১৬:৩৯, জানুয়ারি ০৭, ২০১৯

একাদশ জাতীয় সংসদে বিজয়ী মহাজোটের শরিক হিসেবে রয়েছে জাতীয় পার্টি। এর আগের নির্বাচনে মহাজোটের বিজয়ের পরও এরশাদ কনফিউশনে ছিলেন, সরকারে থাকবেন নাকি যাবেন বিরোধী দলে। সেবার স্ত্রী রওশন এরশাদকে বিরোধী দলের নেতা করে নিজে হয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রীর 'বিশেষ দূত'! এবারও সেই একই রকম দ্বিধাদ্বন্দ্বে ভুগতে ভুগতে শেষমেশ বিরোধী দলের নেতা হওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন এরশাদ। একটু ভাবুন তো, শপথ নেয়ার আগের রাতে এরশাদ যদি ডায়েরি লিখতেন, তবে কী লিখতেন? এরশাদের সেই কাল্পনিক ডায়েরির পাতা থেকে লেখাগুলো কল্পনায় উদ্ধার করেছেন এরশাদবিদ মিকসেতু মিঠু!

৪-১-২০১৯, সময় রাত ১১টা
ফাইনালি সিদ্ধান্ত নিলাম, আমি জাপাকে নিয়ে বিরোধী দলে থাকবো। সিদ্ধান্ত নিতে পেরে টেনশন ফ্রি লাগছে।

৪-১-২০১৯, সময় রাত ১১টা ০৫ মিনিট
গতবার তো বিরোধী দলে যাওয়ায় রওশনকে নিয়ে মানুষ হাসাহাসি করছে। বিরোধী দলে যাওয়া যাবে না। আমি সরকারি দলেই থাকবো। অবশেষে একটা মনের মত সিদ্ধান্ত নিতে পারলাম। ইয়াহু!

৪-১-২০১৯, সময় রাত ১১টা ১০ মিনিট
বিরোধী দলে না গেলে আপা বকা দিতে পারে। নাহ, আমি শেষবারের মত সিদ্ধান্ত নিচ্ছি আমি বিরোধী দলেই যাব।

৪-১-২০১৯, সময় রাত ১১টা ১৫ মিনিট
কে কী বললো এসব নিয়ে মাথা ঘামানো যাবে না। বিরোধী দলের কাঁথা পুড়ি, বার্ন দ্যা ব্ল্যাংকেট অব বিরোধী দল। আমি সরকারি দলেই থাকবো, এটাই শেষ কথা। আর কোন নড়চড় নাই।

৪-১-২০১৯, সময় রাত ১১ টা ২০ মিনিট
আমি কবি। কবিকে হতে হবে বিদ্রোহী। কবি যদি সরকারের সমালোচনা না করে তাহলে রাষ্ট্রের পচন ধরবে। নাহ, সিদ্ধান্ত মনে হচ্ছে পাল্টাতেই হবে। রাষ্ট্রকে বাঁচাতে হলেও এরশাদ হিসেবে না হোক একজন কবি হিসেবে আমাকে বিরোধী দলে থাকতেই হবে, থাকতেই হবে।

৪-১-২০১৯, সময় রাত ১১ টা ২৫ মিনিট
এত অস্থির লাগছে কেন? তবে কি আমি ভুল করছি? কুল ডাউন এরশাদ! কুল ডাউন! এখন মাথা গরম করলে চলবে না। তোমাকে শান্ত, সুস্থির মনে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। শেষ বয়সে বিরোধী দলে গিয়ে কি হবে? তার চেয়ে একটু আরাম আয়েশে যদি থাকা যায়। সরকারি দলে থাকবো এটাই ফাইনাল। দ্যা এন্ড। উফ, অবশেষে সিদ্ধান্ত নিতে পারলাম তাহলে!

৪-১-২০১৯, সময় রাত ১১ টা ৩০ মিনিট
রাজনীতি এবং প্রেমে ফাইনাল বলে কোন কথা নেই। দল হিসেবে বিরোধী পক্ষ খারাপ না। পাবলিকের সেন্টিমেন্ট পাওয়া যেতে পারে। অনেক তো সিদ্ধান্ত পাল্টালাম। আর একবার পাল্টালে কি এমন ক্ষতি হবে?

৪-১-২০১৯, সময় রাত ১১ টা ৩৫ মিনিট
ভুল কোনো সিদ্ধান্ত নিলাম না তো? নাহ, আজকে আর লিখতে ইচ্ছে করছে না। ঘুম পাচ্ছে। ঘুমাই। কাল দিনে ভালো মন্দ বিবেচনা করে একটা সিদ্ধান্ত নেয়া যাবে। আপাতত মহাসচিব পদ থেকে রাঙাকে বহিষ্কার করে দিই। আমার নামে সে মিডিয়ায় বলেছে তাকে নাকি চার বার বহিষ্কার করেছি।

৪-১-২০১৯, সময় রাত ১১ টা ৩৭ মিনিট
রাঙাকে আবার বহিষ্কার করাটা মনে হয় ঠিক হবে না। আপাতত...

৫৪৪ পঠিত ... ১৬:৩৯, জানুয়ারি ০৭, ২০১৯

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top